13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালকের নদী ভাঙ্গন ও চরাঞ্চলের স্কুল পরিদর্শন

admin
August 21, 2016 4:14 pm
Link Copied!

মধুখালী প্রতিনিধিঃ ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার কামারখালী ইউনিয়নের নদী ভাঙ্গন ও চরাঞ্চলের গয়েশপুর- বকশিপুর উচ্চ বিদ্যালয় আজ ২১-০৮-২০১৬ইং তারিখ রোজ রবিবার সকালে মধুমতি ও গড়াই নদী ট্রলারে পাড়ি দিয়ে পরিদর্শন করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সহকারী পরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান।

সঙ্গে ছিলেন ফরিদপুর জেলার শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মুঃ মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, মধুখালী শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আমিরুল ইসলাম (অতিঃ দায়িত্ব) আরো সংগে ছিলেন কামারখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ জাহিদুর রহমান বিশ্বাস (বাবু) মোঃ মিজানুর রহমান (বাবলু) প্রমুখ।

সহকারী পরিচালক গয়েশপুর-বকশিপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শন কালে স্কুলে এক গোল টেবিলে আলোচনা সভার আয়োজন করেন। আলোচনা সভায়  স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রী মনোরঞ্জন বিশ্বাস বলেন তার স্কুল ১৯৭৩ সনে প্রতিষ্ঠিত। নদী ভাঙ্গন এলাকার স্কুল। স্কুলে নানাবিধ সমস্যা যেমন নদী ভাঙ্গন ও পানি বৃদ্ধির কারনে ২ থেকে ৩ মাস ছাত্র- ছাত্রী স্কুলে আসতে পারেনা  যাতায়াত ব্যবস্থা খারাপ। বিদ্যুত ব্যবস্থ নাই।  স্কুলটি  অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত এমপিও ভুক্ত কিন্তু এই স্কুলে ছাত্র-ছাত্রী ১০ম শ্রেণী  পর্যন্ত অধ্যায়ন ও এস.এস.সি পরিক্ষা অংশগ্রহন করেন। এই স্কুলে শিক্ষককের সংখ্যা ৮ জন। এর মধ্যে একজন লাইব্রেরিয়ান এবং একজন সহকারী শিক্ষকের এমপিও ভুক্ত এবং বেতন হয় নি। এই স্কুলে উপযুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থাপনা না থাকায় জে.এস.সি পরিক্ষার পর ভালো ছাত্র- ছাত্রী এই স্কুলে থাকেনা।

মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার  স্কুলের সার্বিক উন্নয়নের জন্য সহকারী শিক্ষা পরিচালকের নিকট সর্বোচ্ছ বরাদ্দ দাবি জানান। স্কুলের সভাপতি মোঃ জাহিদুর রহমান বিশ্বাস (বাবু) বলেন আমার আব্বা মরহুম আঃ কুদ্দস বিশ্বাস এই স্কুলের সভাপতি ছিলেন। আমি তার ছেলে মোঃ জাহিদুর রহমান বিশ্বাস (বাবু) এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং এই স্কুলের বর্তমান সভাপতি সেই হিসাবে আমি উর্ধ্বতন কর্ত পক্ষের নিকট স্কুলের উত্তারাত্তর উন্নয়ন দাবি করেন। সবশেষে সহকারি শিক্ষা পরিচালক বলেন নদী ভাঙ্গন ও চরাঞ্চলের স্কুলের জন্য যাযা করনীয় আমি আপ্রাণ চেষ্টা করবো। তাছাড়া স্কুলে ছাত্র- ছাত্রীদের জন্য দুপুরে টিফিনের ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বাস দেন সব শেষে সকল শিক্ষকের সাথে আলাপ আলোচনা করে সভা শেষ করেন।

http://www.anandalokfoundation.com/