ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আমি হাটতে পারব তো….!

admin
October 6, 2015 5:56 pm
Link Copied!

শেখ মামুনুর রশিদ, রংপুর অফিস: মা আমি কি স্কুলের ফাইনাল পরীক্ষা দিতে পারব। আমার পা ঠিক হবে, হাঁটতে পারব তো? কবে ভাল হয়ে বাড়িতে ফিরতে পারব। ভোর বেলা কি আমি ব্যাম করতে পারবনা। এভাবেই আকুতভয় কন্ঠে কথা গুলো বলছিল শিশু সৌরভ।  ছেলের এই কথায় দু চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি মা সেলিনা বেগম। এসময় সৌরভকে দেখতে আসা তার গ্রামের মানুষ আড়ালে দুই চোখের পানি ফেলছিল।

মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জরী ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় এই দৃশ্য। সুন্দরগঞ্জের এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন এমপির পিস্তলের গুলিতে দুই পায়ে ক্ষত নিয়ে ব্যাথায় হাসপাতালের বেডে ছট ফট করছে শিশু সৌরভ। আর তাকে সান্তনা দিচ্ছেন তার বাবা, মা আর নার্সসহ এলাকার আত্মিয় স্বজনা। সৌরভ জানায় তার বামপায়ে ২ টি গুলি লাগার কারনে ব্যাথায় পা ভারি হয়ে গেছে, নড়াচড়াও করতে পারছে না,  তবে তার ডান পা একটু নড়াতে পারে সে। প্রতিদিন তাকে কোলে করে টয়লেটে নিয়ে যায় কখনও তার বাবা আবার কখনও তার মা । সেখানে কোন রকমে দাড়িয়ে পোছাব পায়খানা করে। হাসপাতালে ডাক্তারদের সেবা পেলেও বাহির থেকে প্রতিদিন ঔষধ কিনতে হচ্ছে তাকে।

সৌরভের বাবা সাজু মিয়া জানান, সুন্দরগঞ্জের বিভিন্ন গ্রামে হাড়ি পাতিল বিক্রি করে কোন রকমে তার সংসার চলত। ছেলের চিকিৎসার জন্য এপর্যন্ত ৩৫ হাজার টাকা বিভিন্ন জনের কাজ থেকে চড়া সুদে ধার নিয়েছে। ছেলের চিকিৎসার জন্য এখন পর্যন্ত তার খরচ হয়েছে ২৫ হাজার টাকা। এই টাকা কি ভাবে পরিষোধ করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার স্বপ্ন ছিল ২ ছেলেকে লেখাপড়া শিখিয়ে বড় করার। কিন্ত তার সে স্বপ্ন এমপির পিস্তলের গুলিতে চুড়মার হয়ে গেছে। সাজু মিয়া বলেন, রাতে ঘুমের মধ্যেও গুলি গুলি করে চিৎকার করেন সৌরভ। সে বলে এমপি আমাকে গুলি করছে। সৌরভরা ২ ভাই তার বড় ভাই শাহাদাত মিয়া গোপাল চরন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেণীতে পড়ে। সে হুড়াভায়া খাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্র। ছেলের চিকিৎসার ব্যয় বহনের জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন সাজু মিয়া । সৌরভকে দেখতে প্রতিদিনেই ভিড় বাড়ছে হাসপাতালে শিশু সার্জারী বিভাগে। সুন্দরগজ্ঞের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাকে দেখতে আসছে বিভিন্ন বয়সের মানুষ। সেখানকার মানুষের একটাই কথা তারা এই ঘটনার সুষ্ট তদন্ত করে এমপির বিরুদ্ধে  দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়েছেন। সৌরভের মা সেলিনা বেগম বলেন, হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সরা সৌরভের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখছেন। প্রতিদিন তার দুই পায়ে ড্রেসিং করে দিচ্ছে। এছাড়াও অন্যান্ন রোগীর স্বজনেরা তাকে সান্তনা দিচ্ছেন।

শিশু সার্জারী ওয়ার্ডে কর্মরত ডাক্তার মাহাফুজুল হক জানিয়েছে, গুলি বা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে যে স্থানে ক্ষত হয় সেখানে টিটেনাস হওয়ার ভয় থাকে। সেজন্য আমরা ক্ষত স্থান প্রতিদিন ড্রেসিং করে দিচ্ছি। আপাতত ভয়ের কিছু নেই, তবে সে আগের মত হাটতে পারবে কি না এটা নিশ্চিত নন তিনি। তবে তাকে বেশ কিছুদিন হাসপাতালে থাকতে হবে। এদিকে, শিশু সৌরভের পায়ে গুলি করে আহত করার ঘটনায় এমপি লিটনকে গ্রেফতারে ফুসে উঠেছে এলাকবাসি। প্রতিনিয়তই হচ্ছে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন। এছাড়াও তার এহেন কর্মকাণ্ডে ক্ষুদ্ধ নিজ দলের নেতা-কর্মীরা। তারও এমপি লিটনের দল থেকে বহিষ্কার ও সংসদ সদস্য পদ পাতিলের দাবি জানিয়েছেন।

http://www.anandalokfoundation.com/