ঢাকা

ইতালিয়কে হত্যায় খালেদার যোগসূত্র আছে

admin
October 2, 2015 8:08 am
Link Copied!

বিশেষ প্রতিনিধিঃ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, গত  সোমবার রাজধানীর গুলশানে ইতালির নাগরিককে হত্যা সুপরিকল্পিত। এ হত্যার সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জোটের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার যোগসূত্র আছে।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত ৩ অক্টোবর বিমানবন্দর  থেকে গণভবন পর্যন্ত  শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা সম্পর্কিত এক বর্ধিত সভায় তিনি এ কথা বলেন।তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধীরা দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ইতালির নাগরিককে হত্যা করেছে। তারা একাত্তরের পরাজিত হওয়ার প্রতিশোধ নিতে এসব হত্যাকাণ্ড করছে।  শেখ হাসিনার অর্জনকে ম্লান করার জন্যই ইতালির নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।এসময় হানিফ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘চ্যাম্পিয়ান অব দ্যা আর্থ’ পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত গণসংবর্ধনা দিতে বেলা দেড়টায়  নেতাকর্মীদের নিয়ে উপস্থিত থাকতে স্থানীয় সংসদ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

হানিফ বলেন, জামায়াতের জেনারেল সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড আপিলের চূড়ান্ত রায় প্রকাশ  পেয়েছে। এ রায়ে জনগণের ইচ্ছার প্রতিফলন হয়েছে। জনগণ চায় এ রায় শিঘ্রই কার্যকর হোক। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনা যখন জাতিসংঘের সর্বোচ্চ সম্মান চ্যাম্পিয়ান অব দ্যা আর্থ’ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন, ঠিক তখনই ইতালির নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে। এটা সুপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।  শেখ হাসিনার অর্জনকে ম্লান করে দেয়ার জন্যই এটা করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল  হোসেন চৌধুরী মায়া নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বলেন, গণসংবর্ধনা সফল করার জন্য রাস্তায় যাতে বিশৃঙ্খলা ও জনগণের ভোগান্তি না হয়  সেদিকে খেয়াল রাখব। রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত শেখ হাসিনাকে গণসংবর্ধনা জানাব। সবাই ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে আসবেন। তবে সেখানে কারো ব্যক্তিগত ছবি থাকবে না। ছবি থাকবে একমাত্র  শেখ হাসিনার। সবার হাতে থাকবে জাতীয় ও দলীয় পতাকা। আর রাস্তার দুই পাশ থেকে ফুলের পাপড়ি ছিটাবেন।  ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ আজিজের সভাপতিত্বে  সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন- মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী মো.  সেলিম, সহসভাপতি মুকুল  চৌধুরী, ফয়েজ উদ্দিন মিয়া প্রমুখ।

http://www.anandalokfoundation.com/