ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কুড়িগ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিপুল রায়ের পরিবারে নারী-শিশুসহ আহত ৮

Rai Kishori
May 13, 2020 9:13 pm
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টারঃ  কুড়িগ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত হয়েছে বিপুল চন্দ্র রায় সহ তার পরিবারের নারী-শিশুসহ ৮ জন।
ঘটনাটি ঘটেছে আজ বুধবার দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার নাওডাংগা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী কুরুষাফেরুষা গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে  নারী-শিশুসহ ৮ ব্যক্তি আহত হয়েছে। আহত ৮ জনের মধ্যে এক নারী-শিশুসহ পাঁচ জনকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, গত একমাস আগে  গ্রামের মৃত: সুরেন চন্দ্র রায়ের ছেলে বিপুল চন্দ্র রায়ের সঙ্গে তার  ভাতিজার সাথে জমির সীমানাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ  হয়। ঐ সময় ভাতিজা নিখিল চন্দ্র আহত হয়। ঐ ঘটনার সালিশকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের বোমভোলা রায়ের ছেলে সুজন চন্দ্র রায়ের সাথে মোঃ আতাউর রহমান আতার কথাকাটি হয় এবং দুইজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।
এই ঘটনার জেরে আজ বুধবার (১৩ মে) দুপুরে আবারও মোঃ আতাউর রহমান আতার ও  বিপুল চন্দ্র রায়ের মাঝে কথাকাটি ও উত্তেজনা দেখা দেয় এবং এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে নারী-শিশুসহ ৮ জন আহত হয়। আহতরা হলেন- কুরুষাফেরুষা গ্রামের মৃত: পিশুচন্দ্র রায়ের ছেলে বোমভোলা চন্দ্র (৪৫)  তার স্ত্রী সরস্বতীবালা (৩৮) ও তার ছেলে সুজনচন্দ্র (১৯), রমাকান্তের স্ত্রী রত্না রানী (৩৬), প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের ছেলে মিলন চন্দ্র (১৪), তুষারচন্দ্র (১০), দেবেনের ছেলে সুরেশচন্দ্র (২৭), টগরাচন্দ্র রায়ের ছেলে বীরেন্দ্রনাথ (৫৭)।
প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনার পর থেকেই সীমান্তঘেষা কুরুষাফেরুষা হিন্দু গ্রামে আতংক বিরাজ করছে।
খবর পেয়ে নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলী মুসা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম বন্ধন ও ফুলবাড়ী থানার এ এস আই মোয়াজ্জেম হোসেন গুরুতর আহত হিন্দু পরিবারের নারী-শিশুসহ পাঁচ জনকে চিকিৎসার লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে উভয় পক্ষের স্বজনদের মাঝে উত্তেজনা পরিস্থিতি শান্ত করেন। এ ঘটনার পর ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) নবিউল হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দি নিউজকে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থালে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে। অভিযোগ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
http://www.anandalokfoundation.com/