সর্ব শেষ খবর
১৮ই জানুয়ারি, ২০১৮ ইং | ৫ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | রাত ৯:২৭
রুহুল কবির রিজভী

পোলিং এজেন্ট বের করে দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের সন্ত্রাসীরা

বিশেষ প্রতিবেদকঃ  নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পোলিং এজেন্ট বের করে দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের সন্ত্রাসীরা। বললেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে  তিনি সাংবাদিকদের এসব অভিযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, গেল রাতে শহীদুল নামে বিএনপির এক নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে গেল রাতে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে বলে ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী কাওছার জামান বাবলা অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বর্তমান সরকারের মন্ত্রী পদমর্যাদায় থাকলেও তিনি চারদিন ধরে রংপুরে অবস্থান করছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত মত বিনিময় ও ক্যাম্পিংয়ের মাধ্যমে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। পাশাপাশি জাতীয় পার্টির আরেক নেতা ও স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গাও রংপুরে অবস্থান করছেন যা পুরোপুরি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের বিরামহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

রিজভী দাবি করেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনও আওয়ামী মহাজোটকে খুশি করার কাজে বিরামহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, এ নির্বাচন তার একটি উদাহরণ। এছাড়া আওয়ামী লীগ ও মহাজোটের নেতারাও প্রতিনিয়ত নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের মাধ্যমে নির্বাচনকে প্রভাবিত করেছেন।

রিজভী বলেন, এরপরও নির্বাচন কমিশন তাদের বিরুদ্ধে কোনও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। ১৯৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ১২৮টি ভোট কেন্দ্র অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বলছে কমিশন। কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা আরও বেশি। অথচ এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

তিনি আরো বলেন, আমরা শুরু থেকেই সেনাবাহিনী মোতায়েনের কথা বললেও ইসি সেনা মোতায়েন করেনি। বরং সেখানে আনসার সদস্যের নামে আজ নিয়োগ করা হয়েছে আওয়ামী লীগ ও মহাজোটের নেতাকর্মীদের।

তিনি বলেন, আজ সকাল থেকে সেখানে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও গত দুদিন ধরে ক্ষমতাসীন দল ও জোটের তাণ্ডবে সেখানে ভীতিকর অবস্থা বিরাজ করছে। বিএনপি ও বিএনপি সমর্থিত ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে তারা যেন ভোট কেন্দ্রে না যায়। এছাড়া নির্বাচনী এজেন্টদেরও নানাভাবে হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। আজ সকালেও কয়েক জায়গায় প্রশাসনের ব্যক্তিদের সহায়তায় ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর খবরও আমরা পেয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*