13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বঙ্গবন্ধুকে ফেসবুকে শ্রদ্ধা জানানোয় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা বহিষ্কার

admin
August 18, 2017 5:30 pm
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সরদার আমিরুল ইসলাম সাগরকে বহিষ্কার করা হয়েছে। পাশাপাশি সংগঠন থেকে বহিষ্কৃত হওয়ায় তার সঙ্গে ছাত্রদলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কোন প্রকার সাংগঠনিক যোগাযোগ না রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক মো. আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির মুক্তিযুদ্ধ ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদকের বহিষ্কারের ব্যাপারে দলটির দফতর সম্পাদক বলেন, ‘ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক মো. আকরামুল হাসান এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

ছাত্রদলের কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১৫ আগস্ট মঙ্গরবার ছাত্রদলের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম সাগর বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। তিনি লিখেছিলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম সেনানী শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি।

এই স্ট্যাটাসের পর তার ফেসবুকের ওয়ালে ছাত্রদলের অনেক নেতাকর্মীর সমালোচনামূলক কমেন্টস পড়ে। একদিন পর ১৬ আগস্ট বুধবার সাগরকে ফোন করে স্ট্যাটাসটি সরিয়ে দিতে বলেন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। পরে স্ট্যাটাসটি নিজের ওয়াল থেকে সরিয়ে নেন আমিরুল ইসলাম সাগর। আমিরুল ইসলাম সাগর ছাত্রদলের প্রথম মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক।

তিনি বলেন, ছাত্রদলের আমিই একমাত্র ব্যক্তি যে ১৫ আগস্ট দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্মদিনের কেক কেটেছি এবং এক হাজার ছেলেকে ছাত্রদলের সদস্য করি।

১৫ আগস্ট মঙ্গলবার দেওয়া স্ট্যাটাসের কারণে সংগঠনে ও ফেসবুকে দলীয় নেতাকর্মীদের সমালোচনার মুখে পড়লে, ১৬ আগস্ট বুধবার আরও একটি স্ট্যাটাস দেন আমিরুল ইসলাম সাগর। তিনি লেখেন, ভোটের হিসাব বাদ দিলেও, যে সভ্য আচরণের উপর ভিত্তি করে বিএনপি দাঁড়িয়ে আছে তার নিরিখেও সবাইকে যার যার প্রাপ্য সম্মান দেওয়া অতি জরুরি।

জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া এমনকি তারেক রহমান কখনও এই সভ্য আচরণের বিচ্যুতি ঘটান নাই। আমাদেরও সেই পথ অনুসরণ করা উচিত। কোন স্বৈরাচার বা স্বৈরাচারী সরকারকে ছাড় নয়, তবে কোন ব্যক্তি বিদ্বেষ নয়। ১৫ আগস্ট মঙ্গলবার দেওয়া স্ট্যাটাসটি সরিয়ে দিয়ে, সেই স্ট্যাটাসের ব্যাখ্যা দিয়ে আমিরুল ইসলাম সাগর আরো লিখেছেন, ১৫ আগস্ট মঙ্গলবার শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যবার্ষিকী নিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছিলাম। আমি মনে করি এটাই আমার শিষ্টাচার, এটাই আমার রাজনৈতিক সৌজন্যবোধ। তবে এই পোস্টে সারা দেশে আমার অসংখ্য জাতীয়তাবাদী ভাই-বন্ধু-সহকর্মী-সহযোগী-শুভাকাঙ্খী আহত হয়েছেন। তারা আমাকে পোস্টটি সরিয়ে নিতে অনুরোধ করেছেন। তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে পোষ্টটি সরিয়ে নিলাম। মানুষের ভালবাসার জন্যই রাজনীতি, মানুষের ভালবাসাই আমার পাথেয়।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্ট্যাটাস দেওয়ার বিষয়টি দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কিনা, এ বিষয়ে ছাত্রদলের প্রথম সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, সংগঠন যেটা গ্রহণ করে না, পদধারী হিসেবে আমার গ্রহণ করা ঠিক না। আর স্ট্যাটাস দেওয়ার কারণেই যে বহিষ্কার করা হয়েছে, সেটিও তো বিবৃতিতে বলা হয়নি। ফলে আমি সুনির্দিষ্টভাবে ঠিক বলতে পারছি না, কেন বহিষ্কার করা হল আমিরুল ইসলাম সাগরকে।

http://www.anandalokfoundation.com/