বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ০৩:৩৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ছাত্রদের টিফিনের টাকায় অসহায়দের মাঝে খাদ্য সামগ্রী  বিতরণ পঞ্চগড়ে জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে কিশোরীর মৃত্যু বগুড়া মেডিকেলে করোনা ভাইরাস সনাক্ত করতে শীঘ্রই পিসিআর ল্যাব চালু করোনায় যশোরের শার্শা গোড়পাড়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  বগুড়ায় যুবলীগ নেতা ও সাংবাদিকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দেশে করোনায় আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে ২১৮, মৃতের সংখ্যা ২০ বঙ্গবন্ধুর খুনি আবদুল মাজেদের ফাঁসির আদেশ জারি পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ ও র‌্যাবের প্রধান আব্দুল্লাহ আল মামুন ঝিনাইদহে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ঝিনাইদহে ট্রাকের ধাক্কায় ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী নিহত, আহত-৩

মহামারী করোনাভাইরাস প্রসঙ্গে বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস প্রসঙ্গে বাংলাদেশ

দেবাশীষ মুখার্জী (কূটনৈতিক প্রতিবেদক) : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনেক আগেই সতর্ক করে দিয়েছে ; তা সত্ত্বেও বাংলাদেশ সরকার, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ছাব্বিশে মার্চ পর্যন্ত অপেক্ষা করছে কেন? এই দুই দিনে মহাবিপর্যয় ঘনিয়ে আসতে পারে। বাংলাদেশ সরকারের এখনই উচিত – কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করে অফিস-আদালত, দোকানপাট, গণপরিবহন বন্ধ করে দিয়ে, সমগ্র দেশকে লকডাউন করে ফেলা এবং সমস্ত নাগরিককে জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত ঘরে থাকতে বাধ্য করা।

দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ; যে দেশের চিকিৎসা পরিকাঠামো অত্যন্ত অনগ্রসর – দক্ষ চিকিৎসা-কর্মীর যথেষ্ট অভাব। ইতালি বা স্পেন-এর মতো উন্নত-আধুনিক দেশ যেখানে, করোনাভাইরাস মোকাবিলা করতে হিমশিম খাচ্ছে; সেখানকার পুলিশ ও পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে লাশ উদ্ধার করছে। সেখানে বাংলাদেশের মতো জনবহুল অনুন্নত দেশে, করোনাভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়লে, কি ভয়াবহ বিপর্যয় ঘনিয়ে আসবে – সেটা কল্পনার বাইরে।

বাংলাদেশের সমআয়তনের ২ কোটি ৮৫ লাখ জনসংখ্যার নেপাল-এ, মাত্র দুজন লোক করোণাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সাথে সাথে – সমগ্র নেপাল লকডাউন করে ফেলা হয়েছে।

বাংলাদেশ পুলিশ-প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী, করোনা ভাইরাস আক্রান্ত দেশগুলো থেকে, প্রায় তিন লাখ প্রবাসী বাংলাদেশী নিজ-দেশে ফিরে এসেছে – যারা অবাধে সাধারণ মানুষের সাথে মেলামেশা করছে।

পক্ষান্তরে পার্শ্ববর্তী পশ্চিমবঙ্গে সরকারি নিষেধাজ্ঞার ব‍্যত‍্যয় ঘটামাত্র,আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী,আইন লঙ্ঘনকারীদের গ্রেপ্তার করতে দ্বিধা করছে না। করোনাভাইরাস সংক্রমণ-প্রতিরোধে ভারত সরকার কর্তৃক এত কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা সত্ত্বেও, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, ভারত এখনো বিরাট ঝুঁকির মধ্যে রয়ে গেছে।

ভৌগলিক নিবিড়তা ও আর্থসামাজিক অভিন্ন বাস্তবতার কারণে, ভারত ও বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রায় অনুরূপ। তাছাড়া তুলনামূলক অধিক জনঘনত্বের কারণে, বাংলাদেশের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা আরো জোরদার করা – মনে হয় যৌক্তিক।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930 
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ || এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit
error: Content is protected !!