শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৫১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
বিচারকরা দেশ, জনগণ ও সংবিধানের প্রতি দায়বদ্ধ হয়ে সবার প্রতি ন্যায় বিচার করুন -শেখ হাসিনা বাংলাদেশ-ভারতের অত্যন্ত সুসম্পর্ক তাই আমাদের প্রত্যাশা, ভারত আতঙ্ক সৃষ্টির মতো কিছু করবে না -পররাষ্ট্রমন্ত্রী হৃদ স্পন্দন বন্ধ হওয়ার ৬ ঘণ্টা পর বেঁচে উঠলেন স্পেনের এক নারী মোদী আমাদের সাথে ক্রিমিনালের মতো ব্যাবহার করছে -ফারুখ আব্দুল্লার আমার ব্যক্তিগত কোন মোবাইল ফোন নেই -ডোনাল্ড ট্রাম্প কোন দিন জন্মে কেমন মানুষ সাংবাদিক রিমন মাহফুজের পিতারমৃত্যুতে জাতীয় মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের গভীর শোকাহত মেহেরপুরে বোমা নিষ্ক্রিয় না হওয়ায় রাতে ঢাকা থেকে এসেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট বিয়ের আগে মেয়েকে নিয়ে স্মৃতিচারণ মিথিলার বঙ্গবন্ধু স্বীকৃতি দিলেও ৪৮ বছরে পায়নি রাষ্ট্রীয় সম্মান রমনা কালী মন্দির শহীদ পরিবার

দীর্ঘ রাজনৈতিক বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের অধিকারী ছিলেন সাদেক হোসেন খোকা

সাদেক হোসেন খোকা

সাদেক হোসেন খোকা একজন মুক্তিযোদ্ধা ও সফল সংগঠক ছিলেন এ নেতা। জীবনের শেষ মুহূর্তে পুরো ফুসফুসে ক্যানসার ছড়িয়ে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের মানহাটানে মেমোরিয়াল স্লোন ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টার হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছিলেন খোকা।

আজ সোমবার (৪ নভেম্বর) শেষ নিঃস্বাস ত্যাগ করে পৃথিবীর মায়া ছাড়েন তিনি।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়রসহ দীর্ঘ রাজনৈতিক বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের অধিকারী ছিলেন সাদেক হোসেন খোকা।

সাদেক হোসেন খোকা সরাসরি নির্বাচনে জয় লাভের মাধ্যমে ২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকার মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন বর্ষীয়ান এ নেতা।

১৯৯১ সালের সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সভাপতিকে পরাজিত করে প্রথম সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। তৎকালীন বিএনপি সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান তিনি। পরবর্তীতে ১৯৯৬ এবং ২০০১ সালেও তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। ২০০১ সালে চারদলীয় জোট সরকারের মৎস ও পশুসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান খোকা।

ছাত্রজীবনে ১৯৬৮ সালে বামপন্থী রাজনীতি দিয়ে খোকার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু হয়। ৬৯ এর গণঅভ্যুথান- ১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এরপর ১৯৭৮ সালে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ থেকে মনোনীত হয়ে ঢাকা পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন। এর পর ৯০ এর স্বৈরাচার এরশাদ পতন আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন খোকা।

১৯৮৭ সালে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাত ধরে এ রাজনীতিতে আসেন তিনি। অবিভক্ত ঢাকা মহানগর বিএনপির দুই মেয়াদে সভাপতি ছিলেন খোকা। ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে যান সাদেক হোসেন খোকা। এরপর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকছিলেন বিএনপির এ নেতা।

সাদেক হোসেন ১৯৫২ সালের ১২ মে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। পারিবারিক জীবনে তাঁর স্ত্রী ইসমত হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেক, ছেলে ইশফাক হোসেন, ও ইশরাক হোসেনসহ রাজনৈতিক জীবনে বহু শুভানুধ্যায়ী রেখে গেছেন।

২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি।

বিএনপির এ নেতা ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪মে সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক যান। তারপর থেকে সেখানেই রয়েছেন তিনি। সম্প্রতি খোকার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ম্যানহাটনের স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। গত ক’দিন ধরে খোকা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন বলে জানান তার পরিবার পরিজনরা।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 News Time Media Ltd.
IT & Technical Support: BiswaJit