13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভারত-পাকিস্তান লড়াইটা তাদেরও

admin
February 27, 2016 1:17 pm
Link Copied!

ক্রীড়া প্রতিবেদক: সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিল গেল বিশ্বকাপে। এরপর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজন নিয়ে অনেক জল ঘোলা হলেও শেষ পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি।

গত ডিসেম্বরে নিরপেক্ষ ভেন্যু দুবাইয়ে এই দুই দলের একটি সিরিজ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু রাজনৈতিক বৈরীতার জন্য তা মাঠে গাড়ায়নি। তাই ক্রিকেটভক্তরাও ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট যুদ্ধ দেখতে অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় রয়েছেন।

শনিবার এশিয়া কাপে বহুল প্রতীক্ষিত ভারত-পাকিস্তান মহারণ শুরু হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। ময়দানী লড়াইয়ে নামার আগে দুই দলের বিভিন্ন খেলোয়াড়দের নিয়ে শুরু হয়ে গেছে কথার লড়াই। মাঠে কে কার প্রতিপক্ষ বা সমকক্ষ হবেন। এ যেন লড়াইয়ের মধ্যে অন্য লড়াই। ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনআপের বিপরীত পাকিস্তানের রয়েছে ঐতিহ্যগত সেরা বোলিং লাইনআপ।

এই দ্বৈরথে যে কেউ নায়ক হতে পারেন, বদলে দিতে পারেন ম্যাচের ভাগ্য। আর এখানে আসল লড়াই হবে দুদলের বেশ কিছু সেরা তারকাদের মধ্যে। তাদের মধ্যে রয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি বনাম শহীদ আফ্রিদি; বিরাট কোহলি বনাম ওয়াহাব রিয়াজ। রোহিত শর্মা বনাম মোহাম্মদ আমির; রবিচন্দ্রন অশ্বিন বনাম শোয়েব মালিক এবং আশিষ নেহেরা বনাম হাফিজ।

১. মহেন্দ্র সিং ধোনি বনাম শহীদ আফ্রিদি
ক্যাপ্টেন কুল খ্যাত মহেন্দ্র সিং ধোনি সংক্ষিপ্ত ওভারের খেলায় অনেক অভিজ্ঞ ও কৌশলী। তার নেতৃত্বে ৫৭ টি-টোয়েন্টির মধ্যে ৩১টি জয় এবং ২৪টিতে হেরেছে ভারত। পকিস্তানের বিপক্ষে আগের যে ছয়টি টি-টোয়েন্টির ম্যাচে ভারত জিতেছে সেখানে অধিনায়ক ছিলেন ধোনি। অন্যদিকে বুমবুম আফ্রিদির নেতৃত্বে ৩৫টি ম্যাচ খেলেছে পাকিস্তান। এর মধ্যে ১৬টি জয় ও  ১৮টিতে হার দেখেছে পাকিস্তান। তাই গড় সাফল্যের দিক থেকে ভারতই এদিক থেকে এগিয়ে। তবে সব পরিসংখ্যান ছাপিয়ে শনিবারের ম্যাচে নিজেদের সেরাটা প্রমাণ করতে চাইবেন এই দুই দলপতি।

২. বিরাট কোহলি বনাম ওয়াহাব রিয়াজ
ভারতের সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি ও পাকিস্তানের সেরা পেসার ওয়াহাব রিয়াজের মাঝে দারুণ লড়াই হতে পারে। এই দুই তারকা দারুণ পারফরম্যান্স উপহার দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে। ৩৪ টি-টোয়েন্টিতে কোহলির রান ১২২৩ যেখানে গড় ৪৯ এর কাছাকাছি। ব্যাট হাতে রান ফোয়ারা বইয়ে দিতে পারেন তিনি। অন্যদিকে আগুন ঝরানো পেস বলে ১৫ টি-টোয়েন্টি ওয়াহাবের উইকেট ১৫টি। যেখানে ইকোনমি আটের চেয়ে বেশি। বাউন্স এবং অসাধারণ পেসের জন্য মিরপুরের উইকেটে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে খুনে হয়ে উঠতে পারেন তিনি।

৩. রোহিত শর্মা বনাম মোহাম্মদ আমির
পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আবারও আন্তজার্তিক ক্রিকেটে ফেরা আমিরের উপর ভারতীয় দলের নজরটা একটু বেশি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দলে ফিরে তিনি তার সেই পুরনো রূপ দেখিয়েছেন। ৭.৩৩ ইকোনমিতে ২১ ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ২৪টি। দারুণ গতি ও সঠিক লাইন লেন্থে ধসিয়ে দিতে পারেন ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপ। অন্যদিকে ভারত দলের রান মেশিন বলা যায় রোহিত শর্মাকে। মিরপুরে বাংলাদেশের বিপক্ষে বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ভারতের জয়ে তার অবদান সবচেয়ে বেশি। স্টাইলিস্ট মুম্বাইয়ের এই ওপেনিং ব্যাটসম্যানের ইনিংসটা ভারতের বড় স্কোরের পথে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

৪. রবিচন্দ্রন অশ্বিন বনাম শোয়েব মালিক
পাকিস্তান বর্তমান টি-টোয়েন্টি দলে অন্যতম অভিজ্ঞ একজন খেলোয়াড় শোয়েব মালিক। আনপ্রেডিক্টেবলদের লাইনআপে গুরুত্বপূর্ণ স্থায়িত্ব আনতে পারেন মালিক। ভারতের জন্য ভিন্ন এক চ্যালেঞ্জ হতে পারেন তিনি। তার ক্ল্যাসিক্যাল নির্ভীক শটগুলো পাকিস্তান ইনিংসে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। অন্যদিকে ভারতের হয়ে ঘূর্ণিবলে পাকিস্তান ব্যাটসম্যানদের ধাঁধায় ফেলতে পারেন অশ্বিন। টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ডসংখ্যক ৬.৯ ইকোনমিতে ৩৫ ম্যাচে ৪৩ উইকেট রয়েছে তার।

৫. আশিষ নেহেরা বনাম মোহাম্মদ হাফিজ
পাকিস্তান ইনিংসে ওপেনিং অথবা তিন নম্বরে ব্যাট হাতে দেখা যেতে পারি মোহাম্মদ হাফিজকে। এশিয়ার পিচগুলোতে তার অসাধারণ ব্যাটিং রেকর্ড রয়েছে। তবে মিরপুর তার জন্য কিছুটা চ্যালেঞ্জিং হতে পারে। এখানকার সবুজ পিসের সঙ্গে সখ্যতা গড়তে হবে তাকে। তবে এক্ষেত্রে বাঁধা হয়ে দাড়াতে পারেন ভারতীয় পেসার আশিষ নেহেরা। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম মাচে তার অসাধারণ পেস আক্রমণ উপভোগ করেছে ভারতীয় ভক্তরাও। এই ম্যাচেও তার কাছ থেকে সেরাটা প্রত্যাশা করতে পারেন টিম ইন্ডিয়া অধিনায়াক মোহেন্দ্র সিং ধোনি।

http://www.anandalokfoundation.com/