রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০২:০৫ অপরাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
ঝিনাইদহে বিভিন্ন যানবাহন থেকে হাইড্রোলিক হর্ন খুলে নিলো প্রশাসন মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মাঝেই ফাঁস হল ইরানের পরমাণু প্রস্তুতির গোপন চিঠি শাশুড়ি এবং স্ত্রী সহ দুই প্রতিবেশিকে খুন করে খুনির আত্মহত্যা হিন্দু সংস্কৃতির সুপ্রাচীন রীতি শঙ্খধ্বনি গৃহস্থের মঙ্গল বয়ে আনে পরমাণু চুক্তিতে আমেরিকাকে ফেরাতে ভারত বড় ভূমিকা নিতে পারে আশাবাদী ইরান ধার শোধে বাবার সহায়তায় ১৩ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ, রাজি না হলে নির্যাতন রক্তপাত ছাড়াই কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে ১৫ দেশের রাষ্ট্রদূতদের সন্তোষ প্রকাশ যুদ্ধ পরিস্থিতির মাঝেই মহাকাশ দখলে স্যাটেলাইট পাঠাচ্ছে ইরান কবর খুঁড়তেই বেরিয়ে এলো জীবন্ত নবজাতক ২ সন্তানের বেশি আর নয়, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রনে দেশজুড়ে প্রচারে নামল RSS

কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরীতে সরিষার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

রতি কান্ত রায়, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃকুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে বিস্তির্ন এলাকা জুরে কৃষকের মাঠ হলুদে ছেয়ে আছে। সরিষার ফুলে ভরে উঠেছে নাগেশ্বরী কচাকাটার মাঠ। মাঠ ভরা ফুল অার ফুল, ভরে যায় কৃষকের মন, আর মুখে তৃপ্তির হাসি আর আশার স্বপ্ন। এলাকা ঘুরে দেখা যায়,নাগেশ্বরীর কচাকাটা,নারায়নপুর নেওয়াশী, হাসনাবাদ,ভিতরবন্দের মাঠে মাঠে সরিষা ফুলের সমারহ।
প্রকৃতির নির্মল বাতাসে সরিষা ফুলের ঘ্রানে মাতাল হয়ে উরে বেরাচ্ছে মৌমাছি মধু সংগ্রহে। ফুলে ফুলে মৌমাছি আর গুন গুন শব্দে গেয়ে যাচ্ছে গান। সরিষার ফসলি জমির পাশ দিয়ে হেটে যেতে মনমুগ্ধ পরিবেশে কেরে নিচ্ছে মানুষের মন আর হৃদয় ছোয়া ঘ্রান। স্থানীয় কৃষকেরা জানান গেছে বন্যায় জমিতে ধান করতে না পারায় জমিতে আগাম নানা জাতের সরিষা চাষ করেছি যাতে  গেছে মৌসুমের ক্ষতি কিছুটা পুসিয়ে নিতে পারা যায়। এ ফসলটি স্বল্প মেয়াদী অল্প খরচে হয় তাই কৃষকের আগ্রহ বেশি।
জমিতে বীজ রোপনের প্রায় ৯০/৯৫দিনের ভিতরে ঘরে ফসল তোলা যায়,  যে পরিমান রাসায়নিক সার প্রয়োগ করা হয় তাতে বোরো মৌসুমে ধানের চাষে সার কম লাগে,এ ছাড়াও সরিষার পাতা ঝরে পরে জমিতে সবিজ সারের চাহিদা মেটায়। কাজেই কৃষকেরা অল্প খরচে বেশি লাভের আশায় সরিষা চাষে আগ্রহি বেশি। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামছুজ্জামান জানান নাগেশ্বরী কচাকাটা সরিষা চাষের উপযোগী জায়গা,এবারে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে মোট ৫৯০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে।  উপজেলার লক্ষ মাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে ২৩৮০হেক্টর। কৃষকেরা উন্নত জাতের
বারি-১৪,বারি-৯,বিনা-৯/১০এবং সরিষা-১৫, সোনালী সরিষা ৭৫,চাষ হয়। এসব সরিষা ৭৫-৮৫ দিনের মধ্যে ঘরে আসে। উপজেলার প্রায় ১৩০০কৃষকের মাঝে উপকরন বিতরন করা হয়। কৃষকদের কৃষি মাঠ পরাচর্যা করার দিক নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। প্রকৃতিক দূর্যোগ না হলে এবারের  কৃষকেরা সরিষার বাম্পার ফলনের আশা করছে।

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৯ এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি
IT & Technical Support: BiswaJit