13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মক্কা বিজয়ের পর ক্ষমার আওতাভুক্ত ছিল না যে কাফিররা

Rai Kishori
September 13, 2020 8:15 am
Link Copied!

ইসলামের ইতিহাসে অত্যন্ত তাৎপর্যবহ একটি ঘটনার সাক্ষী ২০শে রমজান। শুধু ইসলামের ইতিহাসে নয়, বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাসে অনন্য সাধারণ বৈশিষ্ট্য ও মর্যাদার অধিকারী এ ঘটনাটি হলো মক্কা বিজয়।

আজ থেকে ১৪৩২ বছর আগে মহানবী (সা.) হিজরতের অষ্টম বছরে ১০ হাজার মুসলিম সৈন্যের বাহিনী নিয়ে মক্কা নগরী জয় করেছিলেন। তৎকালীন আরব ভূমির সবচেয়ে প্রসিদ্ধ জনপদে বিজয় নিশান উড্ডীন করেছিলেন। এ ঘটনা ছিল মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত গৌরবের, সাফল্যের ও সন্তুষ্টির।

মক্কা বিজয়ের পর রাসুলুল্লাহ (সা.) এক ঐতিহাসিক সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে মক্কার কাফিরদের ক্ষমা করেছিলেন। কিন্তু কাফিররা কখনই সাধারণ ক্ষমার আওতাভুক্ত ছিল না

তারা ছিল ১৪ জন, মতান্তরে ১৫ জন। তারা হলো, (১) আবদুল্লাহ ইবনে খাতাল, (২) ফারতানা, (৩) কারীনা (এরা দুজন ছিল আবদুল্লাহ ইবনে খাতালের বাঁদি), (৪) সারাহ, (৫) হুয়াইরিস ইবনে নুকাইদ, (৬) মিকয়াস ইবনে সুবাবা, (৭) আবদুল্লাহ ইবনে সাদ ইবনে আবি সারাহ, (৮) ইকরামা ইবনে আবি জাহল, (৯) হাব্বার ইবনে আসওয়াদ, (১০) কাব ইবনে যুহাইর, (১১) ওয়াহশি ইবনে হারব, (১২) হারিস ইবনে তুলাতিল, (১৩) আবদুল্লাহ ইবনে জিবারা, (১৪) হুবাইরা ইবনে আবি ওয়াহাব, (১৫) হিন্দ বিনতে উতবা। এদের মধ্য থেকে শুধু ছয়জনকে হত্যা করা হয়।

তারা হলো, (১) আবদুল্লাহ ইবনে খাতাল, (২) আবদুল্লাহর দুই বাঁদি থেকে একজন, (৩) সারাহ (তার সম্পর্কে ভিন্নমতও রয়েছে), (৪) হুয়াইরিস ইবনে নুকাইদ, (৫) মিকয়াস ইবনে সুবাবা, (৬) হারিস ইবনে তুলাতিল। এবং এই ১৪ জনের মধ্যে কেউ কেউ যেমন—ইকরামা ইবনে আবি জাহল, ওয়াহশি ইবনে হারব মুসলমান হয়েছিলেন।

(সূত্র : ফাতহুল বারি : ৭/৬৪৮, সিরাতে ইবনে কাসির : ৩/৪৬৩, ইদরিস কান্দলভি রচিত সিরাতে মুস্তফা : ৩/১০০৫)

http://www.anandalokfoundation.com/