১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৪১
যশোর ইকোনমিক জোন

যশোরে নির্মাণ করা হচ্ছে দুটি ইকোনমিক জোন

যশোর থেকে ই.আর.ইমন:  যশোরে দু’টি অর্থনৈতিক অঞ্চল (ইকোনমিক জোন) গঠনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে যশোর-বেনাপোল সড়কের সদর উপজেলার আরবপুর ইউনিয়নের মালঞ্চিতে একটি এবং ঝিকরগাছা-শার্শা এলাকার মধ্যবর্তী এলাকায় আরেকটি ইকোনমিক জোন স্থাপনের লক্ষ্যে প্রাথমিক সব জরিপ শেষ হয়েছে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে যশোর সার্কিট হাউসে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (সচিব) পবন চৌধুরী এসব কথা জানান।

পবন চৌধুরী বলেন, যশোরের বেনাপোলে দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর, বিমানবন্দর, শেখ হাসিনা সফটওয়ার টেকনোলজি পার্ক, মোংলা ও নওয়াপাড়া নৌবন্দর, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান থাকায় ভৌগলিকভাবে সুবিধাজনক এলাকা হওয়ায় এখানে দু’টি ইকোনোমিক জোন প্রতিষ্ঠিত হলে যশোর বাণিজ্যের তৃতীয় রাজধানী হওয়ার যথেষ্ট সম্ভবনা রয়েছে।

তিনি বলেন, দু’একদিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রস্তাব পাঠাবো এবং চলতি মাসেই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী কমিটির সভা হবে, ওই সভায় অনুমোদন হলে দ্রুত গতিতে জমি অধিগ্রহণসহ সব কাজ দৃশ্যমান হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পবন চৌধুরী বলেন, সদর উপজেলার মালঞ্চিতে ৪০০ থেকে ৫০০ একর একর জমি নিয়ে গঠিত ইকোনমিক জোনে অটো-মোবাইলস, ইলেকট্রনিক্স, টেক্সটাইল, গার্মেন্টস, ফার্মাসিউটিক্যালসহ মাল্টিপ্রোডাক্ট (বিভিন্ন পণ্য) উৎপাদনের কাজ হতে পারে, এছাড়াও ঝিকরগাছা-শার্শায় ৪০০ একর জমির উপর স্থাপিত হতে যাওয়া ইকোনমিক জোনে মাল্টিপ্রোডাক্ট কিংবা দেশি-বিদেশি কোম্পানির চাহিদার সঙ্গে বিবেচনা করে ফার্মাসিউটিক্যাল কিংবা অন্য কোনো পণ্য উৎপাদনের সিদ্ধান্ত হতেও পারে, সেটা চাহিদার উপর নির্ভর করেই হবে।

যশোরের জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা (উপসচিব) মলয় চৌধুরী, যশোর স্থানীয় সরকার উপ পরিচালক মাজেদুল ইসলাম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*