কুমুদিনী হাসপাতালের জন্য অ্যাম্বুলেন্স ও চিকিৎসা সামগ্রী উপহার দিল ভারত

    নিউজ ডেস্ক
    October 14, 2021 7:11 pm
    Link Copied!

    কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্টের  জন্য একটি লাইফ সাপোর্ট  অ্যাম্বুলেন্স এবং অত্যাবশ্যকীয় চিকিৎসাসামগ্রী –অক্সিজেন সিলিন্ডার, শ্বাস-প্রশ্বাস সহায়ক সরঞ্জাম ইত্যাদি ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব রাজীব প্রসাদ সাহা এবং হাসপাতালটির পরিচালক ড. প্রদীপ কুমার রায়ের কাছে হস্তান্তর করেন ভারত সরকারের এবং জনগণের পক্ষে হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

    আজ ১৪ অক্টোবর ২০২১ তারিখে একটি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী মির্জাপুরের কুমুদিনী হাসপাতালকে উপহার দেওয়া হয়।

    সম্পূর্ণ নতুন এসএমএল ব্র্যান্ডের আধুনিক, জরুরি জীবন রক্ষাকারী যন্ত্রপাতি দ্বারা সজ্জিত অ্যাম্বুলেন্সটি চিকিৎসার জন্য হাসপাতালগামী রোগীদের মানসম্মত জরুরীসেবা এবং ট্রমা লাইফ সাপোর্ট প্রদান করতে প্যারামেডিক এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের সাহায্য করবে।

    ভারতের প্রধান মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী কর্তৃক ২০২১ সালের মার্চ মাসে তার বাংলাদেশ সফরকালে ঘোষণাকৃত ১০৯ টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স সরবরাহের সামগ্রিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে অ্যাম্বুলেন্সটি প্রদান করা হয়েছে। লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্সটি এবং চিকিৎসাসামগ্রীগুলো কুমুদিনী হাসপাতাল কর্তৃক মির্জাপুর,  টাঙ্গাইল এবং তার আশেপাশের মানুষের জন্য কোভিড মহামারীকালে এবং এর বাইরেও মানসম্মত চিকিৎসা সেবা প্রদানে সহায়তা করবে। লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্সটি মহামারী পরবর্তীকালেও বাংলাদেশের জনগণের জন্য কুমুদিনী হাসপাতালের মানসম্মত চিকিৎসাসেবার চলমান সম্প্রসারণকে শক্তিশালী করবে।  উপহারটি বাংলাদেশের মানুষের সাথে অনন্য এবং বিশেষ বন্ধুত্বের প্রতি ভারতের অটুট  এবং দীর্ঘমেয়াদী অঙ্গীকারের প্রতিনিধিত্ব করে।

    কুমুদিনী কমপ্লেক্স পরিদর্শনকালে, হাই কমিশনার কমপ্লেক্সের মধ্যে এবং এলাকায় স্থাপিত চমৎকার পূজা প্যান্ডেলে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি সবাইকে মহানবমীর শুভেচ্ছা জানান এবং উল্লেখ করেন যে সকল সম্প্রদায়ের দ্বারা পূজার আনন্দদায়ক উদযাপন এবং সমগ্র মানবতার সেবার মনোভাব বাংলাদেশের মানুষের উদার ও অন্তর্ভুক্তিমূলক ঐতিহ্যকে পুরোপুরিভাবে প্রতিফলিত করে, যেমনটি মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে নির্ধারিত হয়েছে এবং যার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জনগণের স্বাধীনতার সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।