বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ০২:০৯ অপরাহ্ন


পত্নীতলায় জোরপূর্বক সংখ্যালঘুর অর্ধকোটি টাকার সম্পত্তি দখলের অভিযোগ

হিন্দু সম্পত্তি দখল

মো.আবু সাঈদ, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি ঃ নওগাঁর পত্নীতলায় গায়ের জোরে পলাশ কুমার নামে এক ব্যক্তির ১০শতক জমি জবরদখল করার পাঁয়তারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পত্নীতলা-নওগাঁ আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে অবস্থিত এই জমির বর্তমান বাজারমুল্য প্রায় অর্ধকোটি টাকা বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানান। ভুক্তভোগি পলাশ কুমার নিজের ক্রয় করা জমিতে ঘর তুলতে গিয়ে বাঁধার সম্মুখীন হলে প্রশাসনের দ্বারস্থ হন। সেখানে গিয়েও তিনি প্রতিকার না পেয়ে বর্তমানে চোখে সর্ষে ফুল দেখছেন এবং সম্পত্তি রক্ষায় প্রভাবশালীদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

সরেজমিনে অনুসন্ধানে জানা গেছে বদলগাছী উপজেলার ঠাকুরপাড়া গ্রামের পুলক চন্দ্রের পুত্র পলাশ কুমার ২৪/৭/১৯ তারিখে ৩৫৫৯/২০১৯ নং দলিল মুলে নজিপুর পৌরসভার বাঁদপঁইয়া মৌজায় সুনিল চন্দ্র সরকার ও অনাদি চন্দ্র সরকার নামে দুই সহোদরের নিকট থেকে ১০শতক জমি ক্রয় করেন। যার খতিয়ান নং-২১৫ এবং দাগ নং-৮৮৮। ২১৫নং খতিয়ানে ৩৫শতক জমি থাকলেও পলাশ কুমার ১০শতক ক্রয় করেন এবং ভোগদখল শুরু করেন। গত ৫/৮/২০১৯ তারিখে পলাশ কুমার উক্ত জমিতে টিন দিয়ে ঘর নির্মাণ করতে গেলে ধামইরহাট উপজেলার কাজীপুর গ্রামের ইকবাল হোসেনের দুই পুত্র গোলাম কিবরিয়া ও ইলিয়াস এবং নজিপুর মাদ্রাসা পাড়ার মৃত নিজাম উদ্দিনের পুত্র আলমাকস বাধা প্রদান করেন এবং ৬/৮/১৯ তারিখ সকালে টিনের অবকাঠামো ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেন। বর্তমানে গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাকস গংরা পলাশ চন্দ্রকে নানা ভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে জায়গা ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে বলে পলাশ চন্দ্র জানান।

ভুক্তভোগি পলাশ চন্দ্র অভিযোগে আরো জানান, জমির প্রকৃত মালিক ছিলো রসিক চন্দ্র সরকার। রসিক চন্দ্র মারা যাওয়ার পর তাই দুই সন্তান সুনিল চন্দ্র সরকার ও অনাদি চন্দ্র সরকারের নিকট হতে তিনি ১০শতক জমি ক্রয় করেন। অন্যদিকে রসিক চন্দ্রের নিকট আত্মীয়দের কাছ থেকে গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাকস গংরা একই খতিয়ানের ৯৪শতক জমি কেনেন এবং অন্যদাগে ভোগ দখল করে আসছিলেন। কিন্তু ৮৮৮ দাগের জমিতে তাদের কোন দখল ছিলনা। আমি জমি ক্রয় করার পূর্বে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে এবং খোঁজখবর নিয়ে জমি ক্রয় করেছি।

জমি কেনার পর ঘর নির্মাণ করতে গেলে উক্ত ব্যক্তিরা বাধা প্রদান করেন এবং প্রতি দাগে জমি নিবেন বলে আমার নির্মাণকৃত টিনের ঘর ভেঙ্গে দেন। গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাকস গংরা দাগে দাগে জমি নিলেও তাঁরা ২৮৮ দাগে ২শতকের বেশী জমি পাবেন না। এ পরিমাণ জমি উক্ত স্থানে পড়ে থাকলেও অহেতুক তাঁরা ঝামেলা তৈরী করছেন এবং আমার ক্রয়কৃত জমি জবরদখলের পাঁয়তারা করছেন।

পলাশ কুমার অভিযোগে আরো জানান, ঘটনার প্রতিকার চেয়ে গত ৬/৮/২০১৯ তারিখে পতœীতলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানা কর্ত্তৃপক্ষ উভয়পক্ষকে নিয়ে সমঝোতা বৈঠকে বসলেও গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাকস গংদের একগুয়েমির কারণে তা ভেস্তে যায়। ফারাজ অনুযায়ী তাঁরা ৮৮৮ দাগে ২শতক জমির মালিক হলেও ১০শতকের উপর দখল প্রতিষ্ঠা করতে চায়। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরণের সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা জানান, জমির মালিক সুনিল ও অনাদি চন্দ্র সরকার আগেই সব জমিজমা বিক্রি করে দিয়েছেন। তাঁরা বিক্রি করা জমি পুনরায় পলাশের নিকট বিক্রয় করেছেন। যেহেতু আমরা জমি আগে কিনেছি তাই আমরাই এই জমির প্রথম দাবিদার। আমরা অন্যায় ভাবে জোর করে কাহারো জমিতে দখল নিতে যাইনি।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে পতœীতলা থানা অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্র্তীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উভয় পার্টি একই ক্রেতার কাছ থেকে জমি ক্রয় করেছে। গোলাম কিবরিয়া, ইলিয়াস ও আলমাকস গংরা অন্য জায়গায় জমি ভোগদখল করলেও বর্তমানে তাঁরা পলাশের ক্রয়কৃত জায়গায় দখল নেওয়ার চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে আদালতে মামলা রয়েছে। এরপরও কোন ঘটনা ঘটলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

পুরাতন সংবাদ পডুন

SatSunMonTueWedThuFri
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930   
       
   1234
       
282930    
       
      1
       
     12
       
2930     
       
    123
25262728   
       
      1
9101112131415
30      
  12345
6789101112
272829    
       
   1234
2627282930  
       
1234567
891011121314
22232425262728
293031    
       
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৪-২০২০ || এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit
error: Content is protected !!