২৭শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং | ১৪ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:৫১
রাশিয়া বিশ্বকাপ
রাশিয়া বিশ্বকাপের স্পট লাইটে যারা

রাশিয়া বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ আসরে যারা

নিউজ ডেস্কঃ  আর ছয় মাস পরই পর্দা উঠছে ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর রাশিয়া বিশ্বকাপের।  চার বছর পর একবার অনুষ্ঠিত হয় এই আসর। সেই আসরের দিকে তাকিয়ে থাকে গোটা বিশ্ব। উন্মাদনায় মেতে ওঠে সকলে। ১৪ জুন থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত পুরো একমাস ধরে চলবে এ মহাযজ্ঞ। ফুটবলের মহোৎসবে বড় বড় দলের বড় তারকার ছড়াছড়ি। তাদের মাঝে এমন কিছু খেলোয়াড় আছেন যাদের দিকে চোখ থাকবে ভক্ত-সমর্থক, ফুটবলপ্রেমী এমনকি প্রতিপক্ষেরও। তো রাশিয়া বিশ্বকাপের স্পট লাইটে কারা হলেন সেসব বিশ্ব তারকা? আসুন দেখে নেয়া যাক।

লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা)
রাশিয়ার বিশ্বকাপটা আর্জেন্টাইন মায়াস্ত্রো লিওনেল মেসির জন্যও সর্বশেষ বিশ্বকাপ হতে পারে। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বটা খুবই বাজেভাবে কেটেছে আর্জেন্টিনার। ইউকুয়েডরের বিপক্ষে বাঁচামরার ম্যাচে জয়লাভ করে রাশিয়ার টিকেট পেয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার এ দলটি। হ্যাটট্রিক করে দলকে জিতিয়ে বিশ্বকাপে তুলেছিলেন মেসি নিজেই। যে দলে মেসি আছেন সে দলকে কোনভাবেই পেছনে রাখার উপায় নেই। বার্সোলোনার এই প্রাণভ্রোমরা বিশ্বকাপ জিতে অমরত্ব চাইবেন। গত বিশ্বকাপ ফাইনালে জার্মানির কাছে পরাজয়ের স্মৃতি নিশ্চই ভুলতে চাইবেন এবার রাশিয়ায়।

নেইমার (ব্রাজিল)
২০১৭ সালের শেষদিকে ট্রান্সফারের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে বার্সেলোনা ছেড়ে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) পাড়ি জমান ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন নেইমার। মেসির ছায়া থেকে বের হয়ে যেন আরো অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছেন ২৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। গত বিশ্বকাপে জার্মানীর বিপক্ষে বিধ্বস্ত হওয়া ম্যাচের স্মৃতি ভুলে যেতে চাইবেন তিনি। ব্রাজিলের হেড কোচ তিতের আশা, বিশ্বকাপেও নেইমার বাছাই ও ক্লাব ফুটবলের ফর্ম ধরে রাখবেন।

লুইস সুয়ারেজ (উরুগুয়ে)
ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ে। একসময় ফুটবল বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দলটি ধীরে ধীরে হারিয়ে যেতে থাকে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই থেকে। তবে গত কয়েক বছরে নিজেদের সেই গৌরবোজ্জ্বল অতীত কিছুটা ফিরে পেতে শুরু করেছে ল্যাটিন আমেরিকার এ দলটি। ২০১১ সালে প্যারাগুয়েকে ৩-০ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল লুইস সুয়ারেজের দল। উরুগুয়ের এ পুনরুত্থানে নিঃসন্দেহে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছেন সুয়ারেজ। ৩০ বছর বয়সী বার্সেলোনার এ স্ট্রাইকার ৯৪ ম্যাচে গোল করেছেন ৪৭টি। ২০১৮ বিশ্বকাপে সন্দেহাতীতভাবেই সুয়ারেজ বড় ফ্যাক্টর হিসাবে আবির্ভূত হবেন।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (পর্তুগাল)
রাশিয়ার বিশ্বকাপটাই হয়তো শেষ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে ৩২ বছর বয়সী রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জন্য। এ বিশ্বকাপটা তাই স্মরণীয় করে রাখতে চাইবেন ৫বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই উইঙ্গার। এ নিয়ে সপ্তমবারের মতো বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলতে যাচ্ছে রোনালদোর পর্তুগাল। কখনোই তারা বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ পায়নি। রোনালদোর দেশ ইউরোপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। কিন্তু বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো পর্তুগালের সামর্থ্য আছে কি না তা নিয়ে সংশয় সবার। তবে ব্যক্তি রোনালদোর নৈপুণ্যে রাশিয়া মাতবে তাতে নিশ্চিত সবাই।

অঁতোয়ান গ্রিজমান (ফ্রান্স)
অসাধারণ পারফরম্যান্সে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন ফ্রেঞ্চ অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার অঁতোয়ান গ্রিজমান। লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে ২০১৬ সালের ফিফার বর্ষসেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় এসেছিলেন একবার। এছাড়া চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ২০১৬ সালের ইউরোর ফাইনালে ব্যর্থতার হিসাব নিশ্চয়ই মেলাতে চাইবেন ২৬ বছর বয়সী এ ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড। এই সময়ের দারুণ পারফর্মার নিজেও তাকিয়ে রাশিয়ার দিকে।

কিলিয়ান এমবাপে (ফ্রান্স)
প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর (পিএসজি) হয়ে খেলা ১৯ বছর বয়সী ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড গত ১৯ মাসেই বিশ্বের সবচেয়ে উদীয়মান খেলোয়াড় হিসাবে আবির্ভূত হয়েছেন। ফ্রান্সের বর্ষসেরা তরুণ খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েই ঘোষণা করেছেন নিজের ভবিষ্যত স্বপ্নের কথা। কিলিয়ান এমবাপে বলেছেন, চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় ও বিশ্বকাপের সাফল্য ২০১৮ সালকে দারুণ করে তুলবে। এই টগবগে ফরাসির ওপর রাশিয়ায় তাই চোখ রাখতেই হবে।

আলভারো মোরাতা (স্পেন)
হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়েছিলেন। গত অক্টোবরে তাই দুই ম্যাচ মিস করলেন। ফিরেই চেলসির স্ট্রাইকার স্পেনের হয়ে টানা চার ম্যাচে গোল করলেন। ২৫ বছর বয়সী আলভারো মোরাতা বিশ্বকাপের সাবেক চ্যাম্পিয়ন স্পেনের আক্রমণের বড় ভরসা। রাশিয়ার বিশ্বকাপে তিনি লাইমলাইটেই থাকবেন বলে মনে হচ্ছে।

টিমো ওয়ার্নার (জার্মানি)
গত বছরের জুনে জার্মানিকে কনফেডারেশন্স কাপ জয়ে পথ দেখিয়ে নিজেকে এর মধ্যে প্রমাণ করেছেন ২১ বছর বয়সী নবীন তারকা টিমো ওয়ার্নার। কনফেডারেশন্স কাপে গোল্ডেন বুট জেতা এ তরুণ স্ট্রাইকার নিশ্চয়ই বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের আবার সাফল্য এনে দিতে চাইবেন। রাশিয়ার বিশ্ব আসরেও জিততে চাইবেন কোন পুরস্কার।

ইডেন হ্যাজার্ড (বেলজিয়াম)
রাশিয়া বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের প্রধান অস্ত্র চেলসি তারকা ইডেন হ্যাজার্ড। ২৬ বছর বয়সী এ উইঙ্গারের চোখ এখন রিয়াল মাদ্রিদের দিকে। তাকে ধরে রাখতে সাপ্তাহিক ৩ লাখ ৪০ হাজার ইউরো বেতনের লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছে বর্তমান ক্লাব চেলসি। বেলজিয়ামের আশা গোড়ালির ইনজুরি কাটিয়ে দ্রুতই পুরো ফর্মে ফিরবেন হ্যাজার্ড।

হ্যারি কেন (ইংল্যান্ড)
রাশিয়ার বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের নেতৃত্বে দেখা যেতে পারে টটেনহাম হটস্পারের তারকা হ্যারি কেনকে। ওয়েইন রুনির জায়গাটা এখন তার। গত বছর ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ইংলিশ কিংবদন্তি অ্যালেন শিয়ারারের এক ক্যালেন্ডার বছরের সর্বোচ্চ গোলের ২২ বছর পুরোনো রেকর্ড ভেঙে ফেলেন তিনি। সম্প্রতি ২০১৭ সালের ইউরোপের সর্বাধিক গোলদাতা হিসেবে মেসিকে পেছনে ফেলেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

WordPress spam blocked by CleanTalk.