13yercelebration
ঢাকা

সমস্যা জর্জরিত ঠাকুরগাঁও সরকারী কলেজ

admin
September 8, 2015 6:55 pm
Link Copied!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনীধিঃ আব্দুল আওয়াল ॥ ঠাকুরগাঁও সরকারী কলেজ একটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ। যেখানে ১০ টি বিষয়ে অনার্স পড়ানো হয়। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে। এই কাজে যার ফলে গত কয়েক বছর যাবৎ পরিক্ষায় ভালো করতে পারছে না। ছাত্র ছাত্রী এবং অবিভাবকেরা এর জন্য উদ্বেগ প্রদান করেছেন।

সরকারী কলেজের বিভিন্ন বিভাগের ছাত্র/ছাত্রী আরিফ, জুমন, শাহরিয়া, লিয়ন, রাজু, সাবলুর, শামিমা, রাফা এবং আরো অনেকে বলেন কলেজে ঠিকমত ক্লাস হয় না। শিক্ষকের অভাব, যারা আছেন তাড়াও ঠিকমত ক্লাস নেন না। তারা প্রাইভেট ও বানিজ্য নিয়ে ব্যাস্ত। এছাড়াও কলেজে ক্লাস রুম সংকট রয়েছে, ছেলেদের কোন কমন রুম নেই। ড্রামা, ডিবেট করার রুম নেই, কেন্টিন নেই ও অডিটরিয়াম নেই । সারা কলেজের ছাত্রদের জন্য টয়লেট মাত্র ১ টা। টয়লেটের সংখ্যা খুব কম হয়ে যায়। ছেলেমেয়রা ভোগন্তির স্বিকার হচ্ছে। টয়লেটের সংখ্যা অবিলম্বে বাড়ানো প্রয়োজন।

খাবার পানির জন্য মাত্র ১ টি টিউবয়েল। শত শত ছাত্র/ছাত্রীর জন্য যা যথেষ্ট নয়। আরোও ১টা টিউবয়েল ছিল যা অকেজো হয়ে পড়ে আছে। মসজিদের জন্য প্রতি ছাত্র/ছাত্রীর কাছে কলেজে ভর্তির সময় ৭৫০ জন ছাত্র/ছাত্রীর কাছ থেকে ১০০ টাকা করে নেয়। আর পরের বছরে ৫০ টাকা করে নেয়। কিন্তু মসজিদের হাল হুকিকত খুব খারাপ। বহুদিন ধরে রং করা হয়নি। মসজিদের টয়লেট মাত্র ২টি। সে দুটির দেওয়ালে ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

ছেলে মেয়েদের অবিভাবক আব্দুল লতিফ ও সাদেকুল ইসলাম এবং আব্দুল মালেক বলেন আমাদের ছেলেমেয়েদের আমরা উচ্চ শিক্ষার জন্য কলেজে পড়াচ্ছি। কিন্তু কলেজে ঠিকমত ক্লাস না হলে এবং শিক্ষকেরা প্রাইভেট, বানিজ্য নিয়ে ব্যাস্ত থাকলে আমাদের ছেলে মেয়েরা কি শিখবে এবং কিভাবে ভালো রেজাল্ট করবে। আমরা গরিব অবিভাবক আমরা কিভাবে অতিরিক্ত টাকা দিয়ে আমাদের ছেলে মেয়েদের প্রাইভেটে পাঠাবো। এছাড়া আমরা জানতে পারছি যে, কলেজের কিছু কিছু শিক্ষক ও মহোদয় গন ছেলে মেয়েদের সাথে খারাপ ব্যাবহার করেন। যা অত্যান্ত দুঃখজনক।

আমরা করেজের অধ্যক্ষ মহোদয়ের নিকট আবেদন জানাবো অতিশিঘ্র। এই সব সমস্যার সমাধান করে কলেজে শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনব। এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া মন্ডল বলেন, ক্লাস নিয়মিত হয় না। এটি ঠিক না।

আর প্রাইভেট বাণিজ্যের ব্যাপারে তিনি বলেন, কোন স্যার প্রাইভেট বানিজ্য করে তা সুনির্দিষ্টভাবে অবিভাবক করতে হবে। তাহলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি স্বিকার করেন, রুম সংকট ও শিক্ষক সংকট আছে কলেজের ক্লাস রুমের সংকট রয়েছে। ছেলে মেয়েদের কোন কমন রুম নেই, ইনডোর গ্যাম খেলার রুম নেই, ড্রামা, ডিভেট করার রুম নেই, ক্যান্টিন নেই, অডিটরিয়াম নেই। এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলে সমস্যার নিরসনে আমরা উর্ধতন প্রতিপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি কিন্তু বাজেট পাইনি।

http://www.anandalokfoundation.com/