13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কার্বন নিঃসরণে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা দরকার

admin
July 25, 2017 10:30 am
Link Copied!

বিশেষ প্রতিবেদকঃ কার্বন নিঃসরণে বিদেশি সহায়তা পেতে প্রতিক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হওয়া দরকার। দেশে সুশাসনের মূল উপাদান না থাকলে বাংলাদেশ পিছিয়ে যাবে। বললেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

সোমবার রাজধানীর মাইডাস সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এ সম্পর্কিত একটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, কার্বন নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ বা কমানোর মূল দায়িত্ব সরকারের। পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ মানুষেরও দায় রয়েছে। কার্বন নিঃসরণে অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ সরকার বেশি সচেতন।

তিনি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন রোধের বিষয়ে সরকারের চেয়ে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো ভালো জ্ঞান রাখে। তবে যে উদ্যোগের মাধ্যমে কার্বন নিঃসরণ কমানো সম্ভব, তা খুবই ব্যয়বহুল। তাই সরকারি উদ্যোগটা বেশি দরকার।

‘জলবায়ু পরিবর্তন উপশমে স্বপ্রণোদিত অঙ্গীকার ও প্রতিপালন: দক্ষিণ এশীয় অভিজ্ঞতাভিত্তিক পদ্ধতিগত পর্যবেক্ষণ’ শিরোনামে গবেষণা প্রতিবেদনটি তুলে ধরেন গবেষকদলের প্রধান ড. এ কে এনামুল হক।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সরকার ২০৩০ সাল নাগাদ কার্বন নিঃসরণ ৫ শতাংশ কমানোর অঙ্গীকার করেছে। তবে বিদেশি সহায়তা পেলে এটা ১৫ শতাংশ করবে সরকার। সে সহায়তা কোন কোন ক্ষেত্রে আনা যেতে পারে তা নিয়ে গবেষণা চলছে।

আরো বলা হয়, গবেষণায় কার্বন নিঃসরণ কমানোর সহজ ১০টি প্রধান কৌশল উল্লেখ করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে- নগরে যানজট নিরসন, পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন, ইট ভাটায় জ্বালানি পরিবর্তন, বিদ্যুতের ক্ষেত্রে জ্বালানি দক্ষতা বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আধুনিকায়ন, শহরে বর্জ্য হতে জৈব সার উৎপাদন এবং গ্রামে উন্নত চুলার ব্যবহার বাড়ানো।

সংবাদ সম্মেলনে গবেষণা দলের সদস্য ড. প্রণব মুখোপাধ্যায়, ড. মানি নেপাল, ফাতিমাত শফিকা ও ড. হেমান লোহানাসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

http://www.anandalokfoundation.com/