২৩শে জুন, ২০১৮ ইং | ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:৪৮

বিরাট কোহলি কি বিরাট নাকি রক্ত মাংস গড়া রোবট

স্পোর্টস ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে ও টোয়েন্টি-২০ সিরিজে ঠিকই জিতে নিয়ে ভারত। আর তাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। যদিও অনেকেই বলছেন, তিনি তো ডন ব্র্যাডম্যান নন, যিনি কখনো ফেল করেননি! এমনকি তিনি শচীন টেন্ডুলকারও নন, যাকে দেখে মনে হবে সুন্দর ক্রিকেট উপহার দিয়ে অনন্তকাল খেলবেন! তবে বিরাট কোহলির মধ্যে রয়েছে— ভিভ রিচার্ডসন ও ব্রায়ান লারার ছায়া! ভিভের একটা বড় গুণ ছিল তিনি সব সময় প্রতিপক্ষের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে পছন্দ করতেন। কখনোই কোনো বোলার তাকে চাপে ফেলতে পারেননি। কোহলির বিরুদ্ধেও কোনো বোলার খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। ভিভের মতো বোলারদের কচুকাটা করতেই তিনি বেশি পছন্দ করেন। ব্রায়ান লারা ছিলেন একজন ঠান্ডা মাথার ক্রিকেটার! খুব ঠান্ডা মাথায় এক একজন বোলারকে বাইশগজে খুন করে ফেলতেন! এই কাজে দারুণ পারদর্শী কোহলিও। বিশ্বের যেকোনো মাঠে, দলের যেকোনো পরিস্থিতিতে তিনি সাবলীলভাবে ব্যাটিং করে থাকেন। বিশ্বের সব ক্রিকেট ভেন্যুই যেন তার ‘ঘরের মাঠ’! কোহলি এমন এক ক্রিকেটার যাকে আধুনিক ক্রীড়াজগতের অনন্য এক নজিরও বলা যায়। একজন রক্তে মাংসে গড়া মানুষ হয়েও ব্যাটিং করেন রোবটিং স্টাইলে। তার খেলায় যেন কোনো ভুল নেই। তিনি যেন রক্তে মাংসে গড়া এক সুপারম্যান! ক্রিকেটে নেটে ব্যাটিং প্র্যাকটিসের জন্য ‘বোলিং মেশিন’ ব্যবহার করা হয়। যাতে প্রতিটি বল পারফেক্ট মাপে ব্যাটসম্যানের কাছে যায়। কোহলি হচ্ছেন ‘ব্যাটিং মেশিন’! তার প্রতিটি মার এতটাই নিখুঁত যে কেবল রোবটের ক্ষেত্রেই হয়তো এতটা পারফেক্টভাবে ব্যাটিং করা সম্ভব। টেস্ট, ওয়ানডে ও টোয়েন্টি-২০, তিন ফরম্যাটেই কোহলি অনন্য। অবিশ্বাস্যভাবে ব্যাটিং করে চলেছেন। তিন ফরম্যাটেই তার ব্যাটিং গড় পঞ্চাশের উপরে। টেস্টে তার গড় ৫৩.৪০, ওয়ানডেতে ৫৮.১০ এবং টোয়েন্টি-২০তে ৫২.৮৬ রান। বয়স মাত্র ২৯ এখনই তার ঝুলিতে পুরে নিয়েছেন ৫৬ আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি। ২১টি টেস্ট সেঞ্চুরি এবং ৩৫টি ওয়ানডে সেঞ্চুরি। যেভাবে প্রতিনিয়ত এগিয়ে যাচ্ছেন, শচীন টেন্ডুলকারের ‘সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি’ রেকর্ড ভাঙা যেন এখন তার কাছে হয়ে গেছে সময়ের ব্যাপার মাত্র। যে দক্ষিণ আফ্রিকায় উপমহাদেশের দেশগুলো নাকানিচুবানি খেয়ে আসে সেখানেই দুর্দান্ত দাপটের সঙ্গে ছড়ি ঘোরাচ্ছেন কোহলি। সবাই জেনে গেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ২৫ বছর পর ভারত ওয়ানডে সিরিজে জিতেছে কোহলির ব্যাটে ভর করেই। কিন্তু জানেন কি, ৬ ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজে ভারতীয় দলপতির গড় কত? ১৮৬ গড়ে করেছেন ৫৫৮ রান। করেছেন তিন সেঞ্চুরি।

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে কোহলির ৬ ইনিংস, ১১২ (ডারবান), ৪৬* (সেঞ্চুরিয়ন), ১৬০* (কেপ টাউন), ৭৫ (জোহানেসবার্গ), ৩৬ (পোর্ট এলিজাবেথ) ও ১২৯* (সেঞ্চুরিয়ন)। কিছুদিন আগেও বিশ্ব জুড়ে সবচেয়ে বেশি ভক্ত ছিল ক্যারিবীয় তারকা ক্রিস গেইলের। তার বিধ্বংসী ব্যাটিং ক্রিকেটামোদীদের বিমোহিত করে রাখে। হয়তো এখন সেই জায়গাটা দখল করে নিয়েছেন বিরাট কোহলি। ভারতীয় ক্যাপ্টেন যখন ব্যাটিং করেন প্রতিপক্ষের দর্শকরাও বিরোধিতা ভুলে মন্ত্রমুগ্ধভাবে উপভোগ করেন। কোহলির মতো এতটা ‘পারফেক্ট’ সফল ব্যাটসম্যান ক্রিকেটের ইতিহাসে আর এসেছিল কিনা তা এখন গবেষণার বিষয় হতে পারে! অনেকেই ব্যাকরণ মেনে পারফেক্ট ব্যাটিং করেছেন কিন্তু কোহলির মতো এত সফল ছিলেন না। আবার অনেকেই সফল ছিলেন কিন্তু তাদের ব্যাটিংয়ে ততটা ‘পারফেক্টনেস’ ছিল না! কিন্তু কোহলি হচ্ছেন, কম্পিলিট এক ব্যাটসম্যান। এক কথায় নিখুঁত এক ক্রিকেটার।

ভক্তদের কাছে কোহলি এখন ‘দ্য ক্রিকেট সুপারম্যান’! সব সংস্করণ মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শচীন টেন্ডুলকারের ১০০ সেঞ্চুরির রেকর্ড তিনি ভাঙতে পারবেন কিনা, সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে ওয়ানডেতে শচীনের ৪৯ সেঞ্চুরির রেকর্ড যে একদিন বিরাট কোহলি ভেঙে দেবেন, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে সামান্যই। ভারত অধিনায়ক যে আগুনে ফর্মে আছেন, তাতে এখনই তাকে সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার হিসেবে দেখছেন অনেকে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ছয় ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে তৃতীয় সেঞ্চুরির পর নতুন করে কোহলি বন্দনায় মেতেছে গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। ২৯ বছর বয়সেই ওয়ানডেতে ৩৫তম ও সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৫৬তম সেঞ্চুরি করে ফেলেন কোহলি। সেঞ্চুরিয়নে সিরিজের শেষ ম্যাচেও ভারতের সামনে দাঁড়াতে পারেননি দক্ষিণ আফ্রিকা। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০৪ রানেই গুটিয়ে যায় প্রোটিয়ারা। ভারত যে ম্যাচটা জিতে সিরিজ ৫-১ ব্যবধানে নিজেদের ঝুলিতে পুরবে, তা মোটামুটি নিশ্চিতই ছিল। কিন্তু কয়জন ভেবেছিলেন এই রান তাড়া করতে নেমে কোহলি একাই করবেন অপরাজিত ১২৯! অধিনায়কের চওড়া ব্যাটে ১০৭ বল হাতে রেখে আট উইকেটে জিতেছে ভারত। কিন্তু ভারতের জয় ছাপিয়ে সবাই এখন কোহলি-বন্দনায় মুখর।

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভনের টুইট, ‘৩৫তম… সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার।’ ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ কাইফ টুইটারে ওয়ানডের কোহলিকে একটু ব্যাখ্যাও করেছেন এভাবে, ‘এই সিরিজের আগে ২০২ ওয়ানডেতে ৩২ সেঞ্চুরি ছিল ‘কিং কোহলির’। অর্থাৎ প্রতি ৬.৫ ইনিংসে একটি করে সেঞ্চুরি, যা সত্যিই বিস্ময়কর। এরপর সে পরের ছয় ওয়ানডেতে আরও তিনটি সেঞ্চুরি করল। আমরা আশীর্বাদপুষ্ট জাতি, কোহলির মতো আর কেউ নেই।’ দক্ষিণ আফ্রিকায় এই ওয়ানডে সিরিজে কোহলি সত্যিই বুঝিয়ে দিয়েছেন, তার মতো আর কেউ নেই। প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজে করছেন পাঁচশ’র (৫৫৮) বেশি রান। ভারত অধিনায়ক এ পথে ভেঙেছেন তার সতীর্থ রোহিত শর্মার ৪৯১ রানের রেকর্ড। ওয়ানডেতে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও এখন কোহলির। এ পথে তিনি পেছনে ফেলেছেন জর্জ বেইলিকে।

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দেশটির বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজেও সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন কোহলির। এছাড়া দ্বিপক্ষীয় সিরিজে প্রথম ভারতীয় হিসেবে তুলে নিয়েছেন তিনটি সেঞ্চুরি। প্রোটিয়াদের সাদামাটা সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে কোহলি ফিফটি তুলে নেন ৩৬ বলে। ৩৫তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৮২ বলে। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৯৬ বলে ১২৯ রানে। যাকে ওয়ানডেতে সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ভাবা হয়, সেই ভিভ রিচার্ডস পর্যন্ত বলেছেন, ‘আমি কখনই কোহলির মতো এত ভালো ছিলাম না।’ প্রথম ৭০ ওয়ানডেতে কোহলির সেঞ্চুরি ছিল সাতটি। পরের ১৩৮ ওয়ানডেতে ২৮ সেঞ্চুরি! ২০১১ সাল থেকে কোহলি প্রতি ৪.৯ ম্যাচে তুলে নিয়েছেন একটি করে সেঞ্চুরি। ম্যাচ ও সিরিজসেরার পুরস্কার হাতে কোহলি নিজেই জানিয়েছেন, আরও অন্তত আট-নয় বছর এভাবেই খেলে যেতে চান তিনি। সেক্ষেত্রে শচীনের সব রেকর্ডই হয়তো ভেঙে যাবে!

দক্ষিণ আফ্রিকার ২০৪ রান তাড়া করতে নেমে কোহলি একাই ১২৯। দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন কোহলির। ভিভ রিচার্ডস না শচীন টেন্ডুলকার? সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের প্রশ্নে এত দিন এ দুটি নামই বেশি উচ্চারিত হয়েছে। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন কিন্তু এ সংস্করণে সর্বকালের সেরা হিসেবে দেখছেন অন্য একজনকে, বিরাট কোহলি! ভনের এ মতের বিপক্ষে খুব বেশি যুক্তির অবকাশ নেই। বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সর্বশেষে ওয়ানডেতেও কোহলির সেঞ্চুরির পর। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০৪ রানের বেশি করতে পারেনি প্রোটিয়ারা।

ভারত যে এ ম্যাচটা জিতে সিরিজ ৫-১ ব্যবধানে নিজেদের ঝুলিতে পুরবে, তা মোটামুটি নিশ্চিতই ছিল। কিন্তু কয়জন ভেবেছিলেন এই রান তাড়া করতে নেমে কোহলি একাই করবেন ১২৯ রান! ১০৭ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটে জিতেছে ভারত। কিন্তু দলের জয় ছাপিয়ে সবাই এখন কোহলি-বন্দনায় মুখর।

এক দ্বিপাক্ষিক সিরিজে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান

খেলোয়াড় প্রতিপক্ষ ম্যাচ রান গড় ১০০ ৫০

বিরাট কোহলি (ভারত) দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ ৫৫৮ ১৮৬.০০ ৩ ১

রোহতি শর্মা (ভারত) অস্ট্রেলিয়া ৬ ৪৯১ ১২২.৭৫ ২ ১

জর্জ বেইলি (অস্ট্রেলিয়া) ভারত ৬ ৪৭৮ ৯৫.৬০ ১ ৩

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (জিম্বাবুয়ে) কেনিয়া ৫ ৪৬৭ ১১৬.৭৫ ২ ১

ক্রিস গেইল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ভারত ৭ ৪৫৫ ৬৫.০০ ৩ ১

বিরাট কোহলির অনেক রেকর্ডের মধ্যে কিছু বিরল রেকর্ড

## শচীন টেন্ডুলকারের পর এখন একমাত্র বিরাট কোহলিরই ওয়ানডেতে ৩৫টি সেঞ্চুরির রেকর্ড রয়েছে।

## ওয়ানডে ক্রিকেটে দ্রুততম ৯ হাজার রানের রেকর্ড তার। মাত্র ১৯৪ ইনিংসে ৯ হাজারী ক্লাবে প্রবেশ করেন বিরাট। এর আগে ২০৫ ইনিংসে নয় হাজার রান করার রেকর্ড ছিল এবি ডি ভিলিয়ার্সের।

## টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে পরপর দু’বছরের মধ্যেই তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি করেন।

## মাত্র ২৭ ইনিংসেই টোয়েন্টি-২০’তে দ্রুততম এক হাজার রানের মালিক বিরাট।

## ভারতের অধিনায়ক হিসেবে ওয়ানডেতে সর্বাধিক ১৩টি শত রান করেন কোহলি। এর আগে সর্বাধিক ১২টি সেঞ্চুরির রেকর্ড ছিলো প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলির।

## কোনো দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজে ৬ বার ৩০০ বা তার অধিক রান করেছেন বিরাট কোহলি। যা ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে এটাই প্রথম।

## ওয়ানডেতে অধিনায়ক হিসেবে ২০১৭তে সর্বোচ্চ ১৪৬০ রান করার রেকর্ড গড়েন কোহলি। এর আগে এই রেকর্ড ছিলো সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের।

## টেস্ট ক্রিকেটে ব্রায়ান লারার ৫টি ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড টপকে কোহলিই এখন পৃথিবীর একমাত্র অধিনায়ক যিনি টেস্টে ৬টি ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন।

## ২০১৬ ক্রিকেট বর্ষে তিন ফরম্যাটে ৫০ এর উপর গড় ছিলো বিরাট কোহলির, যা আর কোনো ক্রিকেটারের নেই।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.