ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

‘টেকফরগুড’ প্রতিযোগিতার ফাইনালে বাংলাদেশ

Link Copied!

হুয়াওয়ে আয়োজিত ‘টেকফরগুড’ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে বাংলাদেশ থেকে অংশ নিতে যাচ্ছে একটি দল।  প্রতিযোগিতার ফাইনাল রাউন্ডে অংশ নিতে বিশ্বের সত্তরটিরও দেশ থেকে বিভিন্ন আইডিয়া জমা দেয়া হয়। সেগুলোর প্রেক্ষিতে নির্বাচিত ১১টি দলের একটি হিসেবে বাংলাদেশ। আগামী ৫ জানুয়ারি  ফাইনালে অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশ থেকে চার সদস্যের ওই প্রতিনিধি দল।

আয়ারল্যান্ড, আজারবাইজান, ইতালি, ফ্রান্স, আলজেরিয়া, ইকুয়েডর, বাহরাইন, সিঙ্গাপুর, আলবেনিয়া এবং আসিয়ান ফাউন্ডেশন থেকে যোগ দেয়া ১০টি টিমের সাথে বাংলাদেশের এই দল তাদের ‘ফ্লাডনট’ আইডিয়া নিয়ে ফাইনালে লড়াই করবে।

 ‘ফ্লাডনট’ প্রকল্পটি মূলত শহরাঞ্চলে বন্যা বা জলাবদ্ধতা সংক্রান্ত সমস্যা নিরসনে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই), ক্লাউড ও ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি)’এর মত আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর সমাধানের ভিত্তিতে কাজ করবে।

এই প্রকল্পের সফল বাস্তবায়ন শহরাঞ্চলে বসবাসকারীদেরকে ফ্ল্যাশ ফ্লাড বা আকস্মিক বন্যা থেকে সতর্ক করবে এবং একইসাথে বন্যার ফলে সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ পর্যালোচনা এবং তা মোকাবিলার উপায় নির্ধারণে ও সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়তা করবে।

টেকফরগুড গ্লোবাল কম্পিটিশন ২০২২ -এর বিজয়ী দলের সদস্যদের জন্য পুরস্কার হিসেবে থাকছে আসন্ন এমডব্লিউসি ২০২৩ (মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস) -এ অংশ নেয়ার সূবর্ণ সুযোগ। এই যাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের সমস্ত ব্যয়ভার বহন করবে হুয়াওয়ে।

 এছাড়া বিজয়ীদের জন্য সনদপত্র ও অন্যান্য উপহারের পাশাপাশি থাকছে ২০ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার, ক্যাটালিস্ট বুটক্যাম্প মেন্টরশিপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের সুযোগ, সর্বোপরি হুয়াওয়ে’র এক্সিকিউটিভদের সাথে এক ঘন্টা বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলার সুযোগ।

অন্যদিকে, প্রতিযোগিতার রানার- আপ দলের সদস্যরা সনদপত্রের সাথে পাচ্ছেন ১৫ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার, সেই সাথে  হুয়াওয়ে’র মানব সম্পদ বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে প্রফেশনাল ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট কোচিং সেশন ও ক্যাটালিস্ট বুটক্যাম্প মেন্টরশিপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের সুযোগ। দ্বিতীয় রানার-আপের জন্য থাকছে সনদপত্র, ১০ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার, এবং  হুয়াওয়ে’র মানব সম্পদ বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে প্রফেশনাল ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট কোচিং সেশন ও ক্যাটালিস্ট বুটক্যাম্প মেন্টরশিপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের সুযোগ।

এই বিষয়ে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের বোর্ড সদস্য জেসন লি বলেন, ‘বাংলাদেশের জন্য এটা অনেক ভাললাগার, যে এর আগামী প্রজন্ম এতটাই প্রতিভাবান –  তারা পরপর দুই বছর হুয়াওয়ে টেকফরগুডের ফাইনালে স্থান অর্জন করে নিয়েছে। এর মাধ্যমে এটিই প্রমাণিত হয় যে, দেশটির ভবিষ্যৎ অপার সম্ভাবনাময় এবং সমৃদ্ধির পথে যাত্রা অব্যাহত রাখতে তারা তরুণদের ওপর নির্ভয়ে আস্থা রাখতে পারে।’

‘ফ্লাডনট’ দলের সদস্যরা হলেন –  লাজিব শারার শায়ক (ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়), মো. সাজিদ আলতাফ (ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি), মেহরিন তাবাসসুম (রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়), এবং মো. ইফতেখার ইবনে জালাল (চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়)। তারা তাদের প্রকল্পটি অনলাইনে প্রতিযোগিতার বিজ্ঞ বিচারক প্যানেলের সামনে উপস্থাপন করবেন।

প্রতিযোগিতার অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে রয়েছে হুয়াওয়ে’র পিপল’স চয়েজ অ্যাওয়ার্ড। আগ্রহী দর্শকরা আগামী ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৬টা থেকে এই ইউটিউব লিঙ্কের মাধ্যমে  সরাসরি প্রতিযোগিতাটি দেখতে ও পছন্দের টিমকে ভোট দিতে পারবেন।

http://www.anandalokfoundation.com/