13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের ইতিহাসে একটি মাইলফলক ছবি ‘রূপবান’

Rai Kishori
March 15, 2019 8:41 am
Link Copied!

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের রূপবান-কন্যা সুজাতা। ১৯৬৫ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত তিনি ছিলেন এদেশের শীর্ষ নায়িকাদের একজন।

সুজাতার জন্ম কুষ্টিয়া শহরে। তার প্রকৃত নাম ছিল তন্দ্রা মজুমদার। কুষ্টিয়া থেকে ঢাকায় এসে নাটক ও থিয়েটারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তন্দ্রা। সেসময় নারায়ণ চক্রবর্তী, নাজমুল হুদা বাচ্চু, আমজাদ হোসেনসহ আরও অনেকের নির্দেশনায় মঞ্চনাটকে অভিনয় করতেন তিনি।

আমজাদ হোসেনই পরিচালক সালাহউদ্দিনের সঙ্গে ‘তন্দ্রা’কে পরিচয় করিয়ে দিলেন। তন্দ্রা নাম পরিবর্তন করে সালাউদ্দিন ১৯৬৩ সালে তার পরিচালিত ‘ধারাপাত’ ছবিতে সহ-নায়িকা হিসেবে নিয়ে নাম রাখেন ‘সুজাতা’। এরপর ১৯৬৫ সালের ৫ নভেম্বর মুক্তি পায় এদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে একটি মাইলফলক ছবি ‘রূপবান’। এরপর আর তাকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। আজিম-সুজাতা জুটি একসময় এদেশের জনপ্রিয় জুটি হিসেবে খ্যাতি লাভ করে। পরবর্তীতে চিত্রনায়ক আজিমের সঙ্গে তিনি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী এখন ভালো নেই। পশ্চিম রামপুরার মহানগর আবাসিকের ছোট্ট একটি ভাড়া বাসায় ছেলে ফয়সাল আজিম আর দুই নাতি ফারদিন আজিম ও আবিয়াজ আজিমকে নিয়ে চরম আর্থিক সংকটে কাটছে তার দিন।
সুজাতা বলেন আমার বড় নাতি ‘ও’ লেভেলে পড়ছে। জানুয়ারিতে তার পরীক্ষা। অর্থের অভাবে এখনো পরীক্ষার ফিস জমা দিতে পারিনি। জানি না ও পরীক্ষা দিতে পারবে কিনা। দীর্ঘনিঃশ্বাস ফেলে তিনি বলেন, ঘর ভাড়া জমে গেছে অনেক। মান সম্মান নিয়ে কীভাবে বাঁচব জানি না।

হাটখোলার নিজের বাড়িটি ২০০৩ সালে বিক্রি করে স্বামী অভিনেতা আজিমের চিকিৎসা করিয়েছি। এখন আমি নিঃস্ব। শিল্পী ঐক্যজোটের উপদেষ্টা অভিনেতা ডি এ তায়েব আর জোটের আহ্বায়ক নাট্যনির্মাতা জিএম সৈকত আমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। তাদের নাটকে কাজ করব। তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। শুধু এ দুইজনের নাটকে কাজ করে তো আর চলতে পারব না তাই সবার কাছে অনুরোধ- আমাকে কাজ দিন। চলচ্চিত্র কিংবা নাটক যাই হোক।

 চিত্রাভিনেত্রী সুজাতা অভিনয়ে সক্রিয় রয়েছেন। অসংখ্য দর্শকনন্দিত চলচ্চিত্রের এই অভিনেত্রীকে ‘জয়া আলোকিত নারী ২০১৭’ সম্মাননা প্রদান করে।

http://www.anandalokfoundation.com/