২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:১০

রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের বছরটি কেমন যাবে?

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য সামগ্রিকভাবে ২০১৮  শুভ সম্ভাবনাময়। জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাতি বৃদ্ধি পাবে। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের নানা প্রকার বৈরী আচরণ সত্ত্বেও ক্ষমতার পটপরিবর্তনের কোনো আশঙ্কা নেই। তাঁর শারীরিক অবস্থা মোটামুটি ভালো থাকবে। তবে অতিরিক্ত পরিশ্রম এবং রাজনৈতিক চাপের জন্য তিনি মাঝেমধ্যে ক্লান্তি ও অসুস্থবোধ করতে পারেন। এ বছর তাঁর বেশ কয়েকটি ফলপ্রসূ বিদেশ সফরের সম্ভাবনা আছে। দলীয় অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব, অঙ্গসংগঠনগুলো, বিশেষ করে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল ও সংঘাত-সহিংসতার জন্য প্রধানমন্ত্রী বিব্রতবোধ করতে পারেন। তাঁর বিরুদ্ধে বিবিধমুখী গোপন ষড়যন্ত্রের আশঙ্কা আছে। তাঁর নিরাপত্তাজনিত বিষয় সম্পর্কে সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করতে হবে। বিবিধমুখী চাপ এবং প্রতিকূলতা সত্ত্বেও দেশের সব উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্ব অব্যাহত থাকবে বলে আশা করা যায়। সে ক্ষেত্রে বেশকিছু প্রকল্পের কাজ সফলভাবে শেষ করতে পারবেন এবং নির্মাণাধীন পদ্মা সেতু প্রকল্পে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হতে পারে। অন্যান্য দিক ভালো যাবে।

খালেদা জিয়া

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার শরীর-স্বাস্থ্য মোটামুটি ভালো থাকবে। তবে রাজনৈতিকভাবে তিনি প্রবল মানসিক চাপের সম্মুখীন হতে পারেন। তিনি এবং তাঁর পুত্রের বিরুদ্ধে একাধিক মামলার রায় হতে পারে এবং রায় তাঁদের জন্য অনুকূল না হওয়ার আশঙ্কাই বেশি। তাঁর পুত্র তারেক রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের খুব একটা সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। খালেদা জিয়ার এ বছর ব্যক্তিগত বা রাজনৈতিক কারণে একাধিকবার বিদেশ সফরের সম্ভাবনা আছে। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে তাঁর দল বিএনপি এবং মিত্রদের সরকারবিরোধী আন্দোলন গড়ে তোলার প্রচেষ্টা খুব একটা সফল নাও হতে পারে। তবে তিনি বছরের অধিকাংশ সময় তাঁর দল এবং মিত্রদের সুসংগঠিত কাজে ব্যস্ত থাকবেন। সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষমতাসীন থাকাকালে তিনি এবং তাঁর পুত্রের অর্থ পাচারের বিষয়টি জনসমক্ষে নিয়ে আসার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। তাঁর রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ও কর্মসূচি নির্ধারণে এ বছর সতর্কতা অবলম্বন ও বিচক্ষণতার পরিচয় দিলে ভালো করবেন। অন্যান্য দিক ভালো যাবে বলে আশা করা যায়।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ

সাবেক রাষ্ট্রপতি এবং জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জন্য বছরটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। তাঁর শরীর-স্বাস্থ্য আশানুরূপ ভালো নাও যেতে পারে। জাতীয় রাজনীতিতে তিনি খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনে সক্ষম নাও হতে পারেন। নির্বাচনী এলাকায় তাঁর জনপ্রিয়তা অক্ষুণ্ণ থাকবে। দল পরিচালনার ক্ষেত্রে তাঁর যথাযথ ভূমিকা পালন করা খুব একটা সহজ নাও হতে পারে। শরীর-স্বাস্থ্যের ব্যাপারে তাঁর অধিকতর সতর্ক থাকা উচিত।

রওশন এরশাদ

জাতীয় সংসদের বর্তমান বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের জন্য বছরটি গতানুগতিক হবে। রাজনীতিতে স্বকীয় হলেও উল্লেখযোগ্য কোনো দায়িত্ব পালনে তিনি সক্ষম নাও হতে পারেন। তাঁর শরীর-স্বাস্থ্য মোটামুটি ভালো থাকবে। বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে তিনি সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে সক্ষম হবেন বলে আশা করা যায়।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

জেপি নেতা আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর জন্য সামগ্রিকভাবে বছরটি অনুকূল থাকবে বলে আশা করা যায়। তাঁর শরীর-স্বাস্থ্য ভালো যেতে পারে। প্রজাতন্ত্রের মন্ত্রী হিসেবে তিনি তাঁর দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে পারবেন বলে আশা করা যায়। নিজ নির্বাচনী এলাকায় তাঁর জনপ্রিয়তা অক্ষুণ্ণ থাকবে বলে আশা করা যায়।

হাসানুল হক ইনু

বর্তমান তথ্যমন্ত্রী এবং জাসদ নেতা হাসানুল হক ইনুর জন্য বছরটি মোটামুটি ভালো যাবে বলে আশা করা যায়। শরীর-স্বাস্থ্য মোটামুটি ভালো থাকবে। নিজ নির্বাচনী এলাকায় জনপ্রিয়তা অক্ষুণ্ণ থাকার সম্ভাবনা আছে।

রাশেদ খান মেনন

ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা রাশেদ খান মেননের জন্য বছরটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। প্রজাতন্ত্রের মন্ত্রী হিসেবে তিনি তাঁর দায়িত্ব পালনে সক্ষম হলেও রাজনৈতিক সতীর্থ বা বন্ধুদের ভেতরে তিনি বিতর্কিত হয়ে উঠবেন। নিজ দল ওয়ার্কার্স পার্টির অভ্যন্তরীণ নেতৃত্বের ক্ষেত্রে তিনি চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারেন। তাঁর শরীর-স্বাস্থ্য মোটামুটি ভালো থাকবে।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.