সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
অপারেটিং সিস্টেম ডিজিটালাইজড করলে রাজস্ব আসবে ১২ হাজার কোটি -তথ্যমন্ত্রী সিএএ বিরধীদের মন্দির ভাংচুরে যোগী রাজ্যে দুই সম্প্রদায়ের সংঘর্ষ, পরিস্থিতি থমথমে ইউনেস্কো ও ব্রাজিলের উদ্যোগে ১২ দেশের ১৫টি উপস্থাপনায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত সিরিয়া ইস্যুতে রাশিয়া-ইসরাইল নয়া সমীকরণে ধাক্কা খেল তুরস্ক মেহেরপুরে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত সভা নিজের প্রাণ দিয়ে সাপের মুখ থেকে মালিককে বাঁচালো গর্ভবতী কুকুর শার্শায় পরিত্যক্ত অবস্থায় ৬০ বোতল ফেনসিডিল ও একটি মোটরসাইকেল জব্দ ৯০ শতাংশ সাংসদ জাতীয় সংগীত গাইতে পারেনা -ফিরোজ রশীদ বেনাপোল সীমান্তে ১ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক খালেদার জামিন সম্পূর্ণ আদালতের এখতিয়ারে এখানে কিছু বলার নেই -তথ্যমন্ত্রী

‘বেদ’ শুধু সনাতন ধর্মের শ্রেষ্ঠ ধর্মগ্রন্থই নয় পৃথিবীর ইতিহাসের প্রাচীনতম পুস্তক

সনাতন ধর্মের একমাত্র ধর্মগ্রন্থ হচ্ছে 'বেদ'। 'বেদ' - কেবল পৃথিবীর প্রাচীনতম ধর্মগ্রন্থ-ই নয় ; মানব ইতিহাসের প্রাচীনতম পুস্তক। অন‍্যান‍্য সমস্ত ধর্মশাস্ত্র হচ্ছে, পবিত্র গ্রন্থ 'বেদ' - এর ব‍্যখ‍্যা। 'শ্রীমদ্ভগবদগীতা' - হচ্ছে সমস্ত ধর্মশাস্ত্রের সংক্ষিপ্তসার

দেবাশীষ মুখার্জী, কূটনৈতিক প্রতিবেদকঃ  সনাতন ধর্মের একমাত্র ধর্মগ্রন্থ হচ্ছে ‘বেদ‘। ‘বেদ’ – কেবল পৃথিবীর প্রাচীনতম ধর্মগ্রন্থ-ই নয় ; মানব ইতিহাসের প্রাচীনতম পুস্তক। অন‍্যান‍্য সমস্ত ধর্মশাস্ত্র হচ্ছে, পবিত্র গ্রন্থ ‘বেদ’ – এর ব‍্যখ‍্যা। ‘শ্রীমদ্ভগবদগীতা’ – হচ্ছে সমস্ত ধর্মশাস্ত্রের সংক্ষিপ্তসার

কিছু মানুষ অজ্ঞতা বশত হোক কিংবা উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবেই হোক,ব বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। ধর্মের মৌলিক বিষয়ে বিভ্রান্তি বাঞ্ছনীয় নয়। আমাদের ধর্মের নাম ‘সনাতন ধর্ম’। ‘হিন্দু’ হচ্ছে জাতি। আফগানিস্তান থেকে ইন্দোনেশিয়া পর্যন্ত বিস্তীর্ণ এলাকায় বসবাসকারী সনাতন ধর্মাবলম্বী জনগোষ্ঠীকে বলা হয় ‘হিন্দু‘।

‘বেদ’ – শব্দের অর্থ হচ্ছে জ্ঞান ― ব্রহ্মার মুখ নির্গত অমোঘ জ্ঞান। পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ‘বেদ’ – এ আছে, শ্রদ্ধাবান ব‍্যক্তিই কেবল জ্ঞানার্জন করতে পারে। বিদ‍্যা পরম ধন – যে ধন কেউ চুরি করতে পারে না ; বিদ‍্যা দান করলে বাড়ে। বিদ‍্যা বিনয় দান করে। বিনয়পূর্ণ আচরণ দ্বারা একজন জ্ঞানী ব‍্যক্তি, জগত-সংসারকে পরমাত্মীয়ে পরিনত করে।

পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ‘বেদ’ – এ কোন জাতিভেদ নেই। ‘বেদ’ – নারী-পুরুষ সম অধিকারের নিশ্চয়তা দেয়। রাষ্ট্র পরিচালনার সর্বোত্তম পন্থা ‘গণতন্ত্র’ – ‘বেদ’ থেকে এসেছে।হিন্দু জাতির যাবতীয় বিপর্যয়ের কারণ – ‘বেদ’ তথা জ্ঞান-থেকে বিচ‍্যুতি। জ্ঞানের চেয়ে শক্তিশালী পৃথিবীতে কিছু নেই। সনাতন ধর্মের ভিত্তি জ্ঞান। হিন্দু জাতিকে যদি পৃথিবীতে টিকে থাকতে হয়, তাহলে অবশ্যই জ্ঞান-মুখী হতে হবে।

এতে আছে দেবস্তুতি, প্রার্থনা ইত্যাদি। ঋক্‌ মন্ত্রের দ্বারা যজ্ঞে দেবতাদের আহ্বান করা হয়, যজুর্মন্ত্রের দ্বারা তাদের উদ্দেশে আহুতি প্রদান করা হয় এবং সামমন্ত্রের দ্বারা তাদের স্তুতি করা হয়। ব্রাহ্মণ মূলত বেদমন্ত্রের ব্যাখ্যা। এটি গদ্যে রচিত এবং প্রধানত কর্মাশ্রয়ী। আরণ্যক কর্ম-জ্ঞান উভয়াশ্রয়ী এবং উপনিষদ্‌ বা বেদান্ত সম্পূর্ণরূপে জ্ঞানাশ্রয়ী।

বেদের বিষয়বস্তু সাধারণভাবে দুই ভাগে বিভক্ত কর্মকাণ্ড ও জ্ঞানকাণ্ড। কর্মকাণ্ডে আছে বিভিন্ন দেবদেবী ও যাগযজ্ঞের বর্ণনা এবং জ্ঞানকাণ্ডে আছে ব্রহ্মের কথা। কোন দেবতার যজ্ঞ কখন কিভাবে করণীয়, কোন দেবতার কাছে কি কাম্য, কোন যজ্ঞের কি ফল ইত্যাদি কর্মকাণ্ডের আলোচ্য বিষয়। আর ব্রহ্মের স্বরূপ কি, জগতের সৃষ্টি কিভাবে, ব্রহ্মের সঙ্গে জীবের সম্পর্ক কি এসব আলোচিত হয়েছে জ্ঞানকাণ্ডে। জ্ঞানকাণ্ডই বেদের সারাংশ। এখানে বলা হয়েছে যে, ব্রহ্ম বা ঈশ্বর এক, তিনি সর্বত্র বিরাজমান, তারই বিভিন্ন শক্তির প্রকাশ বিভিন্ন দেবতা। জ্ঞানকাণ্ডের এই তত্ত্বের ওপর ভিত্তি করেই পরবর্তীকালে ভারতীয় দর্শনচিন্তার চরম রূপ উপনিষদের বিকাশ ঘটেছে।

এসব ছাড়া বেদে অনেক সামাজিক বিধিবিধান, রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা, শিল্প, কৃষি, চিকিৎসা ইত্যাদির কথাও আছে। এমনকি সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবনের কথাও আছে। বেদের এই সামাজিক বিধান অনুযায়ী সনাতন হিন্দু সমাজ ও হিন্দুধর্ম রূপ লাভ করেছে। হিন্দুদের বিবাহ, অন্তেষ্টিক্রিয়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে এখনও বৈদিক রীতিনীতি যথাসম্ভব অনুসরণ করা হয়।ঋগ্বেদ থেকে তৎকালীন নারীশিক্ষা তথা সমাজের একটি পরিপূর্ণ চিত্র পাওয়া যায়। অথর্ববেদ থেকে পাওয়া যায় তৎকালীন চিকিৎসাবিদ্যার একটি বিস্তারিত বিবরণ। এসব কারণে বেদকে শুধু ধর্মগ্রন্থ হিসেবেই নয়, প্রাচীন ভারতের রাজনীতি, অর্থনীতি, সমাজ, সাহিত্য ও ইতিহাসের একটি দলিল হিসেবেও গণ্য করা হয়।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
22232425262728
29      
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ ||
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit