13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিদেশিরা প্রধানমন্ত্রীকে পাত্তাই দেয়নি: দুদু

admin
September 20, 2017 2:08 pm
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিদেশিরা পাত্তাই দেয়নি বলে মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস-চেয়াম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে গেছেন, সেখানে মাত্র ২ মিনিট আলোচনা করেছেন ট্রাম্পের সাথে, সেটাও আবার রাস্তায় দাঁড়িয়ে। এবং বলেছেন আমরা আমেরিকার কাছে কিছু প্রত্যাশা করিনা। প্রত্যাশার জন্যই তো সেখানে আপনি গিয়েছিলেন। ট্রাম্প, জাতিসংঘসহ বিশ্ববাসীকে আপনি অনুরোধ করবেন রোহিঙ্গারা যেভাবে আসছে স্বসম্মানে আবার যেন তাদেরকে ফেরত পাঠানো হয়। কিন্তু আপনি গিয়ে সেকথা তো বলেননি। শুধুমাত্র দাম্ভিকতা করে বলছেন আমাদের কোনো প্রত্যাশা ছিলো না। আসলে আমেরিকা আপনাদের পাত্তা দেয় নাই, বিশ্ববাসী আপনাকে পাত্তা দেয়নি। আপনি কূটনীতিতে পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।’

বুধবার (২০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন আয়োজিত ‘চালের দাম কমাও মানুষ বাঁচাও’ শীর্ষক এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

চালের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম মিয়ানমারে গেছেন। মিয়ানমার এখন সারা বিশ্বে ভয়ংকর শাসকদের নৃশংসতার প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে চালে সাধারণ মুসলিম-হিন্দু মানুষের রক্ত মাখা সেই চাল আনতে স্ত্রীসহ কামরুল ইসলাম সেখানে গিয়েছিলেন। তাও তিনি সেখানকার চাল পান নি। যা পেয়েছেন আমরা দেখেছি পত্রপত্রিকায় খুব নিম্নমানের চাল। একে বারে খাওয়ার অযোগ্য কিছু চাল ইতিমধ্যে দেশে ঢুকেছে। সরকার ট্রাকে করে যে চাল বিক্রি করছেন তা আতব চাল। এর আগে কোনও সরকার এই চাল বিক্রি করে নাই। সরকার চালের উৎপাদন করে নাকি বিদেশে রফতানি করে। এ কথা দেশবাসীকে তারা শুনিয়েছে। কিন্তু তার আমলে চালের যে সংকট। খাদ্যের যে সংকট, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের যে সংকট অতীতে কোন সরকারের আমলে দেখা যায়নি। এই সরকারের কোনও রকম যোগ্যতা নেই দেশ পরিচালনার।’

তারা আমাদের শুনিয়ে এসেছে চীন, ভারত, রাশিয়া আমাদের বন্ধু। কিন্তু এই সংকটে তারা আমাদের বিপক্ষে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।

দেশে নিরব দুর্ভিক্ষ চলছে, ভয়াবহ খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে এমন দাবি করে সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘শেখ মুজিবের জামানায় কবি লিখেছিলেন ভাত দে হারামজাদা না হলে মানচিত্রটা চিবিয়ে খাব। তখন রাস্তাঘাটে মানুষ না খেয়ে, ফ্যান খেয়ে মৃত্যু বরণ করেছে লাখে লাখে। সেই দুর্ভিক্ষ ইতিহাস হবে বলে আমরা মনে করেছিলাম। কিন্তু শেখ মুজিবের সুযোগ্য কন্যার আমলে ৭২ সালের মত আবারও দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘অপশাসন, খুন, গুম, নিখোঁজ যেসব বিষয় আছে সংবিধানকে পদদলিত করার যেসব বিষয় আছে, নির্বাচনকে পদদলিত করার যে বিষয় আছে, ভোটাধিকার কেরে নেয়ার ব্যাপার যেমন আছে, আইনের শাসন ভুলণ্ঠিত করার যেমন ব্যাপার আছে, ঠিক তেমনি মোটা চালের দাম ৭০টাকা হওয়ায় খেটে খাওয়া মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। সর্বস্তরের মানুষের মাঝে আজ হাহাকার উঠেছে। রোহিঙ্গা, আইনশৃঙ্খলা, অর্থনীতিসহ এই সরকার সব দিক থেকে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলামের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন ন্যাপের মহাসচিব এম। গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন, সহ-তথ্য বিষয়ক সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরী, নির্বাহী কমিটির সদস্য কামরুদ্দীন এহিয়া খান মজলিস সরোয়ার, জিনাপের সভাপতি মিয়া মো। আনোয়ার, বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, সংগঠনের দক্ষিণের সভাপতি রাসেল খান, গণঐক্যের সভাপতি আরমান হোসেন পলাশ প্রমুখ।

http://www.anandalokfoundation.com/