ঢাকা

জেনে নিন যে খাবারে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে

Link Copied!

করোনাভাইরাসের এখনও কোনো টিকা কিংবা ঔষধ আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি, তাই প্রতিরোধই একমাত্র ব্যবস্থা। যদি শরীরের ইমিউনিটি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হয়, তবে এই করোনা ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করেও আক্রমণ করতে পারবে না। এজন্য প্রয়োজন আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে এন্টিবডি তৈরি করা। যে খাবারে রোগ প্রতিরোধ

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর অন্যতম উপায় প্রোটিন জাতীয় খাদ্য, ভিটামিন সি, জিঙ্ক, ভিটামিন বি১২, প্রোবায়োটিকস

প্রোটিন সমৃদ্ধ কিছু সাধারন খাবারঃ ডিম, দুধ, কুমড়োর বিচি, মাছ, চিনাবাদাম, শিমের বিচি, মটরশুঁটি, যেকোনো ধরনের ডাল ইত্যাদি।

ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবারঃ টক জাতীয় ফল যেমন-লেবু, কমলা, আমলকী, মাল্টা, জাম্বুরা, পেয়ারা, কুল, লিচু, পেঁপে, লাল মরিচ, সবুজ মরিচ, সরিষা শাক ইত্যাদি।

জিংক জাতীয় খাবারঃ আদা, রসুন, ডাল, বাদাম, সামুদ্রিকমাছ, ডিম, শাক-সবজি, শস্য জাতীয় খাবার, বীজ জাতীয় খাবার, দুগ্ধ জাতীয় খাবার ইত্যাদি।

ভিটামিন ১২ জাতীয় খাবারঃ  পনির(ছানা), ডিম, দুধ, কম চর্বিযুক্ত দই ইত্যাদি।

প্রোবায়োটিকস যুক্ত খাবারঃ  টক দই,আচার, পনির, ডার্ক চকলেট, সয়া দুধ প্রভৃতি।

এছাড়া ঘি ও মধু খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। কালোজিরা মধুর সঙ্গে খেলে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

মনে রাখতে হবে কখনই ঠাণ্ডা লাগানো যাবে না। ভাইরাস যদি ফুসফুসে বেশ চেপে বসে তাহলে আপনার শ্বাসকষ্ট এবং নিউমোনিয়া হতে পারে।

এজন্য তিনটি প্রাণায়ামে ফুসফুসের যাবতীয় দোষ-ত্রুটি দূর করে সবল রাখে।

এক. ফুসফুসকে ভালো রাখার জন্য মুক্ত জায়গায় বসে উভয় নাক দিয়ে শ্বাস টেনে যতক্ষণ সম্ভব বন্ধ রেখে মুখ দিয়ে ধীরে ধীরে ছেড়ে দিন। এভাবে দশ/পনের বার করুন।

দুই. বাম নাক দিয়ে শ্বাস নিয়ে ডান নাক দিয়ে ছেড়ে দিন আবার ডান নাক দিয়ে শ্বাস নিয়ে বাম নাক দিয়ে ছেড়ে দিন। এভাবে দশ বার করুন।

তিন. পরিচ্ছন্ন মুক্ত পরিবেশে হাটার সময় শ্বাস নিতে নিতে ১,২,৩,৪ গুণে চার পা ফেলুন আবার শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে ১,২,৩,৪ গুণে চার পা ফেলুন। প্রতিদিন সকালে ও বিকালে হাটুন।

প্লেটে আদা কেটে রাখুন,সামান্য লবণ দিয়ে একটু পরপর খান।

আধাঘন্টা পর পর গরম ভেষজ চা, গরম কফি, গরম দুধ, গ্রিন টি পান করুন। গলা কোনভাবে শুষ্ক রাখা যাবে না।

এগুলো নিয়মিত মেনে চললে আপনি আক্রান্ত হলেও কয়েকদিনে সুস্থ হয়ে যাবেন।

এছাড়াও নিয়মিত ব্যায়াম, প্রাণায়াম, নেতিক্রিয়া, নাসাপান যেকোন ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিরাময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

বিঃদ্রঃ ঔষধ ছাড়া রোগ নিরাময়ের উপর বিশেষ অনুষ্ঠান যোগ সভা। প্রতিবছর ২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উপলক্ষ্যে। পত্রিকা(thenewse.com অথবা দি নিউজ thenews.com.bd /ফেসবুকে facebook.com/promithias খোঁজ রাখুন।

ঔষধ ছাড়াই সুস্থ দেহের টিপস পেতে যুক্ত থাকতে পারেন ফেইসবুক গ্রুপ Yoga bangla

http://www.anandalokfoundation.com/