13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

যশোরে তালাক দেয়ায় পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীর আত্মহত্যা

admin
January 9, 2017 6:42 pm
Link Copied!

যশোর প্রতিনিধি: যশোরের বাঘাড়পাড়া উপজেলায় পুলিশ কর্মকর্তা স্বামী তালাক দেয়ায় প্রিয়া খাতুন (১৯) নামে এক কলেজছাত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না ফাঁস লাগিয়ে মেয়েটি আত্মহত্যা করেন।

আজ সোমবার দুপুরে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ওই গৃহবধূর ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়। রোববার বিকেলে উপজেলার চেচুয়াখোলা গ্রামে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। চলতি বছর প্রিয়া যশোর সরকারি মহিলা কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে (অনার্স) প্রথমবর্ষে ভর্তি হন।

নিহতের মামা পুলিশ কনস্টেবল বিপ্লব হোসেন জানান, প্রিয়ার স্বামী রাকিব হাসান ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইন টেলিকমে এএসআই পদে কর্মরত রয়েছেন। তিনি আরও জানান, বাঘারপাড়া উপজেলার সাইটখালী গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে রাকিব হাসানের সঙ্গে একই উপজেলার চেচুয়াখোলা গ্রামের ইদ্রিস আলীর মেয়ে প্রিয়ার ২০১৫ সালের ৫ ফেব্র“য়ারি বিয়ে হয়। তাদের প্রেমজ সম্পর্ক ছিলো। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার উপর মানসিক নির্যাতন করতো। মাস ছয় আগে প্রিয়ার পরিবারের লোকজন বিষয়টি নিষ্পত্তির লক্ষ্যে রাকিবদের বাড়িতে যান। রাকিবের বাড়ির লোকজন তাদের অপমান করে প্রিয়াকে তাদের সঙ্গে পাঠিয়ে দেন। তখন থেকেই প্রিয়া বাবার বাড়ি অবস্থান করছিলেন।

তিনি অভিযোগ করেন, রোববার বিকেল তিনটার দিকে রাকিব মোবাইলে ফোন করেন প্রিয়াকে। ওইসময় তাকে তালাক দেয়া হয়েছে এবং তালাকনামা আজকালের মধ্যে তার হাতে পৌঁছবে জানালে প্রিয়া ভেঙে পড়েন। এরপরই বাড়ির সবার অগোচরে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে প্রিয়া আত্মহত্যা করে।
এ বিষয়ে জানতে এএসআই রাকিব হাসান ও তার বাবা আব্দুর রাজ্জাকের সেলফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তারা কল রিসিভ করেননি।

এদিকে সোমবার তালাকের কপি হাতে পান প্রিয়ার পরিবারের সদস্যরা। তালাকনামায় রাকিব জানান, মনের অমিল, বনিবনা না হওয়া, আমার অবাধ্য হওয়াসহ বিভিন্ন কারণ। গত ২ জানুয়ারি ঢাকার বিজয়নগর কাজী অফিস থেকে এ তালাকের নোটিস পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানার এসআই তরুণকুমার কর বলেন, ‘সুরতহাল রিপোর্ট তৈরিকালে জেনেছি, মেয়েটির সঙ্গে রাকিবের প্রেম সম্পর্কের একপর্যায়ে অভিভাবকদের মাধ্যমে বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই মেয়েটি পারিবারিক নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছেন। বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হলে এ বিষয়ে একটি তদন্ত হয়। যা মেয়েটির পক্ষে যায়নি। তারপর থেকেই প্রিয়া বাবার বাড়ি থাকতেন’।

রোববার দুপুরে রাকিব তাকে ফোন করে তালাকের বিষয়টি জানালে ক্ষোভে-অপমানে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। নিহতের পরিবার এজাহার দিলে ৩০৬ ধারায় মামলা রেকর্ড হবে’।

http://www.anandalokfoundation.com/