বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
চীনের জাহির করা ভুটানের ইয়েতি অঞ্চলে সড়ক বানাবে ভারত ডিএসসিসিতে সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত বর্জ্য সংগ্রহ ও অপসারণ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন একুশে পদক বিজয়ী ভাষা সংগ্রামী ডা. সাঈদ হায়দার আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার সহ ২ ডাকাত নবীগঞ্জ পুলিশের খাঁচায় ব্রিটেনে ১০ লাখের বেশি মানুষ করোনায় ধূমপান ছেড়ে দিয়েছে আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার ৪০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত বেড়িবাঁধ ভেঙে পানিবন্দি হাজারো মানুষ ধর্মানুভুতিতে আঘাত ও উস্কানির অভিযোগে ব্লগার আসাদ নূরের বিরুদ্ধে মামলা আগৈলঝাড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুইজন কুপিয়ে গুরুতর আহত গণপরিবহন নয় ঈদের আগে ও পরে ৮ দিন পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান বন্ধ থাকবে করোনার কারণে ঈদের আগে ৫ দিন ও পরে ৩ দিন গণপরিবহন বন্ধ

পরীক্ষার ফলাফল বিপর্যয়সহ নানা সমস্যায় জর্জড়িত ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ

বিশেষ প্রতিবেদক,ঠাকুরগাঁওঃ ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ একটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ যেখানে ১০টি বিষয়ে অর্নাস পড়ানো হয়।কিন্তু বর্তমানে কলেজটি নানা সমস্যায় জর্জড়িত হয়ে পড়েছে।যার ফলে গত কয়েক বছর ধরে এইচএসসি ও অর্নাসসহ কয়েকটি পরীক্ষায় ফলাফল ভাল করতে পারছেনা। ফলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

কলেজের বিভিন্ন বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থীর মধ্যে আরিফ,জুম্মন,শাহরিয়ার,নিলয়,রাজু ,শামিমা, রাফাসহ আরও অনেকে বলেন,কলেজে ঠিকমত ক্লাস হয়না।শিক্ষকের অভাব।যারা আছেন তারাও ঠিকমত ক্লাস নেন না। তারা প্রাইভেট নিয়ে ব্যস্ত।এছাড়া কলেজে রুমের সংকট রয়েছে।ছেলেদের কোন কমন রুম নেই।ইনডোর গেম খেলার রুম নেই।ড্রামা,ডিবেট করার রুম নেই।ক্যান্টিন নেই,নেই কোন অডিটোরিয়াম।সারা কলেজে ছাত্রদের জন্য একটি মাত্র ক্যান্টিন।টয়েলেটের সংখ্যা কম হওয়ায় ছেলে ,মেয়ের ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।খাবার পানির জন্য একটিমাত্র টিউবওয়েল।আরও একটি টিউবওয়েল ছিল যা অকেজো হয়ে পড়ে আছে। মসজিদের জন্য প্রতি শিক্ষার্থীর কাছে ভর্তির  সময় ১শ টাকা নেওয়া হয়।আর পরের বছর নেওয়া হয় ৫০টাকা ।কিন্তু মসজিদের হালহকিকত খুব খারাপ।বহুদিন রঙ করা হয়নি মসজিদ।মসজিদের টয়লেট মাত্র ২টি।সে দু’টির অবস্থাও খারাপ।কারন দেওয়াল ভেঙ্গে পড়ার উক্রম হয়েছে।

এ কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি)পর্যায়ে গত কয়েক বছর যাবত ফলাফল খারাপ করছে বলে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন।চলতি বছর এ কলেজ থেকে ৮শ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেয় ।সম্প্রতি প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায় এর মধ্যে পাশ করে ৬শ৭৬জন।জিপিএ-৫পেয়েছে মাত্র ৪৮জন।অকৃতকার্য হয়েছে ১শ২৪জন।

কলেজ সুত্রে জানা যায়,২০১২সালে ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ থেকে ৮শ৭০জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।ঐ বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১শ৬৭জন।দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোডের্  ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজের অবস্থান ছিল ১১তম।২০১৩সালে বোর্ডের তালিকায় কলেজটির অবস্থান এক ধাপ নেমে যায়।ঐ বছর ৭শ৭৭জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়।এর মধ্যে পাস করে ৬শ৭৬জন।জিপিএ-৫ কমে দাড়ায় ৮৫জনে।২০১৪সালে ৮শ১৭জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে।এর মধ্যে অকৃতকার্য হয় ১শ ১৯জন।জিপিএ-৫ পায় ৫৮জন।ঐ বছর ফলাফলের পেছনে কেন্দ্রে নিয়োজিত কক্ষ পরিদর্শকদের পক্ষপাত মুলক আচরনকে দায়ী করেছিলেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

ঐ সময় কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া মন্ডল ফলাফল খারাপ হওয়ার কারন সম্পর্কে জানিয়েছিলেন ঠাকরগাঁও সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের সরকারি মহিলা কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে হয়।মহিলা কলেজ কেন্দ্রে নিয়োজিত কক্ষ পরিদর্শকেরা সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীদের প্রতি প্রতিপক্ষ ভেবে তাদের সাথে পক্ষপাত মুলক আচরন করেন।বিজ্ঞান বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষায় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কম নম্বরও  দেয়া হয়েছিল।ফলাফল বিপর্যয় কাটিয়ে উঠার জন্য সে সময় তিনি পরের বছরের পরীক্ষার্থীদের পড়ালেখায় বাড়তি যতœ নেওয়ার কথা বলেছিলেন।

কিন্তু চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষায় ফল আরো খারাপ হয়েছে।২০১৩-২০১৪শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান বিভাগে কলেজে৩শ৯৯জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়।এর মধ্যে৩শ৫০জনই এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫পাওয়া।কিন্তু এ বিভাগ থেকে চলতি বছর জিপিএ-৫পেয়েছে মাত্র ৪৩জন।এবার কলেজের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ-৫পেয়ে পাশ করা একজন শিক্ষার্থী জানায়,প্রথম বর্ষে মাত্র হাতে গোনা কয়েকদিন ক্লাস হয়েছিল।দ্বিতীয় বর্ষে তাদের কোন ক্লাস হয়নি বললেই চলে।শিক্ষার্থীরা বাধ্য হয়ে ক্লাস বাদ দিয়ে কোচিং ও প্রাইভেট নিয়ে ব্যস্ত থাকে।একারনে শিক্ষকদের প্রাইভেটে শিক্ষার্থীদের ভীড় বেড়ে যায়।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবক আব্দুল লতিফ,সাদেকুল ইসলাম এবং আব্দুল মালেক বলেন,আমাদের ছেলেমেয়েদের আমরা উচ্চ শিক্ষার জন্য কলেজে পাঠিয়েছি ।কিন্তু কলেজে ঠিকমত ক্লাস হয়নাএবং শিক্ষকরা প্রাইভেট নিয়ে ব্যস্ত থাকলে আমাদের ছেলেমেয়েরা কলেজে কি শিখবে এবং কিভাবে ভাল রেজাল্ট করবে।

এবারের ফলাফল গত বছরের চেয়ে ভালো বলে দাবি করে কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া মন্ডল বলেন,দেশের অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফলাফলের তুলনায় এ কলেজের ফলাফল খুব একটা খারাপ হয়নি।তবে এ ফলাফল আশানুরুপ নয়।এ বছরের ফলাফল মুল্যায়ন করে পরে আরো ভালো করতে পরিকল্পনা হাতে নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন,ক্লাস নিয়মিত হয়না এটা ঠিক না ।আর প্রাইভেট বানিজ্যের ব্যাপারে বলেন,কোন স্যার প্রাইভেট বানিজ্য করে সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ করতে হবে।তিনি স্বীকার করেন ,রুম ও শিক্ষক সংকট আছে।আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি।কিন্তু বাজেট পাইনি।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
    123
18192021222324
25262728293031
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ || এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit
error: Content is protected !!