রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:২২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
বুড়ি ভৈরব নদী দখল করে পুকুর তৈরি বাংলা ও ইংরেজি ভাষা জানা রোবট আবিস্কার করলো শুভ কর্মকার গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যসেবায় নবীন চিকিৎসকদের কাজ করতে হবে -স্বাস্থ্যমন্ত্রী মৌলভীবাজারে শ্রীগীতা জয়ন্তী ও পার্থ সারথি পূজা শুরু রংপুরে দুই সন্তানসহ মহিলার লাশ উদ্ধার আদালতের নির্দেশে কমলগঞ্জে ৫ মাস পর কবর থেকে তরুণীর লাশ উত্তোলন কুড়িগ্রামে গ্রাম আদালত বিষয়ক রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ প্রধানমন্ত্রীর নিকট থেকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেল যারা ক্যাসিনো, অর্থপাচারের রাঘব বোয়ালদের নাম শীঘ্রই প্রকাশঃ দুদক চেয়ারম্যান নালিশী পার্টিতে পরিণত হয়ে দেশে-বিদেশে নালিশ করে বেড়াচ্ছে বিএনপি

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এর সংবাদ সম্মেলন সম্পন্ন

সংবাদ সম্মেলন সম্পন্ন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নির্দেশনা উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে অগ্নিসংযোগকারীর ছেলে, অনুপ্রবেশকারী, ভূমিদস্যু ও নদী দখলদারকে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক প্রদানের প্রতিবাদ জানিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড।

আজ মঙ্গলবার (১৯নভেম্বর) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই প্রতিবাদ জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জনাব মেহেদী হাসান।

উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম রেজা, অর্থ সম্পাদক মাধবি ইয়াসমিন রুমা, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সম্পাদক মাকসুদা সুলতানা ঐক্য ও সদস্য খায়রুল মামুন, সহকারী এটর্নী জেনারেল এস আর সিদ্দিকী সাঈদ, লেখক ও চলচ্চিত্রকার মাহমুদ দিদার প্রমুখ। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মেহেদী হাসান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসাবে সম্প্রতি কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি হতে অনুপ্রবেশকারী, ভূমিদস্যু, নদী দখলবাজ এবং মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় অগ্নিসংযোগকারীর পুত্র আব্দুল খালেককে নৌকা প্রতীক প্রদান করা হয়েছে। উক্ত আব্দুল খালেক ইতিপূর্বে শিবিরের সক্রিয় কর্মী এবং সংশ্লিষ্ট জেলা ও উপজেলা বিএনপির সদস্য। আব্দুল খালেককে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেয়ায় আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।”

তিনি আরো বলেন, “শাপলাপুর ইউনিয়নে প্রার্থী হিসাবে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম নূরুল আমিন হিলালী এর পুত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র ও বিশিষ্ট টিভি সাংবাদিক সালাহ উদ্দিন হেলালী কমল নৌকা প্রতীক প্রার্থনা করলে তৃণমূল হতে নাম প্রেরণ করা হলেও ও তাকে সহ তৃণমূল প্রস্তাবিত অন্য প্রার্থীদের উপেক্ষা করে কোনো বিবেচনায় অনুপ্রবেশকারী এবং নদী দখলদার হিসাবে অভিযুক্ত বিতর্কিত ব্যক্তিকে কেন নৌকা প্রতীক প্রদান করা হলো সেটা আমরা জানতে আগ্রহী। মেহেদী হাসান আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নির্দেশনা স্বত্তেও নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অনুপ্রবেশকারীকে মনোনয়ন প্রদান শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের অবমাননা।”সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সহকারী এর্টনি জেনারেল এস আর সিদ্দিকী সাঈফ ২০১৬ সালের ১৩৯৮৯ নং রিট পিটিশনের মহামান্য হাইকোর্ট কর্তৃক প্রদত্ত রায়ের ১৫ নাম্বার নির্দেশনা পড়ে শোনান।

সংবাদ সম্মেলনে তিন দফা দাবি তোলা হয়। দাবিতে বলা হয়- অনতিবিলম্বে আওয়ামী লীগ এবং এর সকল সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন সমূহের সর্ব পর্যায়ে বিভিন্ন সময়ে অনুপ্রবেশকারীদের নাম, পদবী, ঠিকানা সহ পূর্ণাঙ্গ তালিকা সকল গণমাধ্যমে প্রকাশ সহ সংগঠনের পক্ষ থেকে পুস্তিকা আকারে প্রকাশ করা হোক।

স্বাধীনতা বিরোধীদের সন্তান ও নাতি-নাতনি সহ বিএনপি,জায়ামাত-শিবির চক্রের সদস্য, দুর্নীতিবাজ, মাদক ব্যবসায়ী-সেবন কারী ব্যক্তিদের দলের সর্ব পর্যায়ে সম্মেলনে যাতে প্রার্থী, কাউন্সিলর ও ডেলিগেট হতে না পারে সে ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হোক। অন্যান্য দল থেকে আগত নেতা-কর্মীদের ন্যুনতম ১০ বছর কোনো পদে পদায়ন করা হবে না মর্মে আওয়ামী লীগ এর গঠণতন্ত্রে সুস্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করা হোক।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 News Time Media Ltd.
IT & Technical Support: BiswaJit