13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ড. আসিফ নজরুল গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার

admin
November 25, 2017 1:29 am
Link Copied!

ড. আসিফ নজরুলের নাম ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভূয়া পেইজ পরিচালনাকারীর পরিচয় প্রকাশ হতে যাচ্ছে। আর ওইসব ভুয়া ফেইসবুক পেইজ পরিচালনাকারী ব্যক্তি নৌপরিহন মন্ত্রীর আত্বীয় বলেও অভিযোগ ওঠছে। বিভিন্ন সময় নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুস এর কৃতিত্ব, দেশের চলমান রাজনৈতিক ও মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে পত্রিকায় কলাম-টিভি টকশোতে সরকারের আলোচনা সমালোচনা করায় ড. আসিফ নজরুলের কণ্ঠরোধের চেষ্টা চলছে বলেও অভিযোগ ওঠেছে।

গত ২৪ জুন বিশিষ্ট আইন ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ, কলামিস্ট, মানবাধিকার কর্মী ও প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল তার পরিচালিত ফেইসবুক পেইজে সবাইকে ভূয়া পেইজ থেকে সতর্ক থাকার জন্য একটি নোটিশ দেন। যাতে তিনি লিখেন , ‘নকল আসিফ নজরুল- নীচে তিনটি ছবি আছে। যে ছবিটিতে আমি আমার মেয়েকে ধরে আছি শুধু সেটি আমার নিজের পরিচালিত ফ্যানপেজ। বাকী দুটো ছবি ব্যবহার করে যে দুটো ফেসবুক পেজ পরিচালিত হচ্ছে তা আমার অনুমতি নিয়ে করা হয়নি। এরকম অনুমতিবিহীন আরো ফ্যানপেজ থাকতে পারে। কিন্তু এসব পেজ-এ কোন সংবাদ, মন্তব্য, ছবি বা অন্য কোন প্রকাশনার সঙ্গে আমার কোনরকম সংশ্লিষ্টতা নাই। এনিয়ে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না আশা করি।”

তারপরও এক শ্রেণীর অসাধু ও ষড়যন্ত্রকারী গোষ্টী ওইসব ফেইসবুক ভুয়া পেইজ ব্যবহার করে ড. আসিফ নজরুল সেজে বিভিন্ন সময় নানান ধরনের পোস্ট দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করে আসেছ।

তবে সম্প্রতি সময়ে ড. আসিফ নজরুলের নাম ব্যবহার করে ওইসব ভুয়া পেইজ ব্যবহার করে ষড়যন্ত্রকারীরা ‘চট্টগ্রাম বন্দরে লস্কর নিয়োগ নিয়ে নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের বিরুদ্ধে ‘ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। যে পোস্টটি ড. আসিফ নজরুলের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজ থেকে করা হয়নি। তারপরও ওইসব ভুয়া পেইজের পোস্টকে অবলম্বন করে বৃহস্পতিবার দুপুরে মাদারীপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২টি মানহানি মামলা করেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রীর চাচাতো ভাই ও মাদারীপুর জেলা পরিষদের সদস্য ফারুক খান। এছাড়াও মন্ত্রীর ভাগ্নে সৈয়দ আসাদ উজ্জামান মিনার আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মাদারীপুর সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। যা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আদেশের জন্য পাঠানো হয়েছে।

ড. আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মাদারীপুরে মামলা হয়েছে সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পেলে ফেইসবুক ব্যবহারকারীরা বর্তমান সরকারের নৌ-মন্ত্রীর দিকে ষড়যন্ত্রের তীর ছুড়ছেন। কারণ, নৌমন্ত্রী শাজাহান খান একটি টিভি টকশোতে ড. আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে প্রথমে মামলা করার হুমকি দিয়েছিলেন। নৌমন্ত্রীর সেই হুমকির পর থেকেই ফেইসবুকে ড. আসিফ নজরুলের নামে কয়েকটি ভুয়া পেইজ লক্ষ্য করা যায়।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম বন্দরে চতুর্থ শ্রেণির একটি পদে নিয়োগ পাওয়া ৯২ জনের মধ্যে মাত্র দুজন চট্টগ্রামের এবং বাকি ৯০ জন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানের এলাকা মাদারীপুরের এমন অভিযোগ এনে সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রামের দুইজন সংসদ সদস্য।

রোববার সংসদে চট্টগ্রামের একটি আসন থেকে নির্বাচিত জাসদ নেতা মঈনুদ্দিন খান বাদল আক্ষেপ করে বলেন, ‘চট্টগ্রাম বন্দর চট্টগ্রামের আত্মার মতো। এই বন্দরের সঙ্গে চট্টগ্রামবাসী নানাভাবে যুক্ত। অথচ এই বন্দরের ছোট পদ লস্করে ৯২ জনের মধ্যে ৯০ জনই অন্য অঞ্চলের, চট্টগ্রামের মাত্র দুজন।’

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি গত শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাঁর আইডিতে লিখেন, ‘সুসংবাদ: বন্দরের লস্কর পদের নিয়োগের ফলাফল ঘোষণা হয়েছে। কয়েকজনের আবেগতাড়িত বক্তব্য শুনে বুঝতে পারলাম চট্টগ্রাম বন্দরটি মাদারীপুর জেলায় অবস্থিত। ৯২ জন লস্কর সাহেবের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় দুজন চট্টগ্রাম থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। অভিনন্দন জানাচ্ছি মাদারীপুর সমুদ্রবন্দরের নতুন লস্করদের।’ তাঁর স্ট্যাটাসের ওপর ভিত্তি করে একটি গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করে। ওই খবরে বলা হয়, নিয়োগ পরীক্ষায় ৯২ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। যার ৯০ জনই হচ্ছে মাদারীপুর জেলার।

অথচ সংসদে নৌমন্ত্রীর ওপর এলাকাপ্রীতির গুরুতর অভিযোগ তুললেও ড. আসিফ নজরুলের ভুয়া পেইজ থেকে করা পোস্টটি নিয়ে বানিজ্য করতে যাচ্ছে নৌমন্ত্রী শাহজাহান খান ও তার আত্বীয় স্বজন এমন অভিযোগও ওঠছে।

এবিষয়ে সরকারের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, একটি মামলা গ্রহণের জন্য যেহেতু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আদেশের জন্য পাঠানো হয়েছে সেহেতু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচিত ওই ভুয়া আইডির ভেরিফাই করা। ভেরিফাইয়ের পর ড. আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা নেয়ার আদেশ-বাতিলের আদেশ দিতে পারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এদিকে, বিভিন্ন টকশো ও বিভিন্ন পত্রিকার কলামে দেশের চলমান রাজনীতি ও মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে সোচ্চার ছিলেন বিশিষ্ট আইন বিশেষজ্ঞ ড. আসিফ নজরুল । নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুস এর বিভিন্ন সফলতা, ঐতিহ্য ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে কৃতিত্ব নিয়েও ছিলেন সরব। কিন্তু বর্তমান সরকার ড. মুহাম্মদ ইউনুস এর কার্যকলাপে ঘোরতর বিরোধী অবস্থানে। বর্তমান সরকারের জন্য ড. মুহাম্মদ ইউনুস একটি আতঙ্ক হলেও ড. আসিফ নজরুল বিভিন্ন সময় নোবেল জয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনুস এর কৃতিত্ব নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় কলাম ও টকশোতে কথা বলেছেন। নিজের ফেইসবুক টাইমলাইন ও ফেইসবুক পেইজে শেয়ার করেছেন ড. মুহাম্মদ ইউনুসকে নিয়ে লেখা। মূলত ড. মুহাম্মদ ইউনুস নিয়েও বর্তমান সরকার এবং সরকার দলীয় লোকজন ড. আসিফ নজরুল এর ওপর বিভিন্ন সময় বিভিন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল ও রয়েছে। দেশের গুম-খুনের বিরুদ্ধে কথা বলায় ড. আসিফ নজরুলকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বাহিনীর লোকজন হুমকিও দিয়েছেন।

মামলা দায়েরের বিষয়ে ড. আসিফ নজরুল বলেন, যে ফেসবুক আইডির স্ট্যাটাস আমলে নিয়ে মামলা হয়েছে তা তার নয়। তার নামে এটি ভুয়া আইডি।

http://www.anandalokfoundation.com/