13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বৈঠকের নামে সমকামিতা | জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মী আটক

admin
November 2, 2017 3:41 am
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জামায়াত শিবিরের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড তাদের নৈতিক স্খলনের ইঙ্গিত দিচ্ছে। বিভিন্ন সময় শিবিরের মেসে কর্মীদের সাথে সিনিয়র সাথীদের সমকামিতার খবর পত্র পত্রিকায় আসে। সেই সাথে জামায়াতের ছাত্রী সংগঠন- ইসলামী ছাত্রী সংস্থার কর্মীদের পতিতাবৃত্তি এবং দলে পদ পাওয়ার জন্য জামায়াতের নেতাদের সাথে যৌনকর্ম করার সংবাদও সাম্প্রতিক সময়ে উঠে এসেছে।

এবার রাজশাহীতে নেতা-কর্মীদের মাসিক বৈঠক করার নাম দিয়ে সমকামিতায় লিপ্ত থাকা অবস্থায় জামায়াত-শিবিরের ১৮ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তাদের সাথে থাকা প্রচুর জিহাদি বইও উদ্ধার করা হয়। সোমবার (৩০ অক্টোবর) দুপুর আড়াইটার দিকে মহানগরীর রাজপাড়া থানার আলিগঞ্জ মাদ্রাসার একটি কক্ষ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- রাজশাহীর বাঘা উপজেলার হাফিজুর রহমানের ছেলে মাহাবুবুর রহমান (২৭) ও একই এলাকার মজিফুল ইসলামের ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (২৫), চাঁপাইনবাগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার এনামুল আহসানের ছেলে আবু সাদ (১৭) ও একই এলাকার আব্দুল কাদেরের ছেলে মতিউর রহমান (২১), মহানগরীর রাজপাড়া থানার বহরমপুর মহল্লার আ. খালেকের ছেলে শাহাদৎ (১৯) ও একই এলাকার মৃত শুক্কুর আলীর ছেলে রেজাউল করিম (৩৫), মহানগরীর বসুয়াপাড়া এলাকার ইসমাইল আলীর ছেলে তৌহিদুর রহমান (২০), রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার শফিউল ইসলামের ছেলে সোলায়মান (১৯)।

এছাড়া রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার সুলতান আহম্মেদের ছেলে সবুজ আহম্মেদ (২৩) ও একই এলাকার একই এলাকার মৃত বদিউল আলমের ছেলে শফিউল আলম (৬৭), চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রফিকুল ইসলামের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (২৩), রাজশাহীর পবা উপজেলার আনসার আলীর ছেলে আবদুল মমিন (২০) ও একই এলাকার মৃত আনোয়ার সাদেকের ছেলে কাছিমুল ইসলাম (৩১), চারঘাট উপজেলার শলুয়া গ্রামের দিন মোহাম্মদের ছেলে এস এম মোজাহিদ (২০), রাজপাড়া থানার হড়গ্রাম এলাকার হারুনুর রশিদের ছেলে শফিকুজ্জামান (২২), মহানগরীর শাহ মখদুম থানার বায়া এলাকার বাসিন্দা সাইদুর রহমানের ছেলে শাহাদৎ হোসাইন (২২) ও একই এলাকার আলিমুজ্জামানের ছেলে সাদেকুজ্জামান (১৯) এবং দাশপুকুর এলাকার মৃত এরফানুল হকের ছেলে আবদুল আওয়াল (৫০) ও একই এলাকার আজিজুল হাকিমের ছেলে মোস্তাকিম (২০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে আটককৃতরা দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন স্থানে বৈঠকের নামে আপত্তিকরভাবে মেলামেশা করছিলো। কিন্তু ভয়ংকর জামায়াত-শিবিরের রাজনৈতিক দলের কর্মী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে সাহস করে কেউ কিছু বলতে পারছিলো না। এর আগেও এদের কয়েকজন শিবির অধিকৃত কয়েকটি মেসে সমকামিতায় লিপ্ত থাকার অভিযোগে তিরষ্কৃত হয়েছিলো। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ফল ব্যবসায়ী জানান, শিবির কর্মী আবদুল মমিন এবং শফিকুজ্জামানকে একটি মেস থেকে বের করে দেয়া হয়েছিলো ইতিপূর্বে। দাশপুকুর এলাকার জামায়াত নেতা মাঝ বয়সী আবদুল আওয়ালের সাথে উক্ত মেসে সমকামিতায় লিপ্ত থাকা অবস্থায় ধরা পড়ার কারনে তাদেরকে মেস ছাড়তে হয়েছিলো।

রাজশাহীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, দুপুরে আমরা সমকামিদের গোপন বৈঠকের একটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহানগরীর আলিগঞ্জের মাদ্রাসাটিতে অভিযান পরিচালনা করি। ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা কয়েকজনকে আপত্তিকর অবস্থাতে পাই। পরিচয় যাচাই করতে গিয়ে বুঝতে পারি এরা জামায়াত-শিবিরের রাজশাহী অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার নেতা-কর্মী। মাসিক বৈঠকে মিলিত হওয়ার নাম করে অবৈধ মেলামেশা করছে। তল্লাশি চালিয়ে এ সময় জিহাদি বইসহ জামায়াত-শিবিরের ওই ১৮ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং জিহাদি কার্য্যক্রম পরিচালনার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান রাজপাড়া থানার এ পুলিশ কর্মকর্তা।

http://www.anandalokfoundation.com/