13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

তথ্যমন্ত্রীকে বাংলাদেশ গ্রাজুয়েট সাংবাদিক ফোরামের ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময়

Ovi Pandey
February 15, 2020 11:18 pm
Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দিবস-২০২০ উপলক্ষে ১৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ’কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, বাংলাদেশ গ্রাজুয়েট সাংবাদিক ফোরামের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আল-আমিন শাওন ও সাধারন সম্পাদক মো. রোমান আকন্দ।

বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, তথ্য সচিব কামরুন নাহার, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম ও প্রেস কাউন্সিলের সদস্যগণ।

এসময় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশের গণমাধ্যম চ‚ড়ান্ত স্বাধীনতা ভোগ করছে। তবে এটি যাতে অপরের স্বাধীনতা খর্ব না করে এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের সতর্ক থাকতে হবে। অনলাইন পোর্টালের কার্ড নিয়ে যারা সাংবাদিক পরিচয় দেয়, তারা আসলে সাংবাদিক নয়। সব মিলিয়ে গণমাধ্যমে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সরকার পদক্ষেপ নিচ্ছে। গত দশ বছরে দেশে গণমাধ্যম দ্রুত বিকশিত হয়েছে। এখন মিডিয়া বলতে শুধু খবরের কাগজকে বোঝায় না। এখন এতে খবরের কাগজ, টেলিভিশন, রেডিও এবং অনলাইন নিউজ পোর্টাল অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

সংবাদপত্রের চিত্র গত দশ বছরে বদলে গেছে। আর দেশে মিডিয়ার ব্যাপক বিকাশের কারণে এতে আরো অনেক নতুন চ্যালেঞ্জ যুক্ত হয়েছে। যে কোনো মিডিয়ায় যে কোনো ধরনের ভুয়া নিউজ প্রচার হলে তা অনেক ক্ষেত্রেই সমাজের পাশাপাশি রাষ্ট্রের জন্যও ক্ষতিকর হয়ে ওঠে। অনেকে সামাজিক মাধ্যমকে গণমাধ্যম হিসেবে বিবেচনা করেন। তবে, এটি একটি অসম্পাদিত প্লাটফর্ম, গণমাধ্যম নয়। প্রেস কাউন্সিল সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ পাস করেছেন এবং পরে দেশের মিডিয়ার বিকাশের জন্য বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল গঠন করা হয়। দেশকে এগিয়ে নিতে বঙ্গবন্ধু তার শাসনকালে প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪-এর মতো অনেক আইন পাস করেন।

এছাড়াও তথ্যমন্ত্রী শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে এবং দেশে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি কর্ম পরিকল্পনা তৈরির জন্য বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের প্রতি আহবান জানান। এসময় বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল সাংবাদিকদের অধিকার সুনিশ্চিত করতে ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের পরিবেশ তৈরিতে কাজ করছে। তিনি বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলকে আরো অধিক কার্যকর ও শক্তিশালী করতে সকল মহলের সহযোগিতা কামনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, আরজেএফ’র উপদেষ্টা লায়ন মো. গনি মিয়া বাবুল, চেয়ারম্যান এস.এম জহিরুল ইসলাম, ভাইস-চেয়ারম্যান সেকান্দার আলম শেখ, যুগ্ম মহাসচিব আল-আমিন শাওন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান সজল, মহিলা সম্পাদিক উর্মি রহমান প্রমূখ। জানা যায়, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের উদ্যোগে বর্তমান প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ২০১৭ সাল থেকে ১৪ ফেব্রæয়ারি বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৭৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ কাউন্সিল আইন গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়। সাংবাদিকদের স্বাধীনতা ও শক্তিশালী গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার জন্যে এই দিবসটির গুরুত্ব ব্যাপক।

http://www.anandalokfoundation.com/