13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রিভিউ পিটিশন খতিয়ে দেখা হবে

admin
September 19, 2017 9:01 am
Link Copied!

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ‘সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেওয়া আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় সংসদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওই রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন পেলেই তা বিশেষভাবে খতিয়ে দেখা হবে। জাতির বৃহত্তর স্বার্থে সবকিছু করা হবে।

কারণ, আমরা কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নই। সব নাগরিকের আইনগত অধিকার সুরক্ষার মধ্য দিয়েই গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান সুসংহত হয়। ’ এ অভিমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা। অসুস্থ কন্যাকে দেখার জন্য কানাডায় অবস্থানকালে শুক্রবার টরেন্টো এয়ারপোর্টে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সঙ্গে আলাপকালে প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, ‘পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির জনককে সপরিবারে হত্যার পর থেকেই বাংলাদেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছিল। মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত স্বাধীনতা সুসংহত করতে বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে অনেক অগ্রসর সাধিত হয়েছে। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে আরও মজবুত করতে সবাইকে আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। ’ খবর এনআরবি নিউজের।

নিউইয়র্ক থেকে টরেন্টোয় গিয়ে সাক্ষাৎকারীদের অন্যতম যুক্তরাষ্ট্রস্থ বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি নব্যেন্দু বিকাশ দত্ত এই সংবাদদাতাকে রবিবার রাতে এসব তথ্য জানান। নব্যেন্দু দত্ত উল্লেখ করেন, ‘প্রধান বিচারপতি আমার শৈশব-কৈশোরের বন্ধু। একই এলাকার মানুষ বিধায় তিনি যখনই যুক্তরাষ্ট্র কিংবা কানাডায় আসেন তখনই তার সান্নিধ্য পাই। এবারও তেমনিভাবে তার সঙ্গে অত্যন্ত হৃদ্যতাপূর্ণভাবে নানা বিষয়ে কথা হয়েছে। এস কে সিনহা আইনের শাসনের অগ্রগতিতে বর্তমান সরকারের সহায়তার কথা উল্লেখ করেছেন। বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীন এবং সবকিছু চলছে বিদ্যমান আইন অনুযায়ী। ’ প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করা অন্য ঘনিষ্ঠজন হলেন যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিতাংশু গুহ। এ বিষয়ে শিতাংশু গুহ বলেন, ‘উনি আমার দাদা, বড় ভাই। পারিবারিকভাবে আমরা সম্পর্কযুক্ত। কানাডায় অসুস্থ মেয়েকে দেখতে আসছেন জেনে আমরাও তার সঙ্গে দেখা করতে যাই। ’

সিনহার সঙ্গে কী কথা হয়েছে— জানতে চাইলে শিতাংশু গুহ বলেন, ‘আমরা সাধারণ মানুষ, আমাদের কথাবার্তাও সাধারণ। তবে আমরা চাই আমাদের দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ভালো থাকুক, এগিয়ে যাক। ’ এস কে সিনহা রবিবার অপরাহ্নে জাপানের উদ্দেশে টরেন্টো ত্যাগ করেছেন বলে সেখানকার কমিউনিটি লিডার অরুণ দত্ত জানান। এর আগের দিন টরেন্টোর বাংলাদেশ কানাডা হিন্দু কালচারাল সোসাইটি ও হিন্দু মন্দির পরিদর্শন শেষে মন্দিরের কর্মকর্তা ও ভক্তদের উদ্দেশে বক্তৃতা করেন এস কে সিনহা। এ সময় তিনি বলেন, ‘নিজেকে সবাই নেতা মনে করে। আমরা কাউকে মানি না। এটা আমাদের খেয়ে ফেলবে। ’ প্রধান বিচারপতি ম্যানিটোবায় (টরেন্টো থেকে ১ হাজার মাইল দূর) মেয়ের সঙ্গে কয়েক দিন কাটিয়ে জাপান যাওয়ার পথে টরেন্টোয় যাত্রাবিরতি করেন। তিনি বিভিন্ন ধর্মানুসারীদের নানা ভাগে বিভক্তির কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘ধর্মচর্চার ক্ষেত্রে ভিন্নতা থাকলেও নিজ নিজ ধর্মের প্রশ্নে তারা ঐক্যবদ্ধ। ইসলামের অনুসারীরা নানা ভাগে বিভক্ত, কিন্তু “উম্মাহ”র প্রশ্নে তারা এক। পৃথিবীর এক প্রান্তে তাদের ওপর আঘাত এলে অন্য প্রান্তে প্রতিক্রিয়া হয়। ইহুদি ধর্মের অনুসারীদের মধ্যেও এ ঐক্য আছে। ’ তিনি বলেন, ‘হিন্দু ধর্ম হচ্ছে সনাতন ধর্ম। এ ধর্ম একসময় অত্যন্ত প্রতাপশালী ছিল। কিন্তু নিজেদের মধ্যে ঐক্যহীনতার কারণে ধীরে ধীরে এই ধর্মানুসারীরা প্রতাপ হারিয়েছেন। ’

http://www.anandalokfoundation.com/