২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৮:৩৭
সর্বশেষ খবর

‘লাব্বাইক’ ধ্বনিতে মুখরিত হওয়ার অপেক্ষায় আরাফাত

দি নিউজ ডেস্ক: হজের মূল আনুষ্ঠানিকতায় অংশ নিতে সারা বিশ্ব থেকে সৌদি আরবে সমবেত হওয়া মুসলমানরা মিনা থেকে রওনা হয়েছেন; সৃষ্টিকর্তার কাছে হাজিরা দিতে তাদের ‘লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক’ ধ্বনিতে মুখরিত হবে আরাফাত ময়দান।

বুধবার হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পর কাবা শরিফ থেকে রওনা হয়ে পাঁচ কিলোমিটার দূরে মিনায় জড়ো হন হাজীরা। ইবাদত-বন্দেগিতে মিনায় রাত কাটানোর পর আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় তারা জিকির করেন, জামায়াতের সঙ্গে নামাজ পড়েন।

সৌদি আরবের সংবাদ মাধ্যমের হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বের ১৭১টি দেশের প্রায় ২৫ লাখের বেশি ধর্মপ্রাণ মুসলমান এবার হজ করছেন, যাদের মধ্যে বাংলাদেশির সংখ্যা এক লাখ ২৭ হাজারের বেশি।

হজের মূল আনুষ্ঠানিকতার জন্য বুধবার এশার নামাজের পর থেকেই তারা মিনা থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে আরাফাতের ময়দানের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেন। সেলাইবিহীন শুভ্র এক কাপড়ে বৃহস্পতিবার সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সেখানে থাকবেন তারা।

মুসলমানদের কাছে পবিত্র এই ভূমিতে তারা যার যার মতো সুবিধাজনক জায়গা বেছে নিয়ে পাপ থেকে মুক্তির আশায় ইবাদত করবেন; হজের খুতবা শুনবেন এবং নামাজ পড়বেন।

সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি আবদুল আজিজ আল শাইখ আরাফাতের মসজিদে নামিরাহ থেকে হজের খুতবা দেবেন। রেডিও ও টেলিভিশনে তা সম্প্রচার করা হবে বিশ্বময়।

প্রায় চার বর্গমাইল আয়তনের সমতল এই ময়দানের দক্ষিণে মক্কা হাদা তায়েফ রিং রোড, উত্তরে সাদ পাহাড়। সেখান থেকে আরাফাত সীমান্ত পশ্চিমে আরও প্রায় পৌনে ১ মাইল বিস্তৃত।

মুসলমানদের বিশ্বাস অনুযায়ী, আদি পিতা আদম ও আদি মাতা হাওয়ার পৃথিবীতে পুনর্মিলন হয়েছিল এই আরাফাতের ময়দানে। এখানে তারা আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছিলেন।

এই আরাফাতেই ১৪ শ’ বছরের বেশি সময় আগে ইসলামের শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (স.) তার বিদায় হজের ভাষণ দিয়েছিলেন। ইসলামের রীতি অনুযায়ী, জিলহজ মাসের নবম দিন আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করে ইবাদতে কাটানোই হল হজ।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.