13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সারা দেশে হিন্দু বাড়িঘর দখল ও মঠ মন্দিরে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে হিন্দু মহাজোটের মানব বন্ধন

admin
June 10, 2016 12:44 pm
Link Copied!

আজ ১০ জুন শুক্রবার সকাল ১০.৩০ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সম্মূখে পাবনা হেমাইতপুর শ্রী শ্রী অনুকুল ঠাকুর সৎ সংঘ আশ্রমের সেবাইত নিত্য রঞ্জন পান্ডে, ঝিনাইদহের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুলী ও গোপালগঞ্জের সাধু পরমানন্দ রায়ের হত্যাকান্ড, সারা দেশে হিন্দু বাড়ীঘর, মঠ মন্দিরে হামলা, জমি দখলের প্রতিবাদে ও খুনি, দুষ্কৃতকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে হিন্দু মহাজোট এক মানব বন্ধনের আয়োজন করে।

মানব বন্ধন শেষে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জয়ন্ত কুমার সেন এর সভাপতিত্বে এক পথ সভায় বক্তব্য রাখেন সংখ্যালঘু কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস.এন. গোস্বামী, হিন্দু মহাজোটের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডঃ দীনবন্ধু রায় প্রেসিডিয়াম মেম্বার কালীপদ মজুমদার, সিনিয়র সহ সভাপতি ডঃ সোনালী দাস, ডাঃ এম.কে রায়, জগদীশ চন্দ্র রায়, সুশিল চন্দ্র পাইক, চিন্ময় মজুমদার, অ্যাডঃ বি.বি গোস্বামী, অ্যাডঃ গৌরাঙ্গ মন্ডল, যোগেশ চন্দ্র রায়, শ্যামল কুমার দাস, ফনি ভূষন মিত্র, প্রধান সমন্বয়কারী বিজয় কৃষ্ণ ভট্টাচার্য, মহাসচিব অ্যাডঃ গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব উত্তম দাস, সোমেন সাহা, দীপেন মিত্র, লায়ন বিমল কৃষ্ণ শীল, এ্যাডভোকেট প্রতীভা বাগচী, আর্ন্তজাতিক সম্পাদক রিপন দে, হিন্দু সাংস্কৃতিক মহাজোটের সভাপতি সাধন লাল দেবনাথ, সাংগঠণিক সম্পাদক কপিল কৃষ্ণ মন্ডল, লিটন নন্দী, হিন্দু যুব মহাজোট এর সভাপতি সুমন কুমার রায়, নির্বাহী সভাপতি দেবাশীষ সাহা, সিনিয়র সহ সভাপতি কিশোর বর্মন, সাধারণ সম্পাদক মিল্টন বসু, সুশান্ত বৈদ্য, শ্যামল মজুমদার, সজিব মৃধা, হিন্দু ছাত্র মহাজোটের সাংগঠণিক সম্পাদক সাজেন বল, প্রশান্ত হালদার, হরেকৃষ্ণ বাড়–রী, জীবন ধ্র“ব বারুরী প্রমূখ।

বক্তাগণ বলেন সম্প্রতি ঝিনাইদহের পুরোহিত আনন্দ গোপাল গাঙ্গুল কে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। এর আগেও নেত্রকোনার অর্জুন বিশ্বাস, গোবিন্দগঞ্জের তরুন দত্ত ও দেবেশ প্রামাণিক, পঞ্জগড়ের যজ্ঞেশ্বর দাসাধিকারী, গোপালগঞ্জের সাধু পরমানন্দ রায়কে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু খুনিচক্র চিহ্নিত না হওয়ায় একের পর এক হত্যাকান্ড হয়েই চলেছে। দেশ খুনি চক্রের অভায়ারণ্যে পরিনত হয়েছে। আজ সবাই গলাকাটা আতঙ্কে আতঙ্কিত। বক্তাগণ আরও বলেন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলাকালে ও নির্বাচন উত্তর দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্যপকভাবে হিন্দু সম্প্রদায় নির্যাতিত হয়েছে; যা অতীতের সকল রেকর্ডকে ম্লান করেছে। নির্যাতন নিপিড়নে বাংলাদেশ থেকে হিন্দু আজ বিলুপ্ত প্রায়। প্রতিদিনই বাংলাদেশের কোন না কোন স্থানে হিন্দু বাড়ীঘর জমি জমা দখল, ভয় ভীতি প্রদর্শন করে দেশত্যাগে বাধ্যকরণ, হত্যা, হত্যা প্রচেষ্টা, ধর্মান্তরকরণ, মঠ মন্দির প্রতিমা ভাংচুর ও কিশোরী অপহরণ চলছে। বরাবরের মত সরকার অপরাধীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার করতে ও শাস্তি বিধান করতে ব্যর্থ হয়েছে।

বক্তাগণ বলেন সরকার ও বিরোধী দল হিন্দু সম্প্রদায়ের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় কোন কার্যকর ভূমিকা রাখেন নাই। সেকারনে এদেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার জন্য এবং এদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য এবং সকল ক্ষেত্রে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ৬০টি সংরক্ষিত আসন ও পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থা পূণঃ প্রতিষ্ঠা এবং সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠার দাবী জানান।

বক্তাগণ আরও বলেন প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেফতার ও খুনি চক্রের মুলোৎপাটন করতে হবে। তা না হলে দেশের কারোরই জীবনের নিরাপত্তা থাকবে না। বক্তাগণ আগামী ৭ দিনের মধ্যে অপরাধীদের গ্রেফতার করে দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে বিচার, সকল মঠ মন্দিরে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দু সম্প্রদায়কে ক্ষতিপুরণ দেওয়ার দাবী জানান; অন্যথায় হিন্দু মহাজোট সারা দেশে গণ আন্দোলন গড়ে তুলবে।

http://www.anandalokfoundation.com/