13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

তুরাগ নদীর তীরে ইবাদাতে মশগুল মুসল্লিরা

admin
January 16, 2016 11:47 am
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার: মাওলানা মুহাম্মদ খোরশেদ আলমের বয়ানের মধ্য দিয়ে টঙ্গীর তুরাগতীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের দ্বিতীয় দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। বয়ানের বাংলায় তরজমা করছেন বাংলাদেশের মাওলানা মো. জাকির হোসেন। দ্বিতীয় পর্বে অংশ নিচ্ছেন ঢাকাসহ ১৬ জেলার মুসল্লিরা। আগামীকাল রোববার অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত।

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বেও দেশ-বিদেশের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশ নিচ্ছেন। ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ইবাদত বন্দিগীর মধ্য দিয়ে মুসল্লিরা দ্বিতীয় পর্বের প্রথম দিন অতিবাহিত করেছেন। মুসল্লিরা উপমহাদেশের বিশিষ্ট আলেমদের গুরুত্বপূর্ণ বয়ান শুনেছেন। মুসল্লিরা বয়ান শুনার পাশাপাশি ইবাদত বন্দেগিতে মশগুল রয়েছেন। ইজতেমা ময়দান এবং এর আশপাশ এলাকায় টুপি পড়া মুসল্লি আর মুসল্লি। তবে গত পর্বের চেয়ে এ পর্বে মুসল্লির সংখ্যা কম।

শনিবার যারা বয়ান করবেন-

বাদ ফজর বয়ান করেন ভারতের মাওলানা মুহাম্মদ খোরশেদ। বাদ জোহর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মুহাম্মদ ফারুক, বাদ আসর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মুহাম্মদ ইউসুফ ও বাদ মাগরিব বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা মুহাম্মদ শওকত আলী।

বিশ্ব ইজতেমা ময়দান এবং আশপাশ এলাকায় রয়েছে র‌্যাব-পুলিশের কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। র‌্যাব-পুলিশের ৫ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে ঢেকে ফেলা হয়েছে পুরো ইজতেমা এলাকা। খিত্তায় খিত্তায় সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি ইজতেমা মাঠের প্রতিটি প্রবেশপথে তৈরি করা হয়েছে পর্যবেক্ষণ টাওয়ার। এ ছাড়া রয়েছে বাইনোকুলার, মেটাল ডিটেক্টর, নৌ-টহল, চেকপোস্ট, ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ও র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহল।

এক বিদেশিসহ তিন মুসল্লির ইন্তেকাল

শুক্রবার রাত পর্যন্ত টঙ্গীর বিশ্বইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে যোগ দিতে আসা এক মালয়েশিয়ার নাগরিকসহ তিন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন- মালয়েশিয়ার নাগরিক শাহিদান ইব্রাহিম (৪৮), জামালপুর সদর উপজেলার কাচারিপাড়া এলাকার আবুল কাশেম (৬৫) ও বগুড়ার গাবতলি থানার মাঝবাড়ি এলাকার আব্দুর রহমান (৬০)।

দ্বিতীয় পর্বে যে ১৬টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নিচ্ছেন- জেলাওয়ারি মুসল্লির যেভাবে অবস্থান নেবেন তা হল- ১নং থেকে ৭ নং খিত্তায় ঢাকা জেলার বাকি এলাকা, ৮নং খিত্তায় ঝিনাইদহ, ৯ ও ১১ নং খিত্তায় জামালপুর, ১০ নং খিত্তায় ফরিদপুর, ১২ ও ১৩ নং খিত্তায় নেত্রকানা, ১৪ ও ১৫ নং খিত্তায় নরসিংদী, ১৬ ও ১৮ নং খিত্তায় কুমিল্লা, ১৭ নং খিত্তায় কুড়িগ্রাম, ১৯ ও ২০ নং খিত্তায় রাজশাহী, ২১ নং খিত্তায় ফেনী, ২২ নং খিত্তায় ঠাকুরগাঁও, ২৩ নং খিত্তায় সুনামগঞ্জ, ২৪ ও ২৫ নং খিত্তায় বগুড়া, ২৬ ও ২৭ নং খিত্তায় খুলনা, ২৮ নং খিত্তায় চুয়াডাঙ্গা এবং ২৯ নং খিত্তায় পিরোজপুর জেলা।

http://www.anandalokfoundation.com/