বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ধামইরহাটে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত ধামইরহাটে ফিল্মী কায়দায় ৪ বিঘা জমির রবিশষ্য নিধন, ২ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদযাপিত শার্শায় উপজেলা প্রশাসনের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত ২০ হাজার মার্কিন ডলার সহ বেনাপোলে পাসপোর্টযাত্রী নারী আটক কলকাতা থেকে ৮ সদস্যের একটি বাইসাইকেল র‌্যালী বাংলাদেশে “কেরানীগঞ্জের অগ্নিদগ্ধদের চিকিৎসা ব্যয় সরকার বহন করবে” -স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, এমপি ঝিনাইদহে শ্রেষ্ঠ সহকারি শিক্ষিকা মল্লিকা কুন্ডু ঝিনাইদহে অস্বাস্থ্যকর খোলা খাবার বিক্রি বন্ধে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত

অযোধ্যার বিতর্কিত জমিতেই রাম মন্দির, মসজিদের জন্য অন্য জমি

ভারতের অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে মন্দির নির্মাণের রায় দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। এছাড়া মুসলিমদের জন্য অযোধ্যার অন্য স্থানে পাঁচ একর জায়গা বরাদ্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ স্পর্শকাতর এই মামলাটির রায় ঘোষণা করেন।

আজ শনিবার, আদালত তার রায়ে ঐক্যমতের ভিত্তিতে শিয়া সংগঠনের আবেদন ও নির্মোহী আখড়ার দাবিও খারিজ করে এ রায় দিয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, “সম্ভাব্যতার ভারসাম্য বিচার করলে প্রমাণাদি থেকে স্পষ্ট ইঙ্গিত মিলছে যে হিন্দুরা বাইরের চবুতরায় ১৮৫৭ সালে ইট ও জাফরির দেওয়ান তৈরি করা সত্ত্বেও নিরবচ্ছিন্ন ভাবে পূজা চালিয়ে গিয়েছেন।”

“১৮৫৭ সালে ব্রিটিশরা অযোধ্যা দখলের আগে পর্যন্ত হিন্দুরা যে সেখানে পূজা করত এটার প্রমাণ মিলেছে।”

“ষোড়শ শতাব্দীতে নির্মাণের সময়কাল থেকে ১৮৫৭ সালের আগে পর্যন্ত একমাত্র তারাই যে ভেতরের অংশের কর্তৃত্ব ভোগ করত, সে কথা প্রমাণ করতে পারেনি মুসলিম পক্ষ।”

আদালত তার রায়ে বলেন, শর্তসাপেক্ষে ২.৭৭ একর বিতর্কিত জমি পাবেন হিন্দুরা।  একইসঙ্গে কেন্দ্রকে তিন মাসের মধ্যে ওই জমিতে মন্দির তৈরির জন্য ট্রাস্ট গঠনের সময়সীমা বেঁধে দিলো আদালত। ট্রাস্টের নজরদারিতেই তৈরি হবে রামমন্দির। তবে ট্রাস্টে রাখতে হবে নিমোর্হী আখড়ার প্রতিনিধিদের।

রায়ের শুরুতে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, কারও বিশ্বাস যেন অন্যের অধিকার না হরণ করে। সংবিধান সব ধর্মকে সমান অধিকার দিয়েছে। তাই মসজিদ তৈরির জন্য সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে বিকল্প ৫ একর জমি অযোধ্যাতেই দেয়া হবে।

এর আগে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, এই রায় কারও জন্য ‘জয় বা পরাজয়’ হবে না। সিরিজ টুইট বার্তায় মোদি সবাইকে শান্তি ও ঐক্য বজায় রাখা আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ভারতের ঐতিহ্য মেনে শান্তি ও ঐক্য বজায় রাখা মানুষজনের অগ্রাধিকার হওয়া উচিত।

10:54:16 হিন্দুরা মনে করে ডোমের নীচেই ছিল রামের জন্মস্থান। এটা একটা বিশ্বাস জানাচ্ছেন সুপ্রিম কোর্ট।

10:57:18 ১৮৫৬ পর্যন্ত নমাজ পড়ার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায় না। পরবর্তীকালে প্রার্থনার জন্য ব্যবহার করা হত সেই মসজিদ বললেন সুপ্রিম কোর্ট।

10:59:44 ১৮৫৫ সাল পর্যন্ত প্রমান পাওয়া যায় যে হিন্দুরা ওই স্থানের অন্দরেও প্রবেশ করেছে বলছেন ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট।

প্রথমে তিনজন মধ্যস্থতাকারী দেওয়া হয় এই মামলার জন্য। পরে, গত ৬ অগস্ট থেকে প্রত্যেকদিন এই মামলার শুনানি শুরু করে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপরির বেঞ্চ। ১৬ অক্টোবর সেই শুনানি শেষ হয়।

উল্লেখ্য, রায় ঘোষণার আগে সব রাজ্যকে সতর্ক করেছে কেন্দ্র। অযোধ্যা-সহ গোটা উত্তরপ্রদেশ মুড়ে ফেলা হয়েছে কড়া নিরাপত্তার চাদরে। নিরাপত্তার প্রবল কড়াকড়ি। অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার আগে দুর্গের চেহারা নিয়েছে মন্দিরনগরী। সব রাজ্যকে সতর্ক করে ইতিমধ্যেই চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র। নজর রাখতে বলা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। উত্তরপ্রদেশে পৌঁছে গেছে চার হাজার আধাসেনা। শুধুমাত্র অযোধ্যা জেলাতেই মোতায়েন হয়েছে ১২ হাজার পুলিশ।

যেহেতু এ.এস.আই প্রমাণ করতে পারেননি যে মসজিদ ভেঙ্গে মন্দির করা হয়েছিল তাই এই জায়গা রাম মন্দিরের জন্যই। মসজিদ বানানোর জন্য অন্য জায়গা দেয়া হবে।  সেই সাথে সেন্ট্রাল গভর্নমেন্টকে ৩ মাসের মদ্ধে একটা ট্রাস্ট বোর্ড বানানোর নির্দেশ দিয়েছে কোর্ট।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 News Time Media Ltd.
IT & Technical Support: BiswaJit