ভারতে ক্যাশলেস সিস্টেম ই-রুপি উদ্বোধন

    Palash Dutta
    August 3, 2021 8:31 am
    Link Copied!

    ভারতে ডিজিটাল ব্যবস্থাকে উন্নত ক্যাশলেস সিস্টেমকেই অগ্রাধিকার দিতে ডিজিটাল ট্রানজেকশন ই-রুপি (E-Rupi) পরিষেবার উদ্বোধন করছেন কেন্দ্র। কিউআর কোড (QR code) এবং এসএমএস (SMS)এর মাধ্যমে হবে আর্থিক লেনদেন। ইরুপির মাধ্যমে সরকার ও ব্যবহারকারীর মধ্যে সংযোগ আরও এক ধাপ বৃদ্ধি পাবে। এই পরিষেবায় সুরক্ষিতভাবে হবে লেনদেন।

    ২ আগস্ট সোমবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ ভার্চুয়াল বৈঠকের মাধ্যমে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অর্থমন্ত্রক এবং পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় তরফে জানানো হয়েছিল।

    এই উদ্বোধন অনুষ্ঠানেই প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ই-রুপি ভাউচার দেশজুড়ে ডিজিটাল ট্রানজেকশনকে আরও বেশি বিস্তৃত করতে সাহায্য করবে। এর মাধ্যমে টার্গেটেড, ট্রান্সপারেন্ট এবং লিকেজ ফ্রী ডেলিভারির ক্ষেত্রে বড় সাহায্য পাবেন গ্রাহকরা।

    একবিংশ শতাব্দীতে আধুনিক ভারত যেভাবে টেকনোলজিকে সাথে নিয়ে এগিয়ে চলেছে এবং তা সমস্ত মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে তার অন্যতম প্রতীক ই রুপি।”

    আসুন দেখে নেওয়া যাক কি এই ই-রুপিঃ

    ই-রুপি কি? (E-Rupi)

    ই-রুপি হলো এমন একটি ই-ভাউচার যা কন্টাক্টলেস পেমেন্টে প্রভূত সহায়তা করবে। অন্যান্য ইউপিআই বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং থেকে এটি অনেকটাই আলাদা। কারণ এক্ষেত্রে যে প্রয়োজনে আপনি টাকা ব্যবহার করতে চান কেবলমাত্র সেই প্রয়োজনেই অর্থ ব্যবহৃত হচ্ছে কিনা তা জানা যাবে। ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (National Payments Corporation of India), ডিপার্টমেন্ট অফ ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস (Department of Financial Services ), ইউনিয়ন হেল্থ মিনিস্ট্রি (Union Health Ministry) এবং ন্যাশনাল হেল্থ অথরিটির (National Health Authority) উদ্যোগে তৈরি করা হয়েছে এই ই-রুপি।

    অন্যান্য ডিজিটাল পেমেন্ট পরিষেবার সাথে ই রুপির তফাৎ কোথায়ঃ

    অন্যান্য ডিজিটাল পেমেন্টের ক্ষেত্রে, বিভিন্ন অ্যাপস, ইন্টারনেট ব্যাংকিং পরিষেবা ব্যবহার করতে হয়। এক্ষেত্রে তার কোন প্রয়োজন নেই। এক্ষেত্রে গ্রাহকের সাথে পরিষেবা প্রদানকারীর সরাসরি সম্পর্ক তৈরি হয়। যার জেরে কোন মধ্যস্থতাকারীর কোন প্রয়োজন নেই। যার ফলে অনেক বেশি স্বচ্ছ, টার্গেটেড এবং লিকেজ ফ্রি সেবা প্রদানে সক্ষম ই রুপি। শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে কোন প্রয়োজনে অর্থ ব্যবহৃত হচ্ছে তা উল্লেখ থাকায় ডিজিটাল যুগেও দুর্নীতি অনেকটাই কমবে। সরকারি পরিষেবা সঠিক ব্যক্তি অবধি পৌঁছে দেওয়া সম্ভবপর হবে।

    ই-রুপি ব্যবহারের সুবিধাঃ

    ★এটি সরকার তরফে পরিষেবা প্রদানকারী ও গ্রাহকদের সরাসরি যুক্ত করে। যার জেরে কোনরকম দুর্নীতির সুযোগ নেই।

    ★ সম্পূর্ণ কন্টাক্ট লেশ পরিষেবা। মাত্র দুটি ধাপ অনুসরণেই পেমেন্ট করা সম্ভব।

    ★এটি একটি QR কোড বা SMS স্ট্রিং-ভিত্তিক ই-ভাউচার, যা সরাসরি উপভোক্তাদের মোবাইলে পাঠানো হবে।

    ★ বারবার ওটিপি দেবার কোন প্রয়োজন নেই। এই পরিষেবায়, ব্যবহারকারীরা কোন কার্ড, ডিজিটাল পেমেন্ট অ্যাপ বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং ছাড়াই ভাউচার রিডিম করতে পারবেন।

    ★ ই রুপির মাধ্যমে সরাসরি শারীরিক যোগাযোগ ছাড়াই নির্দিষ্ট গ্রাহকের কাছে সরকারি পরিষেবা সম্পূর্ণরূপে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে। এক্ষেত্রে কোনও মধ্যস্থতাকারী দুর্নীতি করতে পারবেন না।

    ★ এই পরিষেবা প্রিপেইড। তাই পরিষেবা প্রদানকারীর টাকা পেতে কোনো রকম কোনো অসুবিধা হবে না।

    কোন কোন ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হবে ই-রুপিঃ

    প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, আপাতত স্বাস্থ্য ক্ষেত্র এবং বিশেষ করে ভ্যাকসিন প্রদানেই এই পরিষেবার ব্যবহার করা হবে। অর্থাৎ কেউ যদি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে ভ্যাকসিন কিনে পৌঁছে দিতে চান তিনি এই পরিষেবার ব্যবহার করতে পারবেন। তবে পরবর্তী ক্ষেত্রে এর সাথে আরও অন্যান্য বিষয়গুলোও যুক্ত হবে। কর্পোরেট সংস্থার পক্ষ থেকে কর্মীদেরকেও এই ধরনের ই-ভাউচার দেওয়া হতে পারে। যাতে তারা এটি মানবকল্যাণে ব্যবহার করতে পারেন।

    কিভাবে ব্যবহার করবেন ই-রুপিঃ

    সরাসরি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানোর বদলে কিউআর কোড অথবা এসএমএসের মাধ্যমে ভাউচারটি পাঠানো হবে আপনার নম্বরে। অথবা আপনি যদি এই পরিষেবার মাধ্যমে সরকারকে সহায়তা করতে চান, সে ক্ষেত্রে একইভাবে আপনিও এভাবেই সরাসরি অর্থ না পাঠিয়ে ই-ভাউচার পাঠাতে পারবেন। এবার এই ভাউচার রিডিম করলেই উপভোক্তা তার প্রাপ্য সুবিধা লাভ করবেন।