বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:২০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
শিক্ষার্থীদের জন্য বিদ্যালয়ে পৃথক ও স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট নিশ্চিত করা হবে -স্থানীয় সরকার মন্ত্রী   Foreign Minister inaugurates Smart NID Card in Abu Dhabi কালীগঞ্জে লবণ নিয়ে তুলকালাম ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ॥ গুজবের বিরুদ্ধে প্রচার মাইক কালীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের নবনির্বাচিত সভাপতি সম্পাদকের সাথে নেতাকর্মীদের মতবিনিময় পল্লী চেতনা আপেল প্রকল্পের জেন্ডার সমতা ও সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক প্রশিক্ষণ লম্বা লাইনে উচ্চ মূল্যে লবণ ক্রয় করায় বাজারের লবণ ফুরাতে বসেছে ময়না দেবনাথের মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মানব বন্ধন জবে লবনের দাম বৃদ্ধি উলিপুরে দলবেঁধে লবন কিনতে বাজারে ক্রেতার ভীড় ফুলবাড়ীতে ইউ পি চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রতিবন্ধী নারী নির্যাতিত বাশাইলে হেমন্তকালীন কবিতা সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

পেডোফিলিয়া বা শিশু যৌন নির্যাতন যা শিশুর জীবন শেষ করে দেয়

শিশু যৌন নির্যাতন

শিশুদের প্রতি যৌন আকর্ষণ হল পেডোফিলিয়া। এটি একটি মানসিক বিকৃতি। একজন পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তিযাদের সন্তান রয়েছে তারা এমন কাজ করেন৷ ১৮ বছর এর নিচের বাচ্চাদের সাথে এগুলো বেশি হয়ে থাকে । যদি ভিকটিমের কনসেন্ট নিয়েও যৌনকর্ম করে তবুও এটাকে দোষী হিসেবেই ধরা হয়।

পেডোফেলিকদের শিকার কারা?

অবুঝ (একদিনের বাচ্চা থেকে তিন বছরের বাচ্চা) এরা ের শিকার বেশি হয়ে থাকে।আবার দরিদ্র(যাদের পিতামাতার খাবার কিংবা খেলনা ইত্যাদি কিনে দেবার সাধ্য থাকে না)। মানসিকরোগে আক্রান্ত শিশুর সাথেও করে থাকে। জ্ঞানহীন শিশু (হাসপাতালে জ্ঞানহীন শিশুকেও হাসপাতালের কর্মচারী দ্বারা ধর্ষনের ইতিহাস আছে)।

শিকার শুধু মেয়ে হবে এমন নয়।দেখা গেছে – ২০% ক্ষেত্রে ছেলেরাও ধর্ষনের শিকার হয়। পেডোফেলিক বা দোষী যে ব্যক্তি যে শুধু ছেলে হবে তা নয়। অনেক মহিলা আছেন যারা পেডোফেলিক হয়।

কেন এমন করে?

পেডোফেলিকদের একটি অতীত থাকে, যেখানে নিজেরাই একটা সময় ভিকটিম ছিল।শৈশবে এই নিপীড়নের এই অভিজ্ঞতা ছাপ ফেলতে পারে তার সারা জীবনে, তার মধ্যে দেখা দিতে পারে অস্বাভাবিকতা।

প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন কিংবা ইরেকটাইল ডিজফাংশনে এরা ভুগতে পারে। ফলে পুর্নবয়স্ক নারীদের সাথে সফল যৌন সঙ্গমে ব্যর্থ। যৌন পার্টনারের সাথে এদের বাজে অভিজ্ঞতার যৌনসম্পর্ক থাকে। এরা মানসিকভাবে দূর্বল ও হতাশাগ্রস্থ মানুষ। এরা দীর্ঘদিনের একাকীত্বে ভোগে ফলে নারীদের সাথে মিশতে পারে না। বন্ধু-আত্মীয়-সমাজে গ্রহণযোগ্যতা কম। অনেকে মাদকাসক্ত হয়।

এটি এক ধরণের ‘এডভেঞ্চার’ টাইপের অনুভূতি দেয় পেডোফিলিকদের মধ্যে। এডভেঞ্চারের অনুভূতির মত তারা ধীরে ধীরে মাংসখেকো বাঘের মত সীমা ছাড়িয়ে যায়।

কীভাবে বুঝবেন আপনার সন্তান কোন পেডোফেলিকের শিকার হয়েছে?

পেডোফেলিকের শিকার ব্যক্তির ঘুমের সমস্যা হবে। স্কুলের প্রতি অনীহা তৈরি হবে। কাজে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। তার আচরণে অস্বাভাবিকতা দেখা দিবে(ভয়,আতংক,উদাসীন)। তার মেজাজ খিটখিটে হয়ে যাবে। সে কোন কিছুতেই আনন্দ পাবে না।

পেডোফেলিকদের শিকার একটি শিশুর উপর সারাজীবনের জন্য যেসব প্রভাব পড়তে পারে তা হলঃ

বিষণ্ণতা, মাদকাসক্তি, আত্মহত্যা প্রবনতা, ক্রিমিনাল অ্যাক্টিভিটি, আত্ম-মর্যাদাবোধের অভাব ইত্যাদি।

কীভাবে রোধ করবেন?

আপনার শিশুর খেলাধুলার স্থান রাখুন দৃষ্টিসীমার মাঝেই রাখুন। পরিচিত কিংবা অপরিচিত মানুষের কোলে বসতে দিবেন না। আপনার সন্তানকে কেউ চুমু খেতে চাইলে নিরুৎসাহিত করুন। আত্মীয় আসলে কখনোই একই বিছানায় শুতে পাঠাবেন না। আপনার শিশু কারো সাথে যেতে না চাইলে, কারো প্রতি বিতৃষ্ণা দেখালে ভদ্রতাবশত জোরাজুরি করবেন না। আপনার সন্তানকে পিতা-মাতার কাছ থেকে কিছু লুকিয়ে রাখার স্বভাব থেকে মুক্ত করুন। হয়ে যান বেস্ট ফ্রেন্ড। তার সাথে বন্ধুর মত সকল ধরণের আলোচনা করুন। সেটা স্মোকিং-যৌণ শিক্ষা সবকিছুই হতে পারে। কেউ আদিখ্যেতা দেখিয়ে জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করলে বা খাবার লোভ দেখিয়ে কাছে ডাকলে বস খেলনা দেবার প্রতিশ্রুতি দেখিয়ে ঘুরতে নিয়ে যেতে চাইলে সতর্ক থাকুন।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 News Time Media Ltd.
IT & Technical Support: BiswaJit