২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং | ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:১৭

১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪দিনব্যাপী মহাপবিত্র বিশ্ব ওরশ শরিফ শুরু

আবু নাসের হুসাইন, স্টাফ রিপোর্টার, ফরিদপুরঃ
বিশ্বওলী খাজাবাবা শাহসুফি ফরিদপুরী (কুঃ ছেঃ আঃ) কেবলাজান ছাহেবের মহা পবিত্র বিশ্ব উরস শরীফের চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রস্তুতি কাজ প্রায় শেষের দিকে। ফরিদপুরের বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে ৪ মাস আগে থেকে শুরু হয় ব্যাপক প্রস্তুতি কর্মকান্ড। চার দিনব্যাপী এ সূফী মহা মিলনমেলা আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে। ২০ ফেব্রুয়ারি বাদ ফজর বিশ্বওলী খাজাবাবা ফরিদপুরী কেবলাজান ছাহেবের রওজা শরীফ যিয়ারত ও আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। ধারণা করা হচ্ছে, ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের পাশাপাশি হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের মানুষ সমবেত হবেন মহাপবিত্র বিশ্ব ওরশ শরীফে। ২৫ বর্গ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মূল ভেন্যুতে শান্তিকামী মুসলমানদের পাশাপাশি চিরায়ত ঐতিহ্য অনুযায়ী আন্যান্য ধর্মাবলম্বী মানুষের জন্যও পৃথক পৃথক জায়গায় স্বতন্ত্র কম্পাউন্ড নির্মাণ করা হয়েছে। মহিলাদের জন্য বরাবরের ন্যায় একেবারে আলাদা অন্ধর মহল কম্পাউন্ড নির্মাণ চলছে।
প্রতিনিধিদ্বয় পীরজাদা আলাহাজ্ব খাজা মাহ্ফযুল হক মুজাদ্দেদী ছাহেব ও পীরজাদা আলহাজ্ব খাজা মোস্তফা আমীর ফয়সল মুজাদ্দেদী ছাহেব সার্বিক দিক সমম্বয় ও তত্ত্বাবধান করছেন। বিশ্বব্যাপী শান্তি, ঐক্য ও প্রগতির আহবান ছড়িয়ে দেয়ার এ মহা মিলনমেলা উপলক্ষ্যে সুমৃশ্য তোরণ, বর্ণিল ব্যানার, ফেষ্টুন, পবিত্র কুরআনের আয়াত ও হাদীস শরীফ উত্কীর্ণ প্ল্যাকার্ড সহযোগে নান্দনিক সাজে সজ্জিত হচ্ছে বিশ্ব জাকের মঞ্জিল। পুকুরিয়া, চর নওপাড়া, চরভদ্রাসন, তালমা, হাট কৃষ্ণপুর, ভাঙ্গা, মালিগ্রাম ও ব্রাহ্মনদী প্রবেশ পথে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। একই সাথে চাঁদপুরের হরিণা ফেরিঘাট, মাওয়া এবং পাটুরিয়া ফেরীঘাটে ক্যাম্প স্থাপন চলছে। এ সব ক্যাম্প থেকে বিশ্ব উরস শরীফ কাফেলার প্রয়োজনীয় সহায়তা দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*