রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ খবর :
কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার স্বঘোষিত ধর্মগুরু আজম বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান বিগত সাক্ষাৎকারের ফলাফল সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মেহেরপুরে অবৈধ ও অনিবন্ধিত যানবাহন আটক মেহেরপুরে হেল্প ফাউন্ডেশনের ইউথ ডেভেলপমেন্ট শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামের রৌমারীর উপজেলার অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে পূর্বাচলে হবে অত্যাধুনিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম -ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নে সমগ্র বিশ্বের প্রশংসা– তথ্যমন্ত্রী প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের জীবন গড়তে হবে -মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে গরুর শিং এর আঘাতে কৃষক নিহত বাজেট নিয়ে বিএনপি ও সিপিডিকে তথ্যমন্ত্রীর একহাত

কোন যোগ্যতায় লিটন দাসকে বারবার নেওয়া হচ্ছে?

ক্রীড়া প্রতিবেদকঃ দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে বাংলাদেশ দলের ব্যর্থতা আবারও স্পষ্ট করে তুলেছে দলে কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের প্রভাব খাটানোর নেতিবাচক ফলাফল। দলের ব্যর্থতার পেছনে অনেকেই দোষারোপ করছেন সাবেক এই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারকে। কোচের দোষ দিয়েছেন বিশিষ্ট ক্রিকেট সংগঠক খন্দকার জামিল উদ্দিনও।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিশিষ্ট এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব তার কলামে লেখেন, ‘কোচ তো সুদূরপ্রসারী চিন্তা করবেন না। তার চিন্তা এটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। যে সময় পর্যন্ত তার চাকরি আছে। আর সেটাই করছেন আমাদের কোচ চন্ডিকা হাথুরাসিংহে। কেন তাকে সর্বময় ক্ষমতা দিয়ে দেওয়া হয়েছে? তিনি যা চাইবেন, সেটা কেন হবে? কোচ ২০১৯ সালে চলে যাবেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট তো এদেশের সম্পদ।’

তিনি বলেন, ‘কোচ যা করছেন তা মেনে নেওয়ার মতো নয়। কেন অধিনায়কের ক্ষমতা থাকবে না? একাদশ নির্বাচনে কেন এতো পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হচ্ছে? তার কারণে মুমিনুলের মতো প্রতিভা আজ কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে। ৪৬ এর উপর যার ব্যাটিং গড় তাকে কেন বাদ দেওয়া হয়? কোন যোগ্যতায় লিটন দাসকে বারবার একাদশে নেওয়া হচ্ছে? নিউজিল্যান্ড সফরে আবিষ্কার কর হলো লেগ স্পিনার তানভীর হায়দারকে। কোথায় এখন কোচের সেই পছন্দের তানভীর? যুবায়ের হোসেন লিখনওবা কোথায়?’

কোচ ক্রিকেটারদের মনোবল ধ্বংস করছেন জানিয়ে খন্দকার জামিল উদ্দিন বলেন, ‘একজন ক্রিকেটারের আসল জিনিস হলো মনোবল। মুমিনুলের মনোবল ধ্বংস করার জন্য যা যা করার তার সবাই করেছেন হাথুরুসিংহে। আমি মনে করি, সাব্বির, ইমরুল ও সৌম্যর ক্যারিয়ারও শেষ করে দিচ্ছেন কোচ। তামিমের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে অনেক সাফল্য আছে ইমরুলের। তা সত্বেও তাকে ওয়ান ডাউনে নামিয়ে সৌম্যকে দিয়ে ওপেন করানো হচ্ছে। কোচ সবচেয়ে বড় ভুল করেছেন সৌম্য ও সাব্বিরকে দিয়ে এত তাড়াতাড়ি টেস্ট খেলিয়ে। তারা আসলে সীমিত ওভার ফরম্যাটের খেলোয়াড়। টেস্ট খেলার মতো পরিপক্কতা এখনও তাদের মধ্যে গড়ে ওঠেনি। অথচ তাদের বারবার ৫ দিনের ম্যাচে খেলিয়ে আত্মবিশ্বাস জিনিসটা ধ্বংস করে দেওয়া হচ্ছে। তারা টেস্টে ব্যর্থ হচ্ছেন। আর এই ব্যর্থতার চাপ পড়ছে ওয়ানডে ফরম্যাটেও। এখানেও তারা রান পাচ্ছেন না। কেন তিনি টেস্ট ও ওয়ানডের জন্য আলাদা খেলোয়াড় বাছাই করতে পারছেন না, তা আমার বুঝে আসে না।’

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়াকে ‘ভয়াবহ লজ্জার’ আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যা হলো বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য তা ভয়াবহ লজ্জার। বাংলাদেশ ক্রিকেটের ফলোয়ার হিসেবে আমি খুবই লজ্জিত এবং অপমানিতও বটে। দেশের বাইরে হারতেই পারে দল, তাই বলে এভাবে? দক্ষিণ আফ্রিকা যখন ব্যাট করে তখন মনে হয়েছে উইকেট কতই না ব্যাটিং সহায়ক! অথচ বাংলাদেশ ব্যাট করলে মনে হয় এর চেয়ে বোলিং উইকেট আর হয়ই না! বোলাররা ওভার প্রতি ৮/৯ করে রান দিচ্ছেন। ব্যাটসম্যানরা তো দাঁড়াতেই পারছেন না। এই পর্য়ায়ে এসে দলের এমন অবস্থা মেনে নেওয়া যায় না।’

শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দি নিউজ এর বিশেষ প্রকাশনা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

© All rights reserved © 2019  
IT & Technical Support: BiswaJit