13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

রাত পোহালেই ভোট, ভোট গ্রহনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন, কেন্দ্র যাচ্ছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

Link Copied!

রাত পোহালেই ভোট। আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য উদ্গ্রীব হয়ে আছে। নির্বাচন কমিশনও দ্বাদশ জাতীয় সংসদের ভোট গ্রহনের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। ব্যালট পেপারে আনুষ্ঠানিকভাবে ভোট গ্রহনের এখন কয়েক প্রহর অপেক্ষা মাত্র।

গৌরনদী-আগেলঝাড়া উপজেলা নিয়ে গঠিত বরিশাল-১ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৩জন। এরমধ্যে আগৈলঝাড়ায় উপজেলায় ১.৩১.৮৫২জন এবং গৌরনদী উপজেলায় ১.৭২.৪৫১জন ভোটার রয়েছেন।

এই আসনে প্রার্থী রয়েছেন তিন জন। তারা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, জাতির পিতার ভাগ্নে আলহাজ¦ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি। জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী এ্যাাডভোকেট ছেরনিয়াবাত সেকেন্দার আলী ও এনপিপি মনোনীত প্রার্থী মো. তুহিন। তবে অ-প্রতিদ্বন্দি রয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনী প্রার্থী আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি। জানা গেছে, অন্য দুই দলের প্রার্থীরা ভোট কেন্দ্রগুলোতে তাদের নির্বাচনী এজেন্ট সংকটে রয়েছেন। নৌকার প্রার্থীর সাথে প্রতিদ্বন্দি দুই প্রার্থীর ভোট ব্যবধান হবে আকাশ পাতাল। জামানত হারাতে পারেন। জাপা ও এনপিপি মনোনীত প্রার্থীরা।

প্রিসাইডিং অফিসারদের তত্বাবধানে আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের সহায়তায় শনিবার সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রগুলোতে স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স থেকে নির্বাচনী সকল সরঞ্জাম পাঠানো শুরু করেছে প্রশাসন। ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পাঠানো হবে ভোটের দিন রবিবার সকালে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার ফারিহা তানজিন জানিয়েছেন- অবাধ, সুষ্ঠ ও সকলের অংশগ্রহন মুলক গ্রহনযোগ্য ভোট গ্রহনের জন্য আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। তার উপজেলায় মোট ৬০টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এরমধ্যে ১২টি ভোট কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে।

সূত্র মতে, নির্বাচনী আচরনবিধি যথাযথ প্রতিপালনের ব্যত্যয় ঘটালে তাৎক্ষনিক শাস্তি প্রদানের জন্য অতিরিক্তি দুই জন ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োজিত রয়েছেন। আইন শৃংখলা বজায় রাখতে এক প্লাটুন সেনা বাহিনী, দুই প্লাটুন বিজিবি সদস্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে র‌্যাবের ১৯ সদস্যর ষ্ট্রাইকিং ফোর্স, ৫ থেকে ১০ জন পুলিশ সদস্যর ১৫টি দল স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মাঠে কাজ করছেন। এছাড়াও ভোট কেন্দ্রর জন্য ১২০জন পুলিশ ও ৭২০জন আসনার সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। নির্বাচন মনিটরিং করতে উপজেলায় খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। ভোটারদের নিরাপত্তা প্রদানের মাধ্যমে নির্বিঘেœ ভোট গ্রহনের জন্যকার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে।

অনুরুপভাবে গৌরনদী উপজেলায়ও আইন শৃংখলা বাহিনীর সহায়তায় ভোটকেন্দ্রের নির্বাচনী সরঞ্জাম বিতরণ করে এখন শুধু ভোট গ্রহসেন অপেক্ষায় রয়েছেন প্রিসাইডং অফিসারগন।

http://www.anandalokfoundation.com/