ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপির তিন গুণ বেশি আয় আ.লীগের

admin
September 1, 2015 8:23 am
Link Copied!

নির্বাচন কমিশনে (ইসি) ২০১৪ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। দুই দলের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, বিএনপির চেয়ে আওয়ামী লীগের আয় প্রায় তিন গুণ  বেশি লক্ষ্য করা  গেছে।

রাজনৈতিক দল হিসেবে ২০১৪ সালের পঞ্জিকা বছরে আওয়ামী লীগের আয় ছিল ৯  কোটি ৫ লাখ ৩৫ হাজার ৬৪৩ টাকা। দলটির ব্যয় ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৪০ হাজার ৮২১ টাকা। দলটি আয়-ব্যয়ের হিসাব পর্যালোচনো করে দেখা যায় ব্যয়ের থেকে আয় আড়াই গুণ  বেশি।যদিও তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৩ সালে আওয়ামী লীগের আয় ছিল ১২  কোটি ৪০ লাখ টাকা এবং ব্যয় হয় ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা।সোমবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. সিরাজুল ইসলামের কাছে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আব্দুস  সোবহান গোলাপ দলটির আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপ-সম্পাদক এবিএম রিয়াজুল কবির কাওসার, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুদ্দিন খালেদ।গত ২৪ আগস্ট বিগত বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব দাখিল করে বিএনপি। এতে দলটি বিভিন্ন খাতে দুই কোটি ৮৭ লাখ ৪৮ হাজার ৫৭৪ টাকা আয়  দেখিয়েছে। আর ব্যয়  দেখিয়েছে তিন কোটি ৫৩ লাখ তিন হাজার টাকা। এতে আয়ের  চেয়ে ৬৫ লাখ ৫৪ হাজার ৪২৬ টাকা বেশি ব্যয় হয়েছে দলটির।আর  সোমবার (৩১ আগস্ট) হিসাব জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলটি বিগত বছরে আয়  দেখিয়েছে ৯  কোটি ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪৩ টাকা। আর ব্যয়  দেখিয়েছে ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৪০ হাজার ৮২১ টাকা।

এই বড় দুই দলের হিসাব পর্যালোচনায়  দেখা যাচ্ছে, ২০১৪ সালে বিএনপির  চেয়ে তিন গুণ বেশি আয় করেছে আওয়ামী লীগ। তবে ব্যয় বেশি করেছে বিএনপি।ইসি থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩ সালের  চেয়ে এবার আওয়ামী লীগের আয়-ব্যয় দু’টিই কম।  সে সময় দলটি আয় দেখিয়েছিলো ১২  কোটি ৪০ লাখ টাকা এবং ব্যয়  দেখিয়েছিলো ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা।তবে ২০১৩ সালের চেয়ে বিএনপির আয়-ব্যয় এবার দু’টিই  বেড়েছে। সে সময় দলটি ৭৬ লাখ ৫ হাজার ৭৬২ টাকা আয়ের বিপরীতে ২ কোটি ২৭ লাখ ২৫ হাজার ৩২৬ টাকা ব্যয় দেখিয়েছিলো।আইন অনুযায়ী, প্রতিবছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে দলগুলোকে আগের পঞ্জিকা বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হয়। বর্তমানে ইসিতে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৪০টি। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ ৯টি দল সময় বাড়ানোর আবেদন করলে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময় বাড়ায় নির্বাচন কমিশন। এছাড়া, পরপর তিন বছর কোনো দল হিসাব না দিলে সে দলের নিবন্ধন বাতিলেরও বিধান রয়েছে আইনে।হিসাব জমা দিয়ে  আব্দুস  সোবহান  গোলাপ বলেন, দলের আয় বরাবরের মতোই রয়েছে। তবে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের কারণে আওয়ামী লীগ আনুষ্ঠানিকভাবে অনেক কর্মসূচি নিতে পারেনি। অন্তত ৯২ দিন নাশকতার সময় আমাদের প্রচারণা অনুষ্ঠান না থাকায় ব্যয়ও কম হয়েছে।

তবে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতায় ক্ষতিগ্রস্তদের মানবিক ও আর্থিক সহযোগিতা দলের পক্ষ থেকেও করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।দলের আয়-ব্যয় প্রসঙ্গে আব্দুস সোবহান বলেন, আমাদের এ আয় হয়েছে প্রাথমিক সদস্যদের চাঁদা, এমপিদের চাঁদা,  কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যের চাঁদা ও বিভিন্ন প্রকাশনা বিক্রি  থেকে। আর ব্যয় হয়েছে সভা-সেমিনার আয়োজন, সারাদেশের পার্টি অফিসের পরিসেবা, বিল, অফিসের কর্মচারীদের বেতন এবং অঙ্গ-সংগঠনের পেছনে খরচসহ বিভিন্ন খাতে।

এদিকে ২০১৪ সালে দলের আর্থিক আয়-ব্যয়ের লেনদেন জমা দেয়ার নির্ধারিত সময় শেষ হয়েছে ৩১ জুলাই। আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ ১০টি দলের আবেদনের পরি প্রেক্ষিতে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত অডিট রিপোর্ট জমা দেয়ার সময় বাড়ায় ইসি। তাই আজ  শেষ দিনে আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিল আওয়ামী লীগ।

http://www.anandalokfoundation.com/