13yercelebration
ঢাকা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মিয়ানমারে গিয়ে রোহিঙ্গা শব্দটিই ব্যবহার করলেন না পোপ ফ্রান্সিস

admin
November 28, 2017 9:19 pm
Link Copied!

নিউজ ডেস্কঃ  মিয়ানমার প্রশাসনের আহ্বানেই সাড়া দিলেন পোপ ফ্রান্সিস। ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহার না করতে মিয়ানমার সফরের আগেই তাকে অনুরোধ করা হয়। বিশ্বব্যাপী মানবাধিকার সংগঠনগুলো ‘রোহিঙ্গা’ শব্দ ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছিল।

মঙ্গলবার মিয়ানমারের রাজধানী নেইপিদোতে দেয়া গুরুত্বপূর্ণ বক্তৃতায় নির্দিষ্টভাবে রোহিঙ্গাদের কথা উল্লেখ না করে পোপ ‘প্রত্যেক নৃগোষ্ঠীর প্রতি সম্মানের’ আহ্বান জানান। খবর বিবিসি, সিএনএনের।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠকের পর পোপ ফ্রান্সিস ওই বক্তৃতা দেন।

পোপ ফ্রান্সিস বলেন, মিয়ানমারের ভবিষ্যৎ হবে শান্তিপূর্ণ। আর এ শান্তির জন্য সমাজের প্রত্যেক সদস্যের মর্যাদা ও অধিকারের প্রতি সম্মান দেখানো প্রয়োজন। প্রত্যেক নৃগোষ্ঠী ও তাদের পরিচয়ের প্রতি সম্মান দেখাতে হবে। আইনের প্রতি সম্মান এবং সর্বপরি গণতন্ত্রের প্রতি সম্মান। যেগুলো মিয়ানমারে শান্তি নিয়ে আসবে।

পোপ ফ্রান্সিস রাখাইনে জাতিগত নিধনের বিষয়টি এড়িয়ে গেলেও বলেছেন এ সংকট সমাধানে ধর্মের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

সু চিও তার দেয়া ভাষণে রোহিঙ্গাদের বিষয়টি এড়িয়ে যান। তবে রাখাইন সংকটের বিষয়টি বলেছেন।

সু চি বলেন, রাখাইনে সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক দীর্ঘ সমস্যার কারণে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে ভারসাম্য ও সহযোগিতায় শিথিলতা এসেছে। তবে আমাদের বন্ধুদের সহায়তায় আমরা এগুলোর সমাধান করতে পারব।

এর আগে মিয়ানমার সফরকালে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি উচ্চারণ না করতে পোপের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কার্ডিনাল চার্লস মং বো। কার্ডিনাল চার্লস মং মিয়ানমারের বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনের আর্চবিশপের দায়িত্ব পালন করছেন।

তিন দিনের সফরে এখন মিয়ানমার রয়েছেন পোপ ফ্রান্সিস। সোমবার সফরের প্রথম দিনে তিনি মিয়ানমারের সেনাপ্রধান  মিন অং হেইংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই বৈঠক শেষে এক ফেসবুক পোস্টে সেনাপ্রধান মিন বলেন, রাখাইনে ধর্মের ভিত্তিতে কোনো বৈষম্য করা হয়নি।

বৌদ্ধ প্রধান দেশ মিয়ানমারে প্রথমবারের মতো কোনো পোপ সফরে এসেছেন।

উল্লেখ্য, রাখাইনে দেশটির সেনাবাহিনীর নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

http://www.anandalokfoundation.com/