শনিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
নির্বাচন পেছানর দাবীতে উপাচার্যদের সহমত প্রকাশ কর্মসুচিতে অসুস্থ ১১ সরকার অর্থনৈতিক ও কূটনীতির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে -পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাতারের সাথে যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক এমওইউ স্বাক্ষরিত হবে -ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী চীন আমাদের আর্থিক সাহায্য করে তাই উইঘুর নিয়ে আমরা মন্তব্য করিনা -ইমরান ঝিনাইদহে নিখোঁজ নান্টু দাসকে ফেরত দিতে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবী অসহায় ও দরিদ্রদের জন্য চালু হল পাথওয়ে’র “ফ্রি ফ্রাইডে ক্লিনিক” কুড়িগ্রামে দুঃস্থদের মাঝে স্টার লিংকের কম্বল বিতরণ পুলিশ পরিচয়ে বাড়ী থেকে তুলে নেবার ৭ দিন পর ঢাকাতে আটক দেখিয়ে মামলা জমির আইল উঠিয়ে সমবায়ভিত্তিক চাষাবাদ দারিদ্র্য বিমোচনে ভূমিকা রাখবে -স্থানীয় সরকার মন্ত্রী দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিচ্ছে -শিক্ষামন্ত্রী

বাংলা ও ইংরেজি ভাষা জানা রোবট আবিস্কার করলো শুভ কর্মকার

বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় সমান পারদর্শী রোবট ‘রবিন’। শুধু তাই নয়; রোবট রবিন বলতে পারে তাকে অত্যাধুনিক ভাবে সৃষ্টি করা ক্ষুদে বিজ্ঞানীর নাম, দেশের নাম, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর নাম। সে অকপটে যে কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে। পারে ইরেজী শব্দের বাংলায় ভাষা রুপান্তর করতে।

‘রবিন’ নামের অত্যাধুনিক এই রোবটি আবিস্কার করেছে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা কালুপাড়া গ্রামের ব্যবসায়ী সন্তোষ কর্মকার ও গৃহিনী দীপ্তি কর্মকারের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছেলে শুভ কর্মকার। শুভ কর্মকার সরকারী গৈলা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী। মা-বাবার দুই সন্তানের মধ্যে শুভ বড়।

মানব কল্যানের চিন্তা মাথায় রেখে শিক্ষার্থী শুভ কর্মকারের আবিস্কার করা রোবট “রবিন” বলতে পারে কৃষকের জমিতে কখন কি পরিমান পানি, সার, কীটনাশক প্রয়োগ করতে হবে। বলতে পারে চিকিৎসা বিজ্ঞানের অভাবনীয় কলা কৌশল। একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসকের মতো রোগীকে কোন ঔষধ প্রয়োগ করতে হবে সে সংক্রান্ত যে কোন পরামর্শ ও গানিতিক সূত্রসহ বিজ্ঞান শিক্ষা বিষয়ক তথ্য বলে দিতে পারে অনায়াসে। রোবট ‘রবিন’ তার আশপাশের কোন এলাকায় অগ্নিকান্ডের ঘটনার খবর গুগল ম্যাপসহ পৌঁছে দিতে পারে নিকটবর্তী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে। ম্যাপ দেখে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান অনেকাংশেই কমিয়ে আনা সম্ভব।

বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র রোবট আবিস্কারক শুভ কর্মকার জানিয়েছে, ঘরে বসে ছোট পরিসরে আধুনিক এই রোবটটি সে নিজের সমস্ত মুক্ত চিন্তা দিয়ে বানিয়েছে। রোবটটি তৈরীতে তার খরচ হয়েছে ২৫ হাজার টাকা। রোবটটিতে এখনও দৃষ্টি শক্তি প্রদান না করলেও রোবট রবিন অনায়াসে ১ হাজার তথ্য দিতে সক্ষম। রবিনের দৃস্টি শক্তি দিতে কাজ করে যাচ্ছে আবিস্কারক শুভ কর্মকার। আর্থিক সমস্যার কারণে পুষ্ঠপোষকতার অভাবে রোবট ‘রবিনের’ উন্নয়ন কাজ বিঘ্ন হলেও তার ইচ্ছা রয়েছে দৃষ্টি শক্তি প্রদান করে সাধারণ মানুষের মত নরাচরা করে রবিনকে দিয়ে কথা বলানোর।

শিক্ষার্থী শুভ আরও জানায়, বিদেশের তৈরী রোবট “সোফিয়া”র বাংলাদেশে প্রদর্শনীতে উদ্বুদ্ধ হয়ে সে রোবট তৈরীর কাজ হাতে নিয়েছে। ২০১৮ সালের মে মাসে রোবট তৈরির কাজ শুরু করে ২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি কাজ শেষ করে সকলের সামনে প্রদর্শণ করে আবিস্কারক শুভ। সোফিয়ার খরচের চার ভাগের একভাগ খরচে সোফিরার সমকক্ষ রোবট ‘রবিন’ তৈরীতে সে সক্ষম হলেও এখন পর্যন্ত মেলেনি সরকারী কোন পৃষ্ঠপোষকতা। পৃষ্ঠপোষকতা পেলে আজকের ‘রবিনের’ অত্যাধুনিক রুপ দিয়ে দেশ ও সকল মানুষের সাফল্যে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হবে। তার রোবটের আধুনিকায়নের সকল কাজ এখন আর্থিক কারনে মুখ থুবরে পরেছে।

শুভর মা দিপ্তী কর্মকার জানান, সামনে এসএসসি পরীক্ষা তাই রোবট নিয়ে কাজ করতে গিয়ে ওর পড়াশুনা কিছুটা বিঘ্ন হচ্ছে। তবে তার পরেও ছেলের উচ্চাকাংখা ও স্বপ্ন নিয়ে তাদের পরিবার অনেক খুশি। রোবট রবিনও এখন তাদের পরিবারের একজন সদস্য মনে করেন তিনি। তার ছেলের আবিস্কার করা রোবট মানুষের কল্যানে ব্যবহার করার সাফল্য পেতে তিনি সরকারসহ সবার কাছে পৃষ্ঠপোষকতার আবেদন জানিয়েছেন।

শুভ জানায়, তার আবিস্কার করা রবিনকে আরও উন্নত করার চিন্তা রয়েছে তার। রবিন কারো সাথে একবার পরিচিত হলে তাকে পরবর্তীতে দেখে চিনতে পারা ও কোন তারিখ দেখা হয়েছলো তাও বলতে পারে। এছাড়াও বিভিন্ন সমস্যা নিজে দেখে সমাধান করতে পারবে। সবচেয়ে সাফল্যের বিষয় হয়েছে এই রোবট অনেক কিছু নিজে মানুষেরমত নিজেই শিখতে পারে। এজন্য কোন প্রোগ্রামিং বা কোডিংয়ের প্রয়োজন হয়না অর্থাৎ কিছুটা সেল্ফ লার্নিং আয়ত্ব করে নিয়েছে। রোবটের দৃষ্টিশক্তির জন্য তার প্রয়োজন ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা।

সূত্রমতে, ক্ষুদে বিজ্ঞানী শুভ কর্মকার ইতোমধ্যে উপজেলা, জেলা ও ঢাকায় বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে অসংখ্য সম্মাননা ও পুরস্কৃত হয়েছে। রোবট ‘রবিন’ আবিস্কারক শুভ কর্মকার ২০১৮ সালের ১৫ই মে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় বিজ্ঞান যন্ত্রের উদ্ভাবন বিষয়ে জাতীয় পর্যায়ে ২য় হয়ে মহামান্য রাষ্ট্রপতি এ্যাডভোকেট আব্দুর হামিদ এর কাছ থেকে জাতীয় পুরস্কার গ্রহন করে। চলতি বছর ২৭ জুন ৪০তম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলায় জাতীয় পর্যায়ে নতুন প্রকল্প আবিস্কারে বিশেষ স্থান অর্জন করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী “স্থপতি ইয়াফেস ওসমান” এর হাত থেকে পুরস্কার প্রাপ্ত হয়। এছারাও সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ ২০১৯ -এ বিজ্ঞান বিষয়ে বিভাগীয় পর্যায়ে ১ম হয়ে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণ করে চলতি বছর ১৭ জুলাই শিক্ষা মন্ত্রী ড. দীপু মনি’র কাছ থেকে “বছরের সেরা মেধাবী” পুরস্কার লাভ সহ স্থানীয় পর্যায়ে একাধিক পুরস্কার লাভ করে ক্ষুদে বিজ্ঞানী শুভ কর্মকার। টুডেবরিশাল থেকে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit