13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের ঘুষ দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় গুলিবিদ্ধ ৫

admin
October 20, 2016 7:55 am
Link Copied!

উত্তম কুমার পাল হিমেল,নবীগঞ্জ(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ  বাহুবলে পুলিশ ও স্কুল ছাত্রদের সংঘর্ষে ৫জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ৩০জন।

গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বাহুবল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সামছুন্নাহার পারভীনের ঘুষ-দুর্নীতির প্রতিবাদে কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ কর্মসুচিতে এ ঘটনা ঘটে। পুর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল দীননাথ ইনস্টিটিউশন মডেল হাইস্কুল ও ছদরুল হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবকরা। পরে আন্দোলনকারীরা মডেল থানার সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলে পুলিশ তাদের উপর লাঠিচার্জ করে। এ সময় ২ শিক্ষক ও ৩জন ছাত্রকে পুলিশ আটক করে মারধোর করা হয়। পরে ছাত্র-জনতা বিক্ষুব্ধ হয়ে থানা ঘেরাও করে ইটপাটকেল মারতে শুরু করলে পুলিশ গুলি চালায়। এতে ১৫জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ২ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ এবং অন্যান্যদের বাহুবল ও হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ ২ শিক্ষকসহ ৫ জনকে আটক করে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহি অফিসার সাইফুল ইসলাম, বাহুবল মডেল থানার এসআই কাজী জিয়া উদ্দিনসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করে। এ সময় ছাত্র-জনতা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ বাঁধলে থানায় ব্যাপক ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। পুলিশ পরিস্থিতিতি শান্ত করতে কাদানে গ্যাস, টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

এ ঘটনায় শিক্ষকসহ ১৫ শিক্ষার্থী গুলিবিদ্ধ হয় এবং কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়। গুলিবিদ্ধ রেজাউল (১৪) সোহান (১৬) পাবেল (১৮), কামরান (২০) ও আব্দুল মতিন (৪৪) কে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মাঝে অধিকাংশ আহতদেরকে সিলেটসহ বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। আটক দুই শিক্ষক হলেন ঃ দ্বীননাথ হাইস্কুলের সহকারি শিক্ষক অশোক দাস ও গোলাম মহিউদ্দিন, ছাত্র জাহাঙ্গীরসহ ৫ জন। খবর পেয়ে পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র ও সহকারী পুলিশ সুপার সুদিপ্ত রায় ঘটনাস্থলে পৌছে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেন। এবং আন্দোলনকারীদের সাথে আলোচনা করে আটক দুই শিক্ষকসহ ৫ জনকে ছেড়ে দেয়া হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

পুলিশ সুপার এ ঘটনার তদন্তে সহকারি পুলিশ সুপার সুদ্বিপ্ত রায়কে প্রদান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তিনি তাৎক্ষনিক দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে বাহুবল থানার এসআই দেলোয়ার হোসেনকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করেন। উল্লেখ্য, বাহুবল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সামছুন্নাহার পারভীনের ঘুষ-দুর্নীতির প্রতিবাদে সোচ্ছার হয়ে তার বেপরোয়া কর্মকান্ডের লাগাম টেনে ধরার দাবিতে বুধবার সকাল ১১টায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় ঘেরাও ও অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালণের ঘোষণা দেন উপজেলা সদরে অবস্থিত দীননাথ ইনস্টিটিউশন মডেল হাইস্কুলের ম্যানেজিং কমিটি, ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক ও স্থানীয় জনগণ। এ কর্মসূচি সফল করতে গত মঙ্গলবার দিনভর উপজেলা সদরে ব্যাপক প্রচারণাও চালানো হয়।

এ ব্যাপারে বাহুবল মডেল থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৯০রাউন্ড সর্টগানের গুলি ও ১৮ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এব্যাপারে সহকারি পুলিশ সুদিপ্ত রায় জানান, সংঘর্ষ চলাকালে শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার দায়ে এসআই দেলোয়ারকে ক্লোজ করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাটি তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

http://www.anandalokfoundation.com/