13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ক্রটি বিচ্যুতি সংশোধন করে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়ন অব্যাহত রাখা হবেঃ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী

admin
January 13, 2019 7:18 pm
Link Copied!

অতীতের ক্রটি বিচ্যুতি সংশোধন করে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, হাসপাতালগুলোতে জনবলের নিয়মিত উপস্থিতি, যন্ত্রপাতির সঠিক পরিচর্যা, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা এবং ঔষধের পর্যাপ্ততা নিশ্চিত করতে শীঘ্রই মন্ত্রণালয়ে একটি মনিটরিং সেল গঠন করা হবে। হাসপাতালের রোগীদের সেবার মান উন্নয়নে এই সেল ভূমিকা রাখবে।

আজ সচিবালয়ে বাংলাদেশ হেল্থ রিপোটার্স ফোরাম এর পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপনকালে তিনি এই কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জনগণের দোরগোড়ায় বিশেষ করে তৃণমূল পর্যায়ে মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত দশ বছর স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়িত হয়েছে। ফলে রাজধানী থেকে শুরু করে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যন্ত নতুন নতুন অবকাঠামো নির্মাণ হয়েছে। অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপিত হয়েছে। ১০ হাজার চিকিৎসক এবং ১০ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়ে মাঠ পর্যায়ে জনবল সংকট অনেক নিরসন হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সেবার মানোন্নয়নে সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার উপর গুরুত্ব দিচ্ছে। বিশেষ করে যন্ত্রপাতি ক্রয়, জনবল বদলি ও পদোন্নতিসহ সেবা দানের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা জোরদার করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এক্ষেত্রে প্রণীত নীতিমালা কঠোরভাবে অবলম্বন করার জন্য সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘গত পাঁচ বছর যাবত প্রতিমন্ত্রী হিসাবে মন্ত্রণালয়ের সব কর্মসূচির গভীরে গিয়ে কাজ করার চেষ্টা করেছি। গতানুগতিকতার বৃত্ত থেকে বেরিয়ে এসে নতুন নতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের জন্য চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিয়েছি। এবার পূর্ণমন্ত্রী হিসাবেও সব সময় সৃষ্টিশীল কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে’। এক্ষেত্রে অতীতের মতো আগামীতেও সাংবাদিক এবং গণমাধ্যম কর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী প্রতি বিভাগে ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণের পাশাপাশি জেলা হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ক্যান্সার ইউনিট স্থাপনে উদ্যোগের প্রতিশ্রুতি পূনর্ব্যক্ত করে মন্ত্রী বলেন, ক্যান্সার প্রতিরোধে জীবনাচারনে সচেতনতা বৃদ্ধি কার্যক্রমের উপর আগামীতে গুরুত্ব দেওয়া হবে। বিদ্যালয়ভিত্তিক স্বাস্থ্য সচেতনতা কার্যক্রমের উপর অধিক জোর দেওয়া হবে।

এসময় হেল্থ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি তৌফিক মারুফ, সাধারণ সম্পাদক নিখিল মানখিন, সহ-সভাপতি নূরুল ইসলাম হাসিব, জান্নাতুল বাকেয়া কেকা, শিশির মোড়ল, নেছার আহমেদ, মইনুল হাসান সোহেল, দিলারা হোসেন, আইনাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ফোরামের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসানকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হলে প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিগুলোর পূর্ণ বাস্তবায়নে সরকার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালাবে।

এছাড়াও এদিন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন বিভাগ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়।

http://www.anandalokfoundation.com/