শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৫১ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :

প্রাথমিক শিক্ষকদের উন্নীত গ্রেডের পিক্সেশন হবে উচ্চধাপে -প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ

বেতন বৈষম্য নিরসনে আপনাদের কাঙ্খিত গ্রেড পর্যায়ক্রমে পূরণ করা হবে। এজন্য আমাদেরকে সময় দিতে হবে। তবে যে গ্রেডেই বেতন নির্ধারণ করা হোক না কেন বেতন ফিক্সেশনের সময় ধাপে না মিললে উচ্চধাপে নির্ধারণ করা হবে। প্রধান শিক্ষকদের ১০ গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১ গ্রেড দাবি যুক্তিসঙ্গত তবে তা সময় সাপেক্ষ। বর্তমান নিয়োগ বিধি/২০১৯ অনুযায়ী বেতন নির্ধারণ করলে অনেক শিক্ষক উন্নীত গ্রেডে পাবেন না। বলেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন।

আজ ১৯ নভেম্বর দুপুর ১২ টায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে  বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের ৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের সাথে আলোচনাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনাকালে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ প্রাথমিক শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারি শিক্ষকদের ১১ গ্রেডে বেতন নির্ধারণের দাবি জানান এবং উন্নীত গ্রেডে বেতন নির্ধারণের সময় বিএসআর এর ৪২/১/২ এর ধারানুসারে নিম্নধাপে বেতন নির্ধারণের কারণে সকল সহকারী শিক্ষকদের মূল বেতন কমে যাবে বলে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন।

এরপর শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশ সচিবালয়ে অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার এর সাথে আলোচনায় বসেন।

জবাবে অর্থ সচিব বলেন ১০ম গ্রেড ও ১১তম গ্রেডের বিষয়টি নিয়ে এ মুহুর্তে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ নেই। এই বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাথে আমাদের আলোচনা হয়েছে এবং ধারাবাহিকভাবে চলবে। তবে এ মুহুর্তে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে প্রেরিত ১১ ও ১৩ গ্রেডের সম্মতিপত্র অনুযায়ী প্রাথমিক শিক্ষকেরা যদি প্রস্তাবনা পাঠায় তা দ্রুত কার্যকর করা হবে এবং শিক্ষকদের উন্নীত গ্রেডে বেতন ফিক্সেশনে বেতন যেন কমে না যায় সেজন্য নিম্নধাপের পরিবর্তে উচ্চ ধাপে বেতন নির্ধারণ করা হবে। বাকি সমস্যাগুলো পর্যায়ক্রমে নিরসন করা হবে।

এরপর শিক্ষক নেতৃবৃন্দ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন ও প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন মহোদয়ের সাথে আলোচনায় বসেন।

এ বিষয়টি সচিবের কাছে উল্লেখ করা হলে সচিব মহোদয়গণ বলেন বিষয়টি বিবেচনায় আছে। এরপর শিক্ষক নেতৃবৃন্দ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন এমপির সাথে বৈঠক করেন। প্রতিমন্ত্রী মহোদয় শিক্ষকদের জানান, আপনাদের সাক্ষাতের বিষয়টি আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করেছি। প্রধানমন্ত্রী বিদেশ থেকে ফিরে এলেই সাক্ষাতের সময় পাওয়া যাবে। সেখানে আপনাদের ১০ম ও ১১ গ্রেডের বিষয়টি আলোচনা করা হবে।

এর আগে ১৫ নভেম্বর ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব জনাব সাজ্জাদুল হাসানের সাথে তার বাসভবনে শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসনে বৈঠক করেন। সেখানে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ ১০ ও ১১ গ্রেডের জোরালো দাবি উপস্থাপন করেন।

আলোচনা শেষে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডের দাবিতে অনড় আছি এবং এই প্রস্তাবনা হতে হবে উচ্চ ধাপে।

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মো. আনিসুর রহমান, সদস্য সচিব মোহাম্মদ শামছুদ্দীন মাসুদ, প্রধান মুখপাত্র মো. বদরুল আলম, প্রধান উপদেষ্টা আনোয়ারুল ইসলাম তোতা, মুখপাত্র এনএ সিদ্দিকী বদিউল, প্রধান সম্পাদক আতিকুল ইসলাম, সদস্য বেগম বাঁধন খান ববি, মো. মশিউর আলম, জাকির হোসেন প্রমুখ।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 News Time Media Ltd.
IT & Technical Support: BiswaJit