13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে যশোর-১ (শার্শা) আসনে আবারও নৌকা প্রতীক

Link Copied!

এবারের সংসদ নির্বাচনে যশোর-১ (শার্শা) আসনে আবারও আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে অবস্থান করছেন।
শনিবার দিনভর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন’ শার্শা উপজেলার বেনাপোল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীর বিশাল বহর নিয়ে গণসংযোগ ও পথসভা করেন।
উপজেলার প্রতিটি প্রান্তের ভোটাররা বলেছেন, এবারের নির্বাচনে তিনি আবারও বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন। এবারের নির্বাচনে এ আসনের প্রতিটি প্রান্তে উড়ছে নৌকা প্রতীকের জয়ের নিশান। ছোট ছোট ছেলেমেয়ে থেকে শুরু করে এলাকার নারী-পুরুষ ও প্রবীনদের মুখে একই কথা’ নৌকা মার্কা বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবে।
নৌকা প্রতীকের এ প্রচারণায় অনুষ্ঠিত প্রতিটি ওয়ার্ডের পথসভায় দলে দলে নারী-পুরুষ, শিশু ও প্রবীনরা ছুটে আসেন বারবার নির্বাচিত জনপ্রিয় এমপি শেখ আফিল উদ্দিনকে দেখার জন্য। প্রবীনরা মাথায় হাত রেখে দোয়া করেন। সেসাথে স্থানীয় নারী-পুরুষ, শিশুরা সদালাপী, মিষ্টভাষী শেখ আফিল উদ্দিনকে পেয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা, নৌকা প্রতীক উপহার ও ফুলের মালা পরিয়ে টানা ১৫ বছরের উন্নয়নের কথা জানান দেন। বলেন, এ আসনের বারবার নির্বাচিত এমপি শেখ আফিল উদ্দিনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা, অক্লান্ত পরিশ্রম আর সততার গুণে এখন আর গ্রামের মানুষকে বর্ষার মওসুমে হাটু সমান কাঁদা আর শুকনোর সময় ধূলো পাড়ি দিয়ে কর্মে বের হতে হয়না।
শেখ আফিল উদ্দিনের অবদানে শহরের সাথে তালমিলিয়ে এলাকার সকল রাস্তাঘাট পাকা হয়েছে। গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুতের আলো জ্বলছে। ইন্টারনেট সেবা প্রতিটি মানুষের দোরগোড়ায়। আওয়ামীলীগ সরকারের দীর্ঘ সময়ে গ্রামের মানুষের সাথে দেশের সকল প্রান্তের যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে তা এলাকাবাসী মনে রেখেছে। এজন্য, আগামী ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা’ গণমানুষের ভোটে কানায় কানায় উপচে পড়বে।
বেনাপোল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে একের পর এক অনুষ্ঠিত এসকল পথসভায় শেখ আফিল উদ্দিন’ এলাকাবাসীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। বলেন, কোন কানকথায় কান না দিয়ে একটানা ৩ বার আপনারা আমাকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে পরপর ৫ বার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দিয়ে আপনাদের কাছে পাঠিয়েছে নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য। আপনারা যেমন আমাকে বিশ্বাস করে নিজেদের সন্তান স্নেহে ভোট দিয়েছেন তদ্রুপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বারবার আমার পরীক্ষা নিয়ে নৌকা পাঠিয়েছে আপনাদের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য। আমি আমার সততা, কর্মনিষ্ঠতা, সদালাপ, মিষ্টভাষা ও আওয়ামীলীগের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ডকে সঠিকভাবে প্রয়োগ করে আপনাদের সকল পরীক্ষায় উত্তীর্ণসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থা অর্জণ করেছি। এখন আর আমাকে পরীক্ষা করার মতো আর কিছু নেই। সেখানে একশ্রেণীর মানুষ গুজব রটিয়ে বেড়াচ্ছে। তারা বলছে, স্বতন্ত্র প্রার্থীও আওয়ামীলীগের। আসলে কি তাই! বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মার্কা’ নৌকা। বাংলাদেশ উন্নয়নের কারিগর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মার্কা’ নৌকা। বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেলের প্রতীক’ আওয়ামীলীগের নৌকা।
এসকল গণসংযোগ ও পথসভায় শেখ আফিল উদ্দিন আরও বলেন, আজ আমার সাথে যারা বেনাপোল পৌরসভা এলাকায় অবস্থান করছে তারমধ্যে এখানে উপস্থিত রয়েছেন শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান তথা বাংলাদেশ স্বাধীনতার নায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, যশোর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সালেহ আহমেদ মিন্টু, বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, প্যানেল মেয়র মোছা: কামরুন্নাহার আন্না, প্যানেল মেয়র-২, আলহাজ্ব মজনুর রহমান নুপুর, প্যানেল মেয়র-৩, শরিফুল ইসলাম শরীফসহ সকল কাউন্সিলর। এসাথে উপস্থিত রয়েছেন, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, সাধারণ সম্পাদক তথা মেয়র নাসির উদ্দিন, বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা অলোক সরদার, অধ্যক্ষ ইব্রাহীম খলিলসহ উপজেলার সকল প্রান্তের আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী। সবমিলিয়ে, আপনার চাওয়া পাওয়ার জায়গা’ প্রত্যেকে আমার নির্বাচনী প্রচারণার সফরে সাথে আছে। যেকারণে অতিদ্রুত আপনাদের চাহিত নাগরিক সুবিধা ভোগ করতে পারছেন এবং ভবিষ্যতে আরও উন্নয়ন করা হবে। একই সাথে এবারের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকে আবারও আমি এমপি নির্বাচিত হতে পারলে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হতে পারলে বেনাপোল পৌরসভাকে উন্নয়নে-উন্নয়নে ফুলের বাগানে সাজিয়ে গড়বো।
এদিনের নৌকা প্রতীকের গণসংযোগ ও পথসভাটি বেনাপোল পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড বড় আঁচড়া গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। এপথসভার সভাপতিত্ব করেন উক্ত ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হামিদ। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল সর্দার। এখান থেকে ১নং ওয়ার্ড সাদিপুর গ্রামের আমির ভান্ডারির মাজার প্রাঙ্গণে গণসংযোগ ও পথসভা করেন শেখ আফিল উদ্দিন। সাদিপুর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ বাবুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় শেখ আফিল উদ্দিন নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করেন।
পরে, বেনাপোল পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড নামাজ গ্রাম মাঝেরপাড়া মসজিদ প্রাঙ্গণে পথসভা করেন তিনি। বিশাল মানুষের ঢলে অনুষ্ঠিত পথসভায় নৌকায় ভোট প্রার্থনা করেন শেখ আফিল উদ্দিন।
এরপর, ৭নং ওয়ার্ড গাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত পথসভায় নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা ও বক্তব্য শেষে ৮নং ওয়ার্ড ছোটআঁচড়া গ্রামের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও মসজিদ প্রাঙ্গণে পথসভা করেন তিনি। এসময় আবেগাপ্লুত অসংখ্য নারী-পুরুষ, জনতা শেখ আফিল উদ্দিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা, মালা পরিয়ে ভালবাসার প্রতিফলন ও নৌকা প্রতীক উপহার দিয়ে বিজয়ের নিশানের কথা জানান দেন।
পরে, ৬ নং ওয়ার্ড ভবারবেড় গ্রামের পূর্বপাড়া মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত পথসভায় বক্তব্য প্রদাণ করেন তিনি। অসংখ্য মানুষের ভালবাসায় সিক্ত শেখ আফিল আফিল উদ্দিন, নৌকা প্রতীকে আবার ভোট প্রার্থনা করেন। এখান থেকে তিনি বিরতিহীনভাবে ৩নং ওয়ার্ড বেনাপোল মহিলা মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে হৃদয় নিংরানো ভালবাসার কথা জানান। বলেন, তার এমপি জীবনের প্রথমে তিনি এখানের অবহেলিত মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে পাকা রাস্তা করে দিয়েছিলেন। যে সড়কটির নাম করণ হয়েছিলো আফিল সড়ক। যা পরে, এ পৌরসভার সূচতূর সাবেক মেয়রের অযতœ অবহেলায় নষ্ট হয়েগেছে। এবারের নির্বাচনে তিনি এমপি নির্বাচিত হলে বেনাপোল ওয়ার্ডটি আলোকিত করে সাজিয়ে দেওয়া হবে।
দিবসের শেষ প্রান্তে তিনি ৪ নং তালশারী-দিঘীরপাড় ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও পথসভায় নৌকায় ভোট প্রার্থনা এবং বক্তব্য শেষে ৫ নং কাগজপুকর ওয়ার্ডে পথসভা করেন। বিশাল মানুষের ঢলে অনুষ্ঠিত এপথসভায় তিনি নৌকায় ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করার আহবান জানান।
দিনব্যাপী শেখ আফিল উদ্দিনের নৌকা প্রতীকের গণসংযোগ ও পথসভায় ছিলো উপচে পড়া ভীড়। চারিদিকে ছিলো নৌকা মার্কার গণজোয়ার।
এসময় সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিনের নির্বাচনী সফরসঙ্গী ছিলেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, যশোর জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ উদ-দৌলা অলোক, দৈনিক স্পন্দন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক মাহাবুব আলম লাবলু, শার্শা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর হোসেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও যশোর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সালেহ আহমেদ মিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, কোষাধক্ষ ওয়াহিদুজ্জামান ওহিদ, শার্শা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান, শার্শা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির উদ্দিন আহমেদ তোতা, বাগআঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক, শার্শা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বৈদ্যনাথ দাস, যুবলীগের সভাপতি অহিদুজ্জামান অহিদ, সাধারন সম্পাদক সোহরাব হোসেন, যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, বেনাপোল পৌরসভার কাউন্সির শাহিনুর রহমান শাহীন, আজিম উদ্দিন গাজী, হাসানুজ্জামান তাজিন, আসাদুজ্জামান আসাদসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।
http://www.anandalokfoundation.com/