১৯শে জুলাই, ২০১৮ ইং | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১৫

সৌদি আরব ছাড়ছেন ১০ লাখ অবৈধ প্রবাসী

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশ সৌদি আরব সরকারের চলমান সাধারণ ক্ষমার আওতায় বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের প্রায় ১০ লাখ অভিবাসী শ্রমিক তাঁদের নিজ দেশে ফিরবেন বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

গত মার্চে অবৈধ শ্রমিকদের জন্য দেশটি ফের এই সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা দেয়।

ঘোষণা অনুযায়ী, আবাসন খাতে ও শ্রম আইন লঙ্ঘনকারীদের জন্য ৯০ দিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়। বলা হয়, এ সময়সীমার মধ্যে আইন লঙ্ঘনকারীরা জরিমানা ছাড়া সৌদি আরব ছেড়ে যেতে পারবেন।

গালফ বিজনেসের এক খবরে জানা যায়, যারা অবৈধভাবে সৌদি আরবে প্রবেশ করে কাজ করছেন বা যাঁর কাগজপত্র নেই- তাঁদের সৌদি সরকারের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফ এই সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে তিনি এই ক্যাম্পেইনে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ করেছেন। গত ২৯ মার্চ এই অভিযান শুরু হয়।

পাসপোর্ট বিভাগ এবং শ্রম ও উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, প্রাথমিকভাবে ভালোই সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। অভিযান চালুর পর প্রথম সপ্তাহে জেদ্দা ও মদিনায় ছয় হাজারের মতো পাকিস্তানি এ ব্যাপারে সহায়তার জন্য যোগাযোগ করেছেন। এ ছাড়া ভারতের প্রায় চার হাজার প্রবাসী সৌদি ছাড়ার জন্য ছাড়পত্র চেয়েছেন।

এদিকে প্রতিদিন প্রায় ৩০০ বাংলাদেশি সৌদি আরবের রিয়াদ দূতাবাস ও জেদ্দা কনস্যুলেটে যোগাযোগ করে সৌদি আরব ত্যাগ করছেন।

এ সাধারণ ক্ষমার এ প্রচারণা চালাতে কাজ করছে সৌদি সরকারের ১৯টি সংস্থা। যারা হজ বা ওমরাহ ভিসা, অন্যান্য ভিসার নির্ধারিত মেয়াদের অতিরিক্ত সময় সৌদি আরবে অবস্থান করছেন তাঁরাও এই ক্ষমার অধীনে আসবেন।

কর্মকর্তারা বলছেন, তিন মাসের এই অভিযানে অন্তত এক মিলিয়ন বা ১০ লাখ অবৈধ প্রবাসী সৌদি ছাড়বেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অবৈধ অভিবাসী তাড়াতে সৌদি সরকারের এটিই প্রথম সাধারণ ক্ষমার ক্যাম্পেইন নয়। তেলবাজারে হোঁচট খাওয়া দেশটি ২০১৩ সালে প্রথম এই ক্যাম্পেইন চালু করে। ওই সময় প্রায় ২৫ লাখ অবৈধ অভিবাসী সৌদি ছাড়েন।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.