ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাজার দর কমে যাওয়ায় হতাশ মেহেরপুরের পাট চাষিরা

admin
September 3, 2015 10:56 pm
Link Copied!

মেহের আমজাদ,মেহেরপুরঃ বাজার দর কমে যাওয়ায় মেহেরপুরের পাট চাষিরা চরম হতাশায় ভুগছে। লাভের বদলে লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের। এদিকে পাট বপনের সময় থেকে পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় পাটের ফলন কমেছে। পাট পচানোর আধুনিক রিবন রেটিং পদ্ধতি উপযুক্ত হলেও কার্যকরী উদ্যোগের অভাবে তা আলোর মুখ দেখছে না।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য মতে, চলতি বছর জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ২৩ হাজার ৭’শ ৪৫ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রর চেয়ে ৭’শ ১৫ হেক্টর জমিতে এ বছর পাটের চাষ বেশি হয়েছে। গত বছর পাটের উৎপাদন হয়েছিল ৩ লক্ষ ৩৫ হাজার ২’শ ৩২ বেল। সেচ, সার সহ অন্যান্য খরচ দিয়ে বিঘা প্রতি পাট কেটে জমি থেকে তুলে ঘরে নিয়ে আনতে পাট চাষে কৃষকের খরচ হয়েছে দশ থেকে বার হাজার টাকা।

গত বছর পানির অভাবে চাষিরা পাট জাগ দিতে সমস্যায় পড়লেও এ বছর পর্যাপ্ত পানি থাকায় চাষিরা পাট জাগ দিতে সমস্যায় পড়েন নি।  তবে পাটের বাজার দর নিচে নেমে যাওয়ায় লোকসান গুণতে গিয়ে চাষিদের মাঝে চরম হতাশা বিরাজ করছে। রিবন রেটিং পদ্ধতিতে পাটের আঁশ ছাড়াতে একদিকে যেমন লেবার খরচ বেশি হচ্ছে অপর দিকে প্রশিক্ষণেরও অভাব রয়েছে। তাই রিবন রেটিং পদ্ধতিতে পাট পচাতে আগ্রহী হচ্ছে না চাষিরা।

মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এস এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পাট জাগ দেওয়ার সময় চাষিরা পাটের উপরে কাদা-মাটি দেয় এতে পাটের রং এবং গুণগত মান নষ্ট হয়। পাট জাগ দিতে কাদা-মাটির প্রয়োজন হলে বস্তায় করে চাপা দেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। এতে পাটের গুণগত মান ভালো হবে এবং চাষিরা বাজার দর ভালো পাবে।

http://www.anandalokfoundation.com/