13yercelebration
ঢাকা
শিরোনাম

পাকিস্তানে অস্ত্র সরবরাহকারী চারটি প্রতিষ্ঠানকে নিষিদ্ধ করেছে আমেরিকা

আজ ২১ এপ্রিল রবিবার রাশিফল ও গ্রহদোষ দূর করার উপায়

আজ ২১ এপ্রিল (৮ বৈশাখ) রবিবারের দিনপঞ্জি ও ইতিহাসের এইদিনে

সন্ত্রাসী অপরাধে গ্রেপ্তারদেরও নিজেদের কর্মী দাবী করছে বিএনপি -পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মন্দিরে আগুন ও দুই সহোদর নিহতের ঘটনায় অপরাধী যেই হোক কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না -ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রী

শান্তিচুক্তির পর থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের সার্বিক উন্নয়নে অসামান্য পরিবর্তন ঘটেছে -জাতিসংঘে পার্বত্য সচিব

সাংবাদিকতার জন্য চমৎকার পরিবেশ তৈরি এবং তথ্য প্রবাহ অবারিত করতে চাই -তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রধানমন্ত্রীর নিজের এলাকা গোপালগঞ্জে মহিলা পুরোহিতকে হত্যা

Link Copied!

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মালিবাতা গ্রামের মালিবাতা বিশ্ববন্ধু সেবাশ্রমের পুরোহিত হাসিলতা বিশ্বাসকে (৭০) শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর লুট করা হয়েছে স্বর্ণালংকার ও মন্দিরের প্রণামী টাকা সহ যাবতীয় জিনিসপত্র। মহিলা পুরোহিতকে হত্যা

গত রোববার (৩ মার্চ) সকালে গোপালগঞ্জ সদর থানা পুলিশ, মন্দিরের ভিতর থেকে হাত-পা বাধা ও মুখে কাপড় ঢোকানো অবস্থায় হাসিলতার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত হাসিলতা একই উপজেলার নিজড়া গ্রামের দোয়ানীপাড়ার মৃত বিপিন বিশ্বাসের স্ত্রী।

মন্দিরের পূজারী চন্দ্রা রানী পাণ্ডে জানান, প্রতিদিনের মতো রোববার সকালে মন্দিরে প্রণাম করতে গিয়ে দেখতে পান মন্দিরের তালা ভাঙা। এ সময় হাসিলতাকে দেখতে না পেয়ে ডাকাডাকি করেন। সাড়া না পেয়ে এলাকার লোকজনকে ডেকে মন্দিরে ঢুকে হাত-পা বাধা ও মুখে কাপড় ঢোকানো অবস্থায় হাসিলতার লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। পরে মন্দিরের পূর্ব পাশে তার পায়ের স্যান্ডেল ও গলার তুলসী মালার ছেড়া অংশ দেখতে পান।

মালিবাতা বিশ্ববন্ধু সেবাশ্রমের সেক্রেটারি গৌতম পাণ্ডে জানান, প্রায় আড়াই বছর ধরে বিশ্ববন্ধু সেবাশ্রমের পুরোহিতের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন হাসিলতা। তিনি সেবাশ্রমের মন্দিরের উত্তর পাশের একটি কক্ষে একাই থাকতেন। শনিবার রাতের যে কোনো সময় সেবাশ্রমের মন্দিরের গেটের তালা ভেঙে দুর্বৃত্তরা ভিতরে ঢুকে হাসিলতাকে হত্যা করে মন্দিরের পূর্বপাশের বারান্দার মেঝেতে ফেলে রেখে যায়। মন্দিরের আলমারি ও প্রণামীর বক্স ভেঙে লুট করে নেওয়া হয় নিহত পুরোহিতের একটি সোনার চেইন, কানের দুল, প্রণামী বাক্সের নগদ টাকা ও মূল্যবান কাগজপত্র।

মন্দিরের সাবেক সেক্রেটারি উজ্জ্বল পাণ্ডে জানান, এলাকার কিছু বখাটে ও মাদকাসক্তরা এসে এই মন্দিরের পূজারী হাসিলতার সাথে অসদাচরণ করত। তারা মাঝে মধ্যে মন্দিরের আশেপাশে বসে মাদক সেবন ও হইহল্লা করত। পুরোহিত হাসিলতা অতিষ্ঠ হয়ে দু’মাস আগে আমাদের কাছে এ বিষয়টি জানান।

http://www.anandalokfoundation.com/